শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:০৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পাবনায় আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল কলাপাড়ায় নারী কৃষকদের মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলন আজ না হয় কাল, খবরটা জানাজানি হবেই : সিদ্ধার্থ ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা সমর্থকদের ঝগড়ায় সংঘর্ষে নিহত ১ চরাঞ্চলে ভূট্টা চাষে কৃষকের আগ্রহ বেড়েছে  আমাদের হৃদয় আছে বলেই আমরা সেমিফাইনালে : মার্তিনেস নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করলে ইরান পরমাণু চুক্তি মেনে চলবে : তেহরান কটিয়াদীতে মুরগির বিষ্ঠা দিয়ে মাছ চাষ স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে দুপুরের পর জেলেরা গভীর সাগরে যেতে পারবে ইনজেকশন দিয়ে স্বাবলম্বী দেড় শতাধিক নারী বঙ্গবন্ধু তরুণ লেখক পরিষদের সম্মেলন ও গুণীজন সম্মাননা রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন গোলাপবাগে ইন্টারনেট নেই, মোবাইলে কলড্রপ খালেদা জিয়ার হাত কালো নয়, সাদা: আফরোজা আব্বাস পটুয়াখালীর “শ্রেষ্ঠ জয়িতা” কলাপাড়ার মিলি

বাংলাদেশ ব্যাংকের সোনা কিনতে পারবেন যারা

বাংলাদেশ ব্যাংকের সোনা কিনতে পারবেন যারা

নিজস্ব প্রতিবেদক : 
নিলামের মাধ্যমে ২৫ কেজি সোনা বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এসব সোনা কেনার নিলামে সাধারণ জনগণ চাইলেই অংশ নিতে পারবেন না। শুধু যাদের সনদ রয়েছে তারাই অংশ নেবেন।

জানা গেছে, অবৈধ কিংবা চোরাচালানের মাধ্যমে বিভিন্ন স্থান থেকে জব্দ করা সোনা বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে জমা থাকে। একই সময়ে এ নিয়ে চোরাকারবারি বা দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা হয়। মামলা নিষ্পত্তির পর রায় সরকারের পক্ষে গেলেই সেসব সোনা নিলামের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়।

এই নিলাম প্রক্রিয়ায় শুধু সনদধারী অলঙ্কার ব্যবসায়ীরাই অংশ নিতে পারবেন। আগ্রহী ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল কার্যালয় থেকে দরপত্র শিডিউল ক্রয়সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করতে হবে।

নিলামে আগ্রহীদের উদ্ধৃত মূল্যের আড়াই শতাংশ অর্থ বায়না জামানত হিসেবে জমা দিতে হবে। পরে সর্বোচ্চ দরদাতা প্রতিষ্ঠানকে সোনা ক্রয়ের কার্যাদেশ দেয়ার পাঁচদিনের মধ্যেই বাংলাদেশ ব্যাংকে সব অর্থ জমা দিতে হবে।

যাচাই-বাছাই করে নিলামে অংশ নেয়ার জন্য যোগ্যদের একটি তালিকা করবে ব্যাংক। যেসব সোনার বার, অলঙ্কার, টুকরা বা পাত বিক্রি করা হবে তা প্রদর্শনের ব্যবস্থাও থাকবে। কতটুকু খাঁটি তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে পারবে নিলামে অংশ নেয়ার জন্য যোগ্য প্রতিষ্ঠান। বিক্রির ক্ষেত্রে ক্রেতাকে বাজারমূল্য দিতে হয়। এর সঙ্গে পরিশোধ করতে হবে মূল্য সংযোজন করসহ (মূসক) অন্যান্য রাজস্ব।

একটা সময় স্থানীয় উদ্যোক্তাদের প্রধান উৎস ছিল বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের সোনা। তবে এই নিলাম প্রক্রিয়া এখন আর সহজে হয় না। বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে থাকা সোনা সবসময় বিক্রি করা হয় না। নিলাম হলে বা বিক্রি করা হলে ‘সনদধারী অলঙ্কার ব্যবসায়ীরাই’ কেবল কিনতে পারেন। এর আগে সর্বশেষ ২০০৮ সালে নিলামের (অকশন) মাধ্যমে ২০ কেজির বেশি সোনা বিক্রি করা হয়।

বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকের অস্থায়ী খাতে প্রায় ২ হাজার ৯০০ কেজি সোনা রয়েছে। আর স্থায়ী খাতে রয়েছে ১৫৯ কেজি। স্থায়ী খাতের এ সোনা থেকে ২৫ কেজি বা ২ হাজার ১৭০ ভরি বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *