ঢাকা ১২:২৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বিএনপিকে মোকাবিলা করতে যুবলীগই যথেষ্ট : শেখ পরশ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২৬:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৬০ বার পড়া হয়েছে

যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি জামায়াত গোটা বাংলাদেশে যে নৈরাজ্য ও সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে তার জবাব দেওয়ার সক্ষমতা যে যুবলীগ রাখে সেই প্রমাণ এ মহাসমাবেশের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হবে ইনশাআল্লাহ। রাজপথে বিএনপিকে মোকাবিলা করতে যুবলীগই যথেষ্ট বলে জানান যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

১১ নভেম্বরের মহাসমাবেশ সফল করতে চ্যালেঞ্জ নিতে হবে উল্লেখ করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা যুবলীগকে এ মহাসমাবেশের আয়োজন করতে বলেছেন। কেনো বলেছেন এবং কি উদ্দেশ্যে বলেছেন নিশ্চয়ই আপনারা অনুধাবন করতে পারবেন। কারণ স্বাধীনতা বিরোধীরা যেভাবে মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে তাতে রাজনৈতিক শক্তি এবং সামর্থ্য প্রদর্শন করা এখন অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধীদের মোকাবিলা করার জন্য যুবলীগ একাই একশ’। এছাড়া সারাদেশে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যারা লালন এবং ধারণ করেন তাদের এ সমাবেশ উৎসাহিত করবে এবং অনুপ্রেরণা যোগাবে। সুতরাং এ সময় আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকা অপরিহার্য এবং অনস্বীকার্য।

তিনি বলেন, ১১ নভেম্বর আপনাদের প্রিয় সংগঠন আওয়ামী যুবলীগের ৫০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সুবর্ণজয়ন্তী। স্বাধীনতার শত্রুরা যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও আপনাদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ মণিকে ১৫ আগস্ট হত্যা করেছিল, তারা কিন্তু ভিন্নভাবে পরিকল্পনা ও নীল নকশা সাজিয়েছিল। তারা মনে করছিল যে, শেখ মণিসহ বঙ্গবন্ধু পরিবারের ১৮ জন সদস্যদেরকে হত্যার পর এ বাংলাদেশে আমরা আর উঠে দাঁড়াতে পারব না এবং এই বাংলার মাটিতে আওয়ামী লীগ বা যুবলীগ বলে কিছু থাকবে না।

কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছে। এ সংগঠনে আপনাদের মতো লক্ষ্য লক্ষ্য নিবেদিত নেতাকর্মীর আত্মত্যাগ, পরিশ্রম ও সমর্থনের কারণে খুনি ও স্বাধীনতা বিরোধীরা সফল হতে পারে নাই। যুবলীগের সুবর্ণজয়ন্তীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উৎসব যুবলীগের অগণিত নেতাকর্মীদের উৎসব।

সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, যুবলীগের নেতা কর্মীরা এ সংগঠনকে ভালোবাসে বলেই শেখ হাসিনার ডাকে রাজপথে নেমে আসে।

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুলের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন- প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন) এমপি, যুগ্ম সম্পাদক বাবু সুব্রত পাল, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাভেল, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব মুস্তাফিজ।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

বিএনপিকে মোকাবিলা করতে যুবলীগই যথেষ্ট : শেখ পরশ

আপডেট সময় : ১১:২৬:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি জামায়াত গোটা বাংলাদেশে যে নৈরাজ্য ও সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে তার জবাব দেওয়ার সক্ষমতা যে যুবলীগ রাখে সেই প্রমাণ এ মহাসমাবেশের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হবে ইনশাআল্লাহ। রাজপথে বিএনপিকে মোকাবিলা করতে যুবলীগই যথেষ্ট বলে জানান যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

১১ নভেম্বরের মহাসমাবেশ সফল করতে চ্যালেঞ্জ নিতে হবে উল্লেখ করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা যুবলীগকে এ মহাসমাবেশের আয়োজন করতে বলেছেন। কেনো বলেছেন এবং কি উদ্দেশ্যে বলেছেন নিশ্চয়ই আপনারা অনুধাবন করতে পারবেন। কারণ স্বাধীনতা বিরোধীরা যেভাবে মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে তাতে রাজনৈতিক শক্তি এবং সামর্থ্য প্রদর্শন করা এখন অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধীদের মোকাবিলা করার জন্য যুবলীগ একাই একশ’। এছাড়া সারাদেশে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যারা লালন এবং ধারণ করেন তাদের এ সমাবেশ উৎসাহিত করবে এবং অনুপ্রেরণা যোগাবে। সুতরাং এ সময় আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকা অপরিহার্য এবং অনস্বীকার্য।

তিনি বলেন, ১১ নভেম্বর আপনাদের প্রিয় সংগঠন আওয়ামী যুবলীগের ৫০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সুবর্ণজয়ন্তী। স্বাধীনতার শত্রুরা যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও আপনাদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ মণিকে ১৫ আগস্ট হত্যা করেছিল, তারা কিন্তু ভিন্নভাবে পরিকল্পনা ও নীল নকশা সাজিয়েছিল। তারা মনে করছিল যে, শেখ মণিসহ বঙ্গবন্ধু পরিবারের ১৮ জন সদস্যদেরকে হত্যার পর এ বাংলাদেশে আমরা আর উঠে দাঁড়াতে পারব না এবং এই বাংলার মাটিতে আওয়ামী লীগ বা যুবলীগ বলে কিছু থাকবে না।

কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছে। এ সংগঠনে আপনাদের মতো লক্ষ্য লক্ষ্য নিবেদিত নেতাকর্মীর আত্মত্যাগ, পরিশ্রম ও সমর্থনের কারণে খুনি ও স্বাধীনতা বিরোধীরা সফল হতে পারে নাই। যুবলীগের সুবর্ণজয়ন্তীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উৎসব যুবলীগের অগণিত নেতাকর্মীদের উৎসব।

সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, যুবলীগের নেতা কর্মীরা এ সংগঠনকে ভালোবাসে বলেই শেখ হাসিনার ডাকে রাজপথে নেমে আসে।

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুলের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন- প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন) এমপি, যুগ্ম সম্পাদক বাবু সুব্রত পাল, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাভেল, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব মুস্তাফিজ।