ঢাকা ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে দিনব্যাপী সাংগঠনিক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

মোঃ খাদেমুল ইসলাম, দিনাজপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:১৩:০৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪
  • / ৪২৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার গোলাপবাগ পাড়া কমিটির উদ্যোগে দিনব্যাপী সাংগঠনিক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার (৬ জুলাই-২০২৪) বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে গোলাপবাগ পাড়া কমিটিতে বেলা ১১ টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দিনব্যাপী সাংগঠনিক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। প্রশিক্ষণে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার গোলাপবাগ পাড়া কমিটির সভাপতি গোলেনুর বেগম। প্রশিক্ষণের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবিনা আকতার।

তিনি বলেন, সংগঠন পরিচালিত হয় সংগঠকদের স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে। এখানে সবাই সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আসেন, নারীকে সমাজের পশ্চাৎপদ অবস্থান থেকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য কাজ করেন। নারী ও কন্যাদের সম্মান ও যোগ্য মর্যাদা দিয়ে দেশ ও জাতির উন্নয়নে সমতা ও সম অধিকারের ভিত্তিতে কাজ করতে হবে। আর তাই নিজেদের সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে ও নারী আন্দোলনের সাথে যুক্ত হয়ে নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসতে হবে।

প্রশিক্ষণ কর্মশালা দুটি কর্ম অধিবেশনে ভাগ করা হয়। প্রথম কর্ম অধিবেশন ‘জলবায়ু পরিবর্তন ও নারী’ এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন মহিলা পরিষদ জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিয়া সুলতানা পলি। তিনি বলেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ একটি গণতান্ত্রিক সংগঠন। সংগঠনের সকল কার্যক্রম পরিচালিত হয় সবার সমন্বিত মতামত ও সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে। সবাইকে এক সাথে দলীয় সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে কাজ করার প্রবনতা থাকতে হবে। প্রত্যেক সদস্যকে মূল্যবান সময়ের সঠিক ব্যবহার করে নারীর মানবাধিকার অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করে যেতে হবে।

‘গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রের আলোকে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ’ এ বিষয়ে প্রশিক্ষন প্রদান করেন সংগঠনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবিনা আকতার। তিনি বলেন, গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রের আলোকে সংগঠন পরিচালিত হয়। মহিলা পরিষদের ১০টি মূল নীতি রয়েছে। এই নীতির আলোকে বিভিন্ন সময়ের প্রেক্ষাপটে নানান বিষয়ে কর্মসূচী গ্রহণ করেছে এবং তার বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে মহিলা পরিষদ।

দ্বিতীয় কর্ম অধিবেশনে ‘সেক্স ও জেন্ডার’-এ বিষয়ে প্রশিক্ষক ছিলেন সংগঠনের জেলা শাখার সহ-সভাপতি রওশন আরা। তিনি রাজা রামমোহন রায়ের সতীদাহ প্রথা নিষিদ্ধের কথা বলেন। নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার অসামান্য অবদান ও জীবন সংগ্রামের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে প্রীতিলতা ও ওয়াদেদ্দার, তেভাগার ইলা মিত্র, মাহাত্মা গান্ধীর সহযোদ্ধা হিসেবে সরোজিনী নাইড়–র মত নারীর সংগ্রামের কথা উল্লেখ করেন।

দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষণার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহন করেন। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি মাহাবুবা খাতুন ও গোলাপবাগ পাড়া কমিটির সদস্যবৃন্দ।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে দিনব্যাপী সাংগঠনিক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় : ১২:১৩:০৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার গোলাপবাগ পাড়া কমিটির উদ্যোগে দিনব্যাপী সাংগঠনিক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার (৬ জুলাই-২০২৪) বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে গোলাপবাগ পাড়া কমিটিতে বেলা ১১ টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দিনব্যাপী সাংগঠনিক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। প্রশিক্ষণে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার গোলাপবাগ পাড়া কমিটির সভাপতি গোলেনুর বেগম। প্রশিক্ষণের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবিনা আকতার।

তিনি বলেন, সংগঠন পরিচালিত হয় সংগঠকদের স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে। এখানে সবাই সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আসেন, নারীকে সমাজের পশ্চাৎপদ অবস্থান থেকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য কাজ করেন। নারী ও কন্যাদের সম্মান ও যোগ্য মর্যাদা দিয়ে দেশ ও জাতির উন্নয়নে সমতা ও সম অধিকারের ভিত্তিতে কাজ করতে হবে। আর তাই নিজেদের সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে ও নারী আন্দোলনের সাথে যুক্ত হয়ে নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসতে হবে।

প্রশিক্ষণ কর্মশালা দুটি কর্ম অধিবেশনে ভাগ করা হয়। প্রথম কর্ম অধিবেশন ‘জলবায়ু পরিবর্তন ও নারী’ এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন মহিলা পরিষদ জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিয়া সুলতানা পলি। তিনি বলেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ একটি গণতান্ত্রিক সংগঠন। সংগঠনের সকল কার্যক্রম পরিচালিত হয় সবার সমন্বিত মতামত ও সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে। সবাইকে এক সাথে দলীয় সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে কাজ করার প্রবনতা থাকতে হবে। প্রত্যেক সদস্যকে মূল্যবান সময়ের সঠিক ব্যবহার করে নারীর মানবাধিকার অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করে যেতে হবে।

‘গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রের আলোকে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ’ এ বিষয়ে প্রশিক্ষন প্রদান করেন সংগঠনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবিনা আকতার। তিনি বলেন, গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রের আলোকে সংগঠন পরিচালিত হয়। মহিলা পরিষদের ১০টি মূল নীতি রয়েছে। এই নীতির আলোকে বিভিন্ন সময়ের প্রেক্ষাপটে নানান বিষয়ে কর্মসূচী গ্রহণ করেছে এবং তার বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে মহিলা পরিষদ।

দ্বিতীয় কর্ম অধিবেশনে ‘সেক্স ও জেন্ডার’-এ বিষয়ে প্রশিক্ষক ছিলেন সংগঠনের জেলা শাখার সহ-সভাপতি রওশন আরা। তিনি রাজা রামমোহন রায়ের সতীদাহ প্রথা নিষিদ্ধের কথা বলেন। নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার অসামান্য অবদান ও জীবন সংগ্রামের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে প্রীতিলতা ও ওয়াদেদ্দার, তেভাগার ইলা মিত্র, মাহাত্মা গান্ধীর সহযোদ্ধা হিসেবে সরোজিনী নাইড়–র মত নারীর সংগ্রামের কথা উল্লেখ করেন।

দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষণার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহন করেন। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি মাহাবুবা খাতুন ও গোলাপবাগ পাড়া কমিটির সদস্যবৃন্দ।

 

বাখ//আর