ঢাকা ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বাণিজ্যমন্ত্রীকে জার্সি-তেল-আচার উপহার দিলেন ক্যাফিয়েরো

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫২:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • / ৪৪১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিকে উপহার হিসেবে জার্সি, অলিভ অয়েল ও আচার দিয়েছেন ঢাকা সফররত আর্জেন্টিনার ফরেন অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড মিনিস্টার সানটিয়াগো কেফিয়ারো। এর আগে আর্জেন্টিনার মন্ত্রীকে তৈলচিত্র, চামড়ার ব্যাগ ও পাটজাত পণ্য উপহার দেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ অনুষ্ঠানে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও আর্জেন্টিনার মধ্যে এমওইউ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এসব উপহার বিনিময় হয়।

বাংলাদেশের পক্ষে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও আর্জেন্টিনার পক্ষে ঢাকায় সফররত দেশটির আর্জেন্টিনার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সান্তিয়াগো আন্দ্রেস ক্যাফিয়েরো এমওইউ-তে স্বাক্ষর করেন।

এমওইউ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ বর্তমান সরকারের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন। এ অর্জন বিশ্বে বাংলাদেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি স্থাপন, বিনিয়োগ ও বাণিজ্যে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টির পাশাপাশি বেশ কিছু চ্যালেঞ্জও তৈরি করবে। যার ফলে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশের বিদ্যমান বাণিজ্য সুবিধা সংকুচিত হবে।

আরও জানানো হয়, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের এই সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে বাংলাদেশের রপ্তানি বাজার সংরক্ষণ, সম্প্রসারণ, বিভিন্ন দেশে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার সুবিধা নিশ্চিত করা ও বাণিজ্য বাড়াতে মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যেই বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দেশ ও ট্রেড ব্লকের সঙ্গে আঞ্চলিক বাণিজ্য চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের উদ্যোগ নিয়েছে।

এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সম্ভাবনাময় দক্ষিণ আমেরিকান দেশগুলো সফর করেছেন। এ অঞ্চলের বাণিজ্য জোট মার্কোসুরের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরের লক্ষ্যে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে খাদ্য নিরাপত্তা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আর্জেন্টিনা বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক অংশীদার। এটি বিশ্বের প্রধান খাদ্য উৎপাদনকারী দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। আর্জেন্টিনা বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণের জন্য একটি বাণিজ্য সম্ভাবনাময় এলাকা।

পণ্য ছাড়াও সেবা ও বিনিয়োগ খাতে আর্জেন্টিনার সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়নের সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আর্জেন্টিনার সঙ্গে বন্ধুত্ব ও সহযোগিতার বন্ধন আরও জোরদার এবং বাণিজ্য সম্পর্ক গভীর করার উদ্দেশ্যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশ ও আর্জেন্টিনার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদার, উভয় দেশের জনগণের কল্যাণ ও অর্থনীতির অগ্রগতির লক্ষ্যে দুই দেশের মধ্যে এমওইউ স্বাক্ষরের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের ফলে উভয় দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ অন্যান্য দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য বিনিময়ের উন্নয়ন ও বর্ধিত করার সুযোগ সৃষ্টি হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী বলেন, দক্ষিণ আমেরিকার বাণিজ্যজোট মারকোসুরের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্যচুক্তির প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ। দেশটিতে বাংলাদেশের রফতানি বাড়ানোর সুযোগ আছে। এটা কাজে লাগাতে চায় সরকার।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ গার্মেন্ট পণ্য রফতানি করবে আর্জেন্টিনায়। দেশটির জনসংখ্যা ২৭ কোটি। সেই বাজারটাকে ধরতে চায় সরকার। আর আর্জেন্টিনা থেকে গম, চিনি, সানফ্লাওয়ার আর সয়াবিন তেল আমদানি করবে বাংলাদেশ।

টিপু মুনশি বলেন, ফুটবল নিয়ে দু-জাতির আগ্রহ অপরিসীম। এই আগ্রহই সম্পর্কের সবচেয়ে বড় মাধ্যম।

আর্জেন্টিনার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাণিজ্যে ক্ষেত্রে দুই দেশ অনেকগুলো চুক্তি করেছে যা দুই দেশের সম্পর্ককে আরও মজবুত করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

