ঢাকা ০১:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ব্রিকস সদস্য দেশগুলোতে এক দশকে বাড়বে লাখপতির সংখ্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১২:১৪:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৭৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ব্রিকস সদস্য দেশগুলোতে আগামী এক দশকে বাড়বে লাখপতির সংখ্যা। ব্রিকসের দেশগুলো বিনিয়োগ উপযোগী সম্পদের পরিমাণ পৌঁছাবে ৪৫ লাখ কোটি ডলারে। ব্রিকসের সম্পদ নিয়ে এমন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হেনলি এন্ড পার্টনার্স।

বিনিয়োগ গবেষণার এই প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুযায়ী, ব্রিকস সদস্যভুক্ত এই ১০ দেশের ১৬ লাখ মানুষের ১০ লাখ ডলারের ওপর বিনিয়োগ উপযোগী সম্পদ আছে। এরমধ্যে আছেন ৫শ’ বিলিওনিয়ারও। আগামী ১০ বছরে এই অঞ্চলে লাখপতির সংখ্যা ৮৫ শতাংশ পর্যন্ত বাড়বে বলেও জানানো হয় প্রতিবেদনে।

বিশ্বের মোট জনগোষ্ঠীর ৪৫ শতাংশই এই ব্লকে। পাশাপাশি মোট জিডিপি প্রবৃদ্ধির ৩৬ শতাংশ নির্ভর করছে এই অঞ্চলের ওপর। যেখানে শীর্ষ দেশগুলোর অর্থনীতির জোট জি সেভেনের ওপর নির্ভর করছে ৩০ শতাংশ। মধ্যপ্রাচ্য আর উত্তর আফ্রিকা বা মেনা অঞ্চল হিসেবে পরিচিত অঞ্চলের দেশগুলোর ব্রিকস জোটে অংশগ্রহণ বাড়ায় আরও শক্তিশালী হচ্ছে এই ব্লকের অর্থনীতি।

বর্তমান এই জোটে সবচেয়ে বেশি ৮ লাখের ওপরে মিলিওনিয়ার রয়েছে চীনে। ভারতে রয়েছে ৩ লাখের ওপরে। আগামী ১০ বছরে এই দুই দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হওয়ার পাশাপাশি বাড়বে লাখপতির সংখ্যাও। গেল ১ দশকে আবার সৌদি আরব সংযুক্ত আরব আমিরাত আর ইথিওপিয়ার সম্পদ বেড়েছে উল্লেখযোগ্যহারে। পাশাপাশি বেড়েছে লাখপতির সংখ্যা। বিশ্ব অর্থনীতিতে এই জোট আগামী ১০ দশকে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে প্রতিবেদনে।

উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলো নিয়ে গঠিত জোট ব্রিকসে প্রাথমিক পর্যায়ে সদস্য ছিলো ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন আর দক্ষিণ আফ্রিকা। এখন সেই জোটে যুক্ত হয়েছে সৌদি আরব, ইরান, ইথিওপিয়া, মিশর ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

নিউজটি শেয়ার করুন

ব্রিকস সদস্য দেশগুলোতে এক দশকে বাড়বে লাখপতির সংখ্যা

আপডেট সময় : ১২:১৪:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ব্রিকস সদস্য দেশগুলোতে আগামী এক দশকে বাড়বে লাখপতির সংখ্যা। ব্রিকসের দেশগুলো বিনিয়োগ উপযোগী সম্পদের পরিমাণ পৌঁছাবে ৪৫ লাখ কোটি ডলারে। ব্রিকসের সম্পদ নিয়ে এমন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হেনলি এন্ড পার্টনার্স।

বিনিয়োগ গবেষণার এই প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুযায়ী, ব্রিকস সদস্যভুক্ত এই ১০ দেশের ১৬ লাখ মানুষের ১০ লাখ ডলারের ওপর বিনিয়োগ উপযোগী সম্পদ আছে। এরমধ্যে আছেন ৫শ’ বিলিওনিয়ারও। আগামী ১০ বছরে এই অঞ্চলে লাখপতির সংখ্যা ৮৫ শতাংশ পর্যন্ত বাড়বে বলেও জানানো হয় প্রতিবেদনে।

বিশ্বের মোট জনগোষ্ঠীর ৪৫ শতাংশই এই ব্লকে। পাশাপাশি মোট জিডিপি প্রবৃদ্ধির ৩৬ শতাংশ নির্ভর করছে এই অঞ্চলের ওপর। যেখানে শীর্ষ দেশগুলোর অর্থনীতির জোট জি সেভেনের ওপর নির্ভর করছে ৩০ শতাংশ। মধ্যপ্রাচ্য আর উত্তর আফ্রিকা বা মেনা অঞ্চল হিসেবে পরিচিত অঞ্চলের দেশগুলোর ব্রিকস জোটে অংশগ্রহণ বাড়ায় আরও শক্তিশালী হচ্ছে এই ব্লকের অর্থনীতি।

বর্তমান এই জোটে সবচেয়ে বেশি ৮ লাখের ওপরে মিলিওনিয়ার রয়েছে চীনে। ভারতে রয়েছে ৩ লাখের ওপরে। আগামী ১০ বছরে এই দুই দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হওয়ার পাশাপাশি বাড়বে লাখপতির সংখ্যাও। গেল ১ দশকে আবার সৌদি আরব সংযুক্ত আরব আমিরাত আর ইথিওপিয়ার সম্পদ বেড়েছে উল্লেখযোগ্যহারে। পাশাপাশি বেড়েছে লাখপতির সংখ্যা। বিশ্ব অর্থনীতিতে এই জোট আগামী ১০ দশকে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে প্রতিবেদনে।

উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলো নিয়ে গঠিত জোট ব্রিকসে প্রাথমিক পর্যায়ে সদস্য ছিলো ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন আর দক্ষিণ আফ্রিকা। এখন সেই জোটে যুক্ত হয়েছে সৌদি আরব, ইরান, ইথিওপিয়া, মিশর ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।