ঢাকা ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ভাগ্যের চাকা ঘুরাইতে গরুর পায়ের নিচে পিষ্ট হন শহরবাসী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৫:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৪৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নিজের ভগ্য বদলাতে মানুষ কতকিছুই না করে! পরিবর্তনশীল এই মানুষ কেবল নিজের অবস্থান বদলানোর জন্য নানারকম রেওয়াজ পালন করে। আর এরজন্য পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে রয়েছে বিভিন্ন রকমের সংস্কৃতি ও রীতিনীতির প্রচলন। তেমনই এক অদ্ভূত রীতি পালন করে আসছে দীর্ঘকাল ধরে ভারতের গুজরাটের গরবাড়াত শহরের বাসিন্দারা। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এই রেওয়াজ জানলে যেকেউ অবাক হবেন। ভ্যাগ্য বদলাতে এই শহরের মানুষেরা গরুকে তাদের পিঠের উপর হাঁটতে বাধ্য করেন। শুনতে অদ্ভুত হলেও এই শহরের মানুষ বিশ্বাস করেন এই রীতি পালন করলে সৌভাগ্যবান হওয়া যায়।

আদিকাল থেকেই শহরবাসীর ধারণা, তাদের পিঠের উপর দিয়ে গরু হেঁটে গেলেই জীবনের সমস্ত সমস্যার অবসান হবে! এই রীতি পালনে যেসব গরু ব্যবহার করা হয় সেগুলোর ওজন ১০০০ কেজিরও বেশি।

একসঙ্গে কয়েক ডজন মানুষ মাটিতে উল্টো হয়ে শুয়ে পড়েন। আর তখনই ১ হজার কিলো ওজনের গরুগুলো ছেড়ে দেওয়া হয় এবং যথারীতি গরু মানুষের পিঠের উপর দিয়ে হেঁটে যায়। আর এই অনুষ্ঠানটি একাদশীকে কেন্দ্র করে পালিত হয়ে আসছে। হিন্দু উৎসব দীপাবলির পর এই দিনকেই শুভদিন বলে বিবেচনা করা হয়।

যদিও অনেক অংশগ্রহণকারীরা এই উদ্ভট রীতি পালন করতে গিয়ে গুরুতর জখম পর্যন্ত হন। তবে শহরবাসীর মনে করেন, জখম হওয়া ব্যক্তিদের অসুস্থতা নিরাময়ের সঙ্গে সঙ্গেই তাদের ভাগ্যেরও উন্নতি ঘটবে।

এই ঘটনার স্বাক্ষী হতে অনুষ্ঠানে শত শত দর্শক উপস্থিত হন। গরুর পায়ের নীচে সৌভাগ্য খুঁজা এই উৎসব উদযাপনের জন্য গরুগুলোকে রং, মালা এবং মেহেদি দিয়ে সাজানো হয়। গরুকে সনাতনী হিন্দুরা সবচেয়ে পবিত্র প্রাণী হিসাবে বিবেচনা করেন। সূত্র: ডেইলি মেইল

নিউজটি শেয়ার করুন

ভাগ্যের চাকা ঘুরাইতে গরুর পায়ের নিচে পিষ্ট হন শহরবাসী

আপডেট সময় : ০৩:৫৫:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নিজের ভগ্য বদলাতে মানুষ কতকিছুই না করে! পরিবর্তনশীল এই মানুষ কেবল নিজের অবস্থান বদলানোর জন্য নানারকম রেওয়াজ পালন করে। আর এরজন্য পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে রয়েছে বিভিন্ন রকমের সংস্কৃতি ও রীতিনীতির প্রচলন। তেমনই এক অদ্ভূত রীতি পালন করে আসছে দীর্ঘকাল ধরে ভারতের গুজরাটের গরবাড়াত শহরের বাসিন্দারা। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এই রেওয়াজ জানলে যেকেউ অবাক হবেন। ভ্যাগ্য বদলাতে এই শহরের মানুষেরা গরুকে তাদের পিঠের উপর হাঁটতে বাধ্য করেন। শুনতে অদ্ভুত হলেও এই শহরের মানুষ বিশ্বাস করেন এই রীতি পালন করলে সৌভাগ্যবান হওয়া যায়।

আদিকাল থেকেই শহরবাসীর ধারণা, তাদের পিঠের উপর দিয়ে গরু হেঁটে গেলেই জীবনের সমস্ত সমস্যার অবসান হবে! এই রীতি পালনে যেসব গরু ব্যবহার করা হয় সেগুলোর ওজন ১০০০ কেজিরও বেশি।

একসঙ্গে কয়েক ডজন মানুষ মাটিতে উল্টো হয়ে শুয়ে পড়েন। আর তখনই ১ হজার কিলো ওজনের গরুগুলো ছেড়ে দেওয়া হয় এবং যথারীতি গরু মানুষের পিঠের উপর দিয়ে হেঁটে যায়। আর এই অনুষ্ঠানটি একাদশীকে কেন্দ্র করে পালিত হয়ে আসছে। হিন্দু উৎসব দীপাবলির পর এই দিনকেই শুভদিন বলে বিবেচনা করা হয়।

যদিও অনেক অংশগ্রহণকারীরা এই উদ্ভট রীতি পালন করতে গিয়ে গুরুতর জখম পর্যন্ত হন। তবে শহরবাসীর মনে করেন, জখম হওয়া ব্যক্তিদের অসুস্থতা নিরাময়ের সঙ্গে সঙ্গেই তাদের ভাগ্যেরও উন্নতি ঘটবে।

এই ঘটনার স্বাক্ষী হতে অনুষ্ঠানে শত শত দর্শক উপস্থিত হন। গরুর পায়ের নীচে সৌভাগ্য খুঁজা এই উৎসব উদযাপনের জন্য গরুগুলোকে রং, মালা এবং মেহেদি দিয়ে সাজানো হয়। গরুকে সনাতনী হিন্দুরা সবচেয়ে পবিত্র প্রাণী হিসাবে বিবেচনা করেন। সূত্র: ডেইলি মেইল