বাণিজ্যমন্ত্রীকে জার্সি-তেল-আচার উপহার দিলেন ক্যাফিয়েরো

আপডেট সময় : ০৪:৫২:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিকে উপহার হিসেবে জার্সি, অলিভ অয়েল ও আচার দিয়েছেন ঢাকা সফররত আর্জেন্টিনার ফরেন অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড মিনিস্টার সানটিয়াগো কেফিয়ারো। এর আগে আর্জেন্টিনার মন্ত্রীকে তৈলচিত্র, চামড়ার ব্যাগ ও পাটজাত পণ্য উপহার দেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ অনুষ্ঠানে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও আর্জেন্টিনার মধ্যে এমওইউ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এসব উপহার বিনিময় হয়।

বাংলাদেশের পক্ষে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও আর্জেন্টিনার পক্ষে ঢাকায় সফররত দেশটির আর্জেন্টিনার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সান্তিয়াগো আন্দ্রেস ক্যাফিয়েরো এমওইউ-তে স্বাক্ষর করেন।

এমওইউ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ বর্তমান সরকারের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন। এ অর্জন বিশ্বে বাংলাদেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি স্থাপন, বিনিয়োগ ও বাণিজ্যে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টির পাশাপাশি বেশ কিছু চ্যালেঞ্জও তৈরি করবে। যার ফলে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশের বিদ্যমান বাণিজ্য সুবিধা সংকুচিত হবে।

আরও জানানো হয়, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের এই সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে বাংলাদেশের রপ্তানি বাজার সংরক্ষণ, সম্প্রসারণ, বিভিন্ন দেশে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার সুবিধা নিশ্চিত করা ও বাণিজ্য বাড়াতে মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যেই বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দেশ ও ট্রেড ব্লকের সঙ্গে আঞ্চলিক বাণিজ্য চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের উদ্যোগ নিয়েছে।

এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সম্ভাবনাময় দক্ষিণ আমেরিকান দেশগুলো সফর করেছেন। এ অঞ্চলের বাণিজ্য জোট মার্কোসুরের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরের লক্ষ্যে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে খাদ্য নিরাপত্তা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আর্জেন্টিনা বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক অংশীদার। এটি বিশ্বের প্রধান খাদ্য উৎপাদনকারী দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। আর্জেন্টিনা বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণের জন্য একটি বাণিজ্য সম্ভাবনাময় এলাকা।

পণ্য ছাড়াও সেবা ও বিনিয়োগ খাতে আর্জেন্টিনার সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়নের সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আর্জেন্টিনার সঙ্গে বন্ধুত্ব ও সহযোগিতার বন্ধন আরও জোরদার এবং বাণিজ্য সম্পর্ক গভীর করার উদ্দেশ্যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশ ও আর্জেন্টিনার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদার, উভয় দেশের জনগণের কল্যাণ ও অর্থনীতির অগ্রগতির লক্ষ্যে দুই দেশের মধ্যে এমওইউ স্বাক্ষরের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের ফলে উভয় দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ অন্যান্য দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য বিনিময়ের উন্নয়ন ও বর্ধিত করার সুযোগ সৃষ্টি হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী বলেন, দক্ষিণ আমেরিকার বাণিজ্যজোট মারকোসুরের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্যচুক্তির প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ। দেশটিতে বাংলাদেশের রফতানি বাড়ানোর সুযোগ আছে। এটা কাজে লাগাতে চায় সরকার।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ গার্মেন্ট পণ্য রফতানি করবে আর্জেন্টিনায়। দেশটির জনসংখ্যা ২৭ কোটি। সেই বাজারটাকে ধরতে চায় সরকার। আর আর্জেন্টিনা থেকে গম, চিনি, সানফ্লাওয়ার আর সয়াবিন তেল আমদানি করবে বাংলাদেশ।

টিপু মুনশি বলেন, ফুটবল নিয়ে দু-জাতির আগ্রহ অপরিসীম। এই আগ্রহই সম্পর্কের সবচেয়ে বড় মাধ্যম।

আর্জেন্টিনার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাণিজ্যে ক্ষেত্রে দুই দেশ অনেকগুলো চুক্তি করেছে যা দুই দেশের সম্পর্ককে আরও মজবুত করবে।