ঢাকা ০৪:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

হুমকিতে ১০ গ্রামের মানুষ

ব্রহ্মপুত্র নদে তীর রক্ষা বাঁধে ধস 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৬:৩৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৫২২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

// ফয়সাল হক চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি //

ব্রহ্মপুত্রের পানির তোড়ে অবদা বাঁধ ও তীর রক্ষা প্রকল্পে দেখা দিয়েছে ধস। ধস দেখা দেয়ায় এলাকায় দেখা দিয়েছে আতঙ্ক। হুমকির মুখে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ১০টি গ্রামসহ হাজারো একর ফসলি জমি। বাঁধ ভেঙ্গে গেলে উপজেলা সদরসহ প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রাম প্লাবিত হতে পারে এই আতঙ্কে লক্ষাধিক মানুষ। বাঁধ ও ডানতীর রক্ষা প্রকল্প রক্ষায় চেষ্টা চালাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

জানাগেছে, পানি বৃদ্ধির কারনে ফুলে ফেঁপে উঠছে ব্রহ্মপুত্র। ব্রহ্মপুত্রের পানির তোড়ে কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার রানীগঞ্জ কাঁচকোল ¯øুইস গেট সংলগ্ন এলাকায় বৃহস্পতিবার অবদা বাঁধ ও ডানতীর রক্ষা প্রকল্পে দেখা দিয়েছে ধস। পানির তোড়ে ডেবে গেছে প্রায় ২০ মিটার পিচিং, ভেঙ্গে যাচ্ছে বাঁধ। ডান তীর রক্ষা প্রকল্পে ধস দেখা দেয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে হাজারো একর ফসলি জমিসহ রানীগঞ্জ ইউনিয়নের সড়কটারী, শিমুল তলা বাঁধ গ্রাম, পাঁচাগ্রাম, পূর্ব ভাটিয়াপাড়াসহ প্রায় ১০টি গ্রাম। শুধু তাই নয় বাঁধ ভেঙ্গে গেলে নিমিষেই তলিয়ে যাবে উপজেলা সদরসহ প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রাম।

রক্ষা প্রকল্পে ধস দেখা দেয়ায় ভাঙ্গন ও প্লাবিত হওয়ার আতঙ্কে লক্ষাধিক মানুষ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফলতির কারনে আজ এই ধস এবং আতঙ্ক অভিযোগ করে কাঁচকোল এলাকার মানুষজন জানান, ভাঙ্গন বা ধস দেখা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাজ শুরু করেন এবং জিও ব্যাগ ফেলানো শুরু করলেও কাজের ধিরগতি ও সঠিক পরিকল্পনার অভাবে বারবার ধস ও ভাঙ্গনের আতঙ্কে পড়ে এলাকাবাসী। তারা আরো বলেন, এই বাঁধ ভেঙ্গে গেলে শুধু রানীগঞ্জ নয় উপজেলা সদরও পড়বে হুমকির মুখে সেই সাথে চলমান বন্যায় নিমিষেই তলিয়ে যাবে প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামসহ উপজেলা সদর, পানিবন্দি হয়ে পড়বে লক্ষাধিক মানুষ। বাঁধ ভেঙ্গে গেলে হুমকির মুখে পড়বে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ১০টি গ্রাম নিঃস্ব হবে হাজারো পরিবার স্বীকার করে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, বাঁেধর পূর্ব দিকে চর পড়ায় পানির প্রবল ¯্রােতে এই ধস দেখা দিয়েছে, তিনি আরো বলেন বাঁধসহ ডানতীর রক্ষা প্রকল্প রক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ড চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ধস এলাকায় জিও ব্যাগ ডাম্পিং কাজ চলছে, আশা করি আর সমস্যা হবে না।

বা/খ/রা

নিউজটি শেয়ার করুন

হুমকিতে ১০ গ্রামের মানুষ

ব্রহ্মপুত্র নদে তীর রক্ষা বাঁধে ধস 

আপডেট সময় : ০৩:৫৬:৩৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

// ফয়সাল হক চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি //

ব্রহ্মপুত্রের পানির তোড়ে অবদা বাঁধ ও তীর রক্ষা প্রকল্পে দেখা দিয়েছে ধস। ধস দেখা দেয়ায় এলাকায় দেখা দিয়েছে আতঙ্ক। হুমকির মুখে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ১০টি গ্রামসহ হাজারো একর ফসলি জমি। বাঁধ ভেঙ্গে গেলে উপজেলা সদরসহ প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রাম প্লাবিত হতে পারে এই আতঙ্কে লক্ষাধিক মানুষ। বাঁধ ও ডানতীর রক্ষা প্রকল্প রক্ষায় চেষ্টা চালাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

জানাগেছে, পানি বৃদ্ধির কারনে ফুলে ফেঁপে উঠছে ব্রহ্মপুত্র। ব্রহ্মপুত্রের পানির তোড়ে কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার রানীগঞ্জ কাঁচকোল ¯øুইস গেট সংলগ্ন এলাকায় বৃহস্পতিবার অবদা বাঁধ ও ডানতীর রক্ষা প্রকল্পে দেখা দিয়েছে ধস। পানির তোড়ে ডেবে গেছে প্রায় ২০ মিটার পিচিং, ভেঙ্গে যাচ্ছে বাঁধ। ডান তীর রক্ষা প্রকল্পে ধস দেখা দেয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে হাজারো একর ফসলি জমিসহ রানীগঞ্জ ইউনিয়নের সড়কটারী, শিমুল তলা বাঁধ গ্রাম, পাঁচাগ্রাম, পূর্ব ভাটিয়াপাড়াসহ প্রায় ১০টি গ্রাম। শুধু তাই নয় বাঁধ ভেঙ্গে গেলে নিমিষেই তলিয়ে যাবে উপজেলা সদরসহ প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রাম।

রক্ষা প্রকল্পে ধস দেখা দেয়ায় ভাঙ্গন ও প্লাবিত হওয়ার আতঙ্কে লক্ষাধিক মানুষ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফলতির কারনে আজ এই ধস এবং আতঙ্ক অভিযোগ করে কাঁচকোল এলাকার মানুষজন জানান, ভাঙ্গন বা ধস দেখা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাজ শুরু করেন এবং জিও ব্যাগ ফেলানো শুরু করলেও কাজের ধিরগতি ও সঠিক পরিকল্পনার অভাবে বারবার ধস ও ভাঙ্গনের আতঙ্কে পড়ে এলাকাবাসী। তারা আরো বলেন, এই বাঁধ ভেঙ্গে গেলে শুধু রানীগঞ্জ নয় উপজেলা সদরও পড়বে হুমকির মুখে সেই সাথে চলমান বন্যায় নিমিষেই তলিয়ে যাবে প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামসহ উপজেলা সদর, পানিবন্দি হয়ে পড়বে লক্ষাধিক মানুষ। বাঁধ ভেঙ্গে গেলে হুমকির মুখে পড়বে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ১০টি গ্রাম নিঃস্ব হবে হাজারো পরিবার স্বীকার করে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, বাঁেধর পূর্ব দিকে চর পড়ায় পানির প্রবল ¯্রােতে এই ধস দেখা দিয়েছে, তিনি আরো বলেন বাঁধসহ ডানতীর রক্ষা প্রকল্প রক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ড চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ধস এলাকায় জিও ব্যাগ ডাম্পিং কাজ চলছে, আশা করি আর সমস্যা হবে না।

বা/খ/রা