ঢাকা ১০:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বাউফলে প্রতিবন্ধীকে মারধর ও বসতঘরে ভাংচুর

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৬:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪৬১ বার পড়া হয়েছে

smart

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে পটুয়াখালীর বাউফলে মো.রুবেল হোসেন(২৬) নামে এক বাক-প্রতিবন্ধীকে মারধর ও বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন অভিযোগ রুবেলের সৎ ভাই ও বোনের বিরুদ্ধে। গত রবিবার বিকেল ২ টার দিকে সূর্য্যমনি ইউনিয়নের গোয়ালিয়া বাঘা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রতিবন্ধী রুবেল ওই দিন বিকেলে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

জানা গেছে, রুবেল ও তার ছোট ভাই আনোয়ারকে রেখে মা মোসা. হনুফা বেগমের মৃত্যুর পরে রুবেলের ছোট খালা মো. শেফালী বেগমকে বিয়ে করেন রুবেলের বাবা আলী আকাবর রাড়ী। সেই ঘরে সালাউদ্দিন, সাদ্দাম ও ইমন হোসেন পাভেল নামে তিন ছেলে ও রিপা নামে এক মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়। এরপরে বাবা আলী আকাবরের মৃত্যুর পরে প্রতিবন্ধী রুবেলকে দেখাশুনা করতেন নানা ইউনূছ মোল্লা।

তিনি প্রতিবন্ধী নাতি রুবেলের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা ৬ শতাংশ জমি লিখে দেয় রুবেলকে।এতে ক্ষুদ্ধ হয় রুবেল সৎভাই মো. ইমন হোসেন পাভেল(২৬) ও বোন সাবরিনা আক্তার রিপা এবং মা শেফালী বেগম।(৪৫)। রবিবার দুপুরে লিখে দেয়া ওই জমিকে কেন্দ্র করে রুবেলের স্ত্রীর সঙ্গে বাকবিতান্ডা হয় রুবেলের সৎ মা ও ভাই-বোনের সঙ্গে। এ সময় রুবেল এগিয়ে এলে সৎ ভাই পাভেল ও বোন রিপা রুবেলকে মারধর করে এবং বসতঘরে হামলা চালিয়ে ঘরের আসবাবপত্র ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ভাংচুর করে। পরে স্থানীয়রা রুবেলকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়।

এ ব্যাপারে রুবেলের সৎভাই ইমন হোসেন পাভেল বলেন, ঘটনা সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই। ওই সময় আমি বাড়ী ছিলাম না।

বাউফল থানার উপ-পরিদর্শক মো. মাসুদ হোসেন বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে আজ সোমবার দুপুরে আমি ঘটনাস্থনে গিয়েছিলাম। উভয় পক্ষকে নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য রিয়াজ হোসেন বিষয়টি মিমাংশা করে দিবেন বলে কথা হয়েছে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

বাউফলে প্রতিবন্ধীকে মারধর ও বসতঘরে ভাংচুর

আপডেট সময় : ০৬:৫৬:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে পটুয়াখালীর বাউফলে মো.রুবেল হোসেন(২৬) নামে এক বাক-প্রতিবন্ধীকে মারধর ও বসত ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন অভিযোগ রুবেলের সৎ ভাই ও বোনের বিরুদ্ধে। গত রবিবার বিকেল ২ টার দিকে সূর্য্যমনি ইউনিয়নের গোয়ালিয়া বাঘা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রতিবন্ধী রুবেল ওই দিন বিকেলে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

জানা গেছে, রুবেল ও তার ছোট ভাই আনোয়ারকে রেখে মা মোসা. হনুফা বেগমের মৃত্যুর পরে রুবেলের ছোট খালা মো. শেফালী বেগমকে বিয়ে করেন রুবেলের বাবা আলী আকাবর রাড়ী। সেই ঘরে সালাউদ্দিন, সাদ্দাম ও ইমন হোসেন পাভেল নামে তিন ছেলে ও রিপা নামে এক মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়। এরপরে বাবা আলী আকাবরের মৃত্যুর পরে প্রতিবন্ধী রুবেলকে দেখাশুনা করতেন নানা ইউনূছ মোল্লা।

তিনি প্রতিবন্ধী নাতি রুবেলের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা ৬ শতাংশ জমি লিখে দেয় রুবেলকে।এতে ক্ষুদ্ধ হয় রুবেল সৎভাই মো. ইমন হোসেন পাভেল(২৬) ও বোন সাবরিনা আক্তার রিপা এবং মা শেফালী বেগম।(৪৫)। রবিবার দুপুরে লিখে দেয়া ওই জমিকে কেন্দ্র করে রুবেলের স্ত্রীর সঙ্গে বাকবিতান্ডা হয় রুবেলের সৎ মা ও ভাই-বোনের সঙ্গে। এ সময় রুবেল এগিয়ে এলে সৎ ভাই পাভেল ও বোন রিপা রুবেলকে মারধর করে এবং বসতঘরে হামলা চালিয়ে ঘরের আসবাবপত্র ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ভাংচুর করে। পরে স্থানীয়রা রুবেলকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়।

এ ব্যাপারে রুবেলের সৎভাই ইমন হোসেন পাভেল বলেন, ঘটনা সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই। ওই সময় আমি বাড়ী ছিলাম না।

বাউফল থানার উপ-পরিদর্শক মো. মাসুদ হোসেন বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে আজ সোমবার দুপুরে আমি ঘটনাস্থনে গিয়েছিলাম। উভয় পক্ষকে নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য রিয়াজ হোসেন বিষয়টি মিমাংশা করে দিবেন বলে কথা হয়েছে।

 

বাখ//আর