ঢাকা ১২:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বেলকুচিতে নিখোঁজের ৫ দিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১০:৫৪:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪
  • / ৫৪২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে নিখোঁজের ৫ দিন পর বাড়ির পাশের ডোবা থেকে মাহি খাতুন (৬) নামের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মাহি খাতুন উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া ইউনিয়নের ধুকুরিয়াবেড়া উত্তর পাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে
শনিবার (২ মার্চ) দুপুরে উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া উত্তর পাড়া নিজ বাড়ীর পরিত্যক্ত ডোবায় শিশু মাহি খাতুনের মরদেহ স্থানীয়রা দেখতে পায়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় লাশ উদ্ধার করে।
গত-২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে শিশুটি নিখোঁজ ছিল। শিশুর অভিভাবকরা অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে বেলকুচি থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন। শিশুটি আংশিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এবং তার সন্ধানের জন্য পোস্টার ছাপিয়ে সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়েও দেয়া হয়।
স্থানীয়দের ধারণা, বাড়ির টিউবওয়েলের পানি গড়ানো পরিত্যক্ত যায়গা দিয়ে হাটতে উচো যায়গা থেকে পা পিছলে ডোবায় পরে গিয়ে এমন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। যে সময় শিশুটি পরে গেছে হয়তো আশেপাশে কেউ ছিলনা। তাই শিশুটির এমন মৃত্যু হয়েছে।
এ ব্যাপারে বেলকুচি থানার উপ-পরিদর্শক রিয়াদুল ইসলাম বলেন, শিশুটি পাঁচ দিন ধরে নিখোঁজ ছিল। মেয়ের পরিবার অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে এই মর্মে একটি সাধারণ ডায়রি করেন। আজ শিশুটিকে নিজ বাড়ীর পরিত্যক্ত ডোবায় ভেসে উঠলে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পরে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আলামত দেখে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পানিতে ডুবে শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

বেলকুচিতে নিখোঁজের ৫ দিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ১০:৫৪:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪
সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে নিখোঁজের ৫ দিন পর বাড়ির পাশের ডোবা থেকে মাহি খাতুন (৬) নামের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মাহি খাতুন উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া ইউনিয়নের ধুকুরিয়াবেড়া উত্তর পাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে
শনিবার (২ মার্চ) দুপুরে উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া উত্তর পাড়া নিজ বাড়ীর পরিত্যক্ত ডোবায় শিশু মাহি খাতুনের মরদেহ স্থানীয়রা দেখতে পায়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় লাশ উদ্ধার করে।
গত-২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে শিশুটি নিখোঁজ ছিল। শিশুর অভিভাবকরা অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে বেলকুচি থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন। শিশুটি আংশিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এবং তার সন্ধানের জন্য পোস্টার ছাপিয়ে সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়েও দেয়া হয়।
স্থানীয়দের ধারণা, বাড়ির টিউবওয়েলের পানি গড়ানো পরিত্যক্ত যায়গা দিয়ে হাটতে উচো যায়গা থেকে পা পিছলে ডোবায় পরে গিয়ে এমন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। যে সময় শিশুটি পরে গেছে হয়তো আশেপাশে কেউ ছিলনা। তাই শিশুটির এমন মৃত্যু হয়েছে।
এ ব্যাপারে বেলকুচি থানার উপ-পরিদর্শক রিয়াদুল ইসলাম বলেন, শিশুটি পাঁচ দিন ধরে নিখোঁজ ছিল। মেয়ের পরিবার অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে এই মর্মে একটি সাধারণ ডায়রি করেন। আজ শিশুটিকে নিজ বাড়ীর পরিত্যক্ত ডোবায় ভেসে উঠলে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পরে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আলামত দেখে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পানিতে ডুবে শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।