ঢাকা ০১:৫২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বিশ্বকাপ থেকে দুবারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিদায়

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৪৫:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৪৬ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোর্টস ডেস্ক : 
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড থেকেই ছিটকে গেল দুই বারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জিতলে সুপার টুয়েলভ, হারলে বিদায়- এমন সমীকরণে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ক্যারিবীয়দের ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিল আয়ারল্যান্ড।

 

হোবার্টে আজ শুক্রবার (২১ অক্টোবর) প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪৬ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ১ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় আয়ারল্যান্ড। ১৭.৩ ওভারে তাদের সংগ্রহ ১৫০ রান।

ব্যাট হাতে আইরিশদের ম্যাচ জয়ের নায়ক পল স্টার্লিং। ৪৮ বল মোকাবিলায় ৬ চার ও ২ ছক্কার মারে ৬৬ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি। ৩৫ বল মোকাবিলায় সমান দুই চার ও ছয়ের মারে ৪৫ রানে অপরাজিত ছিলেন লর্কান টাকার। ক্যারিবীয়দের পক্ষে ৩৮ রান খরচায় একমাত্র উইকটটি তুলে নেন অকিল হোসেন।

বাঁচামরার লড়াইয়ে রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই ক্যারিবীয় বোলারদের ওপর চড়াও হতে থাকেন দুই আইরিশ ওপেনার পল স্টার্লিং ও অ্যান্ডি বালবির্নি। মাত্র ৭.৩ ওভারে দুজনের ওপেনিং জুটিতে আসে ৭৩ রান। জয়ের পথে দলকে একধাপ এগিয়ে দিয়ে অকিল হোসেনের বলে মায়ার্সকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন বালবির্নি। ২৩ বল মোকাবিলায় সমান ৩ চার ও ছয়ের মারে ৩৭ রান করেন তিনি।

অপরপ্রান্তে দাঁড়িয়ে ক্যারিয়ারের ২১তম ফিফটি হাঁকিয়ে নেন স্টার্লিং। দ্বিতীয় উইকেটে তাকে সঙ্গ দিয়ে দলকে নিশ্চিত জয়ের পথে পৌঁছে দেন লর্কান টাকার। দলকে ৯ উইকেটের বড় জয় উপহার দিয়ে থামে টাকার ও স্টার্লিংয়ের ৭৭ রানের জুটি।

এর আগে গ্রুপপর্বের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আইরিশ বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং, আর দারুণ ফিল্ডিংয়ে শুরু থেকেই চাপে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই কাইল মায়ার্সকে হারায় ক্যারিবীয়রা। এরপর ভয়ংকর হয়ে উঠতে থাকা জনসন চার্লসকে ফেরান সিমি সিং। প্যাভিলিয়নের পথ ধরার আগে চার্লস করেন ১৮ বলে ২৪ রান।

এরপর ইভিন লুইস এবং নিকোলাস পুরান বেশিক্ষণ ক্রিজে টিকতে পারেননি। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান ব্র্যান্ডন কিং। ৪৮ বলে এক ছয় এবং ৬ চারের মারে ৬২ রানে অপরাজিত ছিলেন কিং। তার ইনিংসের ওপর ভর করেই ১৪৬ রানের পুঁজি পায় দুইবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ীরা।

আইরিশরা এদিন দারুণ বোলিং করেছেন। ৪ ওভারে মাত্র চার ইকোনমিতে ১৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট পান গ্যারেথ ডেলানি। এ ছাড়াও অন্যান্য বোলাররাও নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছেন। সিমি সিং এবং ম্যাকার্থি নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

বিশ্বকাপের সাতটি আসর পেরিয়ে অষ্টম আসরে প্রথমবার রাউন্ড-১ থেকে বিদায় নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে গ্রুপ ‘বি’তে সবচেয়ে শক্তিশালী দল ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৪২ রানের হেরে মূলপর্বে খেলা অনিশ্চিত হয়ে যায় তাদের। এরপর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩২ রানে জয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখলেও, আইরিশদের বিপক্ষে হেরে আসর থেকে ছিটকে যায় তারা।

অন্যদিকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারলেও স্কটল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করে আইরিশরা। দুর্দান্ত জয়ে ২০০৯ সালের পর আবার মূল পর্বে পা রাখল আয়ারল্যান্ড।

নিউজটি শেয়ার করুন

বিশ্বকাপ থেকে দুবারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিদায়

আপডেট সময় : ০১:৪৫:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ অক্টোবর ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক : 
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড থেকেই ছিটকে গেল দুই বারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জিতলে সুপার টুয়েলভ, হারলে বিদায়- এমন সমীকরণে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ক্যারিবীয়দের ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিল আয়ারল্যান্ড।

 

হোবার্টে আজ শুক্রবার (২১ অক্টোবর) প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪৬ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ১ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় আয়ারল্যান্ড। ১৭.৩ ওভারে তাদের সংগ্রহ ১৫০ রান।

ব্যাট হাতে আইরিশদের ম্যাচ জয়ের নায়ক পল স্টার্লিং। ৪৮ বল মোকাবিলায় ৬ চার ও ২ ছক্কার মারে ৬৬ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি। ৩৫ বল মোকাবিলায় সমান দুই চার ও ছয়ের মারে ৪৫ রানে অপরাজিত ছিলেন লর্কান টাকার। ক্যারিবীয়দের পক্ষে ৩৮ রান খরচায় একমাত্র উইকটটি তুলে নেন অকিল হোসেন।

বাঁচামরার লড়াইয়ে রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই ক্যারিবীয় বোলারদের ওপর চড়াও হতে থাকেন দুই আইরিশ ওপেনার পল স্টার্লিং ও অ্যান্ডি বালবির্নি। মাত্র ৭.৩ ওভারে দুজনের ওপেনিং জুটিতে আসে ৭৩ রান। জয়ের পথে দলকে একধাপ এগিয়ে দিয়ে অকিল হোসেনের বলে মায়ার্সকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন বালবির্নি। ২৩ বল মোকাবিলায় সমান ৩ চার ও ছয়ের মারে ৩৭ রান করেন তিনি।

অপরপ্রান্তে দাঁড়িয়ে ক্যারিয়ারের ২১তম ফিফটি হাঁকিয়ে নেন স্টার্লিং। দ্বিতীয় উইকেটে তাকে সঙ্গ দিয়ে দলকে নিশ্চিত জয়ের পথে পৌঁছে দেন লর্কান টাকার। দলকে ৯ উইকেটের বড় জয় উপহার দিয়ে থামে টাকার ও স্টার্লিংয়ের ৭৭ রানের জুটি।

এর আগে গ্রুপপর্বের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আইরিশ বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং, আর দারুণ ফিল্ডিংয়ে শুরু থেকেই চাপে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই কাইল মায়ার্সকে হারায় ক্যারিবীয়রা। এরপর ভয়ংকর হয়ে উঠতে থাকা জনসন চার্লসকে ফেরান সিমি সিং। প্যাভিলিয়নের পথ ধরার আগে চার্লস করেন ১৮ বলে ২৪ রান।

এরপর ইভিন লুইস এবং নিকোলাস পুরান বেশিক্ষণ ক্রিজে টিকতে পারেননি। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান ব্র্যান্ডন কিং। ৪৮ বলে এক ছয় এবং ৬ চারের মারে ৬২ রানে অপরাজিত ছিলেন কিং। তার ইনিংসের ওপর ভর করেই ১৪৬ রানের পুঁজি পায় দুইবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ীরা।

আইরিশরা এদিন দারুণ বোলিং করেছেন। ৪ ওভারে মাত্র চার ইকোনমিতে ১৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট পান গ্যারেথ ডেলানি। এ ছাড়াও অন্যান্য বোলাররাও নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছেন। সিমি সিং এবং ম্যাকার্থি নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

বিশ্বকাপের সাতটি আসর পেরিয়ে অষ্টম আসরে প্রথমবার রাউন্ড-১ থেকে বিদায় নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে গ্রুপ ‘বি’তে সবচেয়ে শক্তিশালী দল ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৪২ রানের হেরে মূলপর্বে খেলা অনিশ্চিত হয়ে যায় তাদের। এরপর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩২ রানে জয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখলেও, আইরিশদের বিপক্ষে হেরে আসর থেকে ছিটকে যায় তারা।

অন্যদিকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারলেও স্কটল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করে আইরিশরা। দুর্দান্ত জয়ে ২০০৯ সালের পর আবার মূল পর্বে পা রাখল আয়ারল্যান্ড।