ঢাকা ০৮:১৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ব্যবসায়িক পর্যায়ে ১৬টি সমঝোতা স্মারক সই

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০২:২৫:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
  • / ৪৩৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ১৬টি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। এরমধ্যে অন্যতম ১৮ মিলিয়ন ডলার এলএনজি খাতে বিনিয়োগে সমঝোতা স্মারক এবং নগদ ও হুয়াওয়ের মধ্যে ডিজিটাল ব্যাংক নিয়ে সমঝোতা স্মারক। আজ (মঙ্গলবার, ৯ জুলাই) সকালে চীনের বেইজিংয়ে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্মেলনে এই ১৬টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার বাণিজ্যিক কেন্দ্র হিসেবে বিগত দশক ধরেই বাংলাদেশ নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বিনিয়োগ সম্ভাবনা দেশ হিসেবে ব্র্যান্ডিংয়ে জোর দিচ্ছে সরকার।

এই ধারাবাহিকতায় চারদিনের চীন সফরের দ্বিতীয় দিনে বেইজিংয়ের ওয়ার্ল্ড চায়না সামিট উইংয়ে বাংলাদেশ ও চীনের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা সম্মেলনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্মেলনে চীন ও বাংলাদেশি ব্যবসায়ী নেতারা তাদের নানা সম্ভাবনা ও প্রতিবন্ধকতার কথা তুলে ধরেন তিনি।

এরপরই প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বাংলাদেশকে বিনিয়োগের সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে তুলে ধরেন। এসময় তিনি বলেন, ‘বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ করতে সরকার সম্ভাব্য সকল খাতে সংস্কার করে যাচ্ছে। আমাদের প্রধান লক্ষ্য স্মার্ট বাংলাদেশ গড়া, যেখানে চীনের সহযোগিতা জরুরি।’

বাংলাদেশের পুঁজিবাজারসহ আর্থিক খাতে চীনা বিনিয়োগকারীদের আহ্বান জানান সরকারপ্রধান। দু’দেশের ব্যবসায়ীদের অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ব্যবসায়িক উদ্যোগ নেয়ার তাগিদ দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শেষে তার উপস্থিতিতে ১৬টি সমঝোতা স্মারক সাক্ষর হয় বেসরকারি খাতে। এর মধ্যে জ্বালানি, প্রযুক্তি ও আর্থিকখাতে বেশ কয়েকটি সমঝোতাও ছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ব্যবসায়িক পর্যায়ে ১৬টি সমঝোতা স্মারক সই

আপডেট সময় : ০২:২৫:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ১৬টি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। এরমধ্যে অন্যতম ১৮ মিলিয়ন ডলার এলএনজি খাতে বিনিয়োগে সমঝোতা স্মারক এবং নগদ ও হুয়াওয়ের মধ্যে ডিজিটাল ব্যাংক নিয়ে সমঝোতা স্মারক। আজ (মঙ্গলবার, ৯ জুলাই) সকালে চীনের বেইজিংয়ে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্মেলনে এই ১৬টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার বাণিজ্যিক কেন্দ্র হিসেবে বিগত দশক ধরেই বাংলাদেশ নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বিনিয়োগ সম্ভাবনা দেশ হিসেবে ব্র্যান্ডিংয়ে জোর দিচ্ছে সরকার।

এই ধারাবাহিকতায় চারদিনের চীন সফরের দ্বিতীয় দিনে বেইজিংয়ের ওয়ার্ল্ড চায়না সামিট উইংয়ে বাংলাদেশ ও চীনের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা সম্মেলনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্মেলনে চীন ও বাংলাদেশি ব্যবসায়ী নেতারা তাদের নানা সম্ভাবনা ও প্রতিবন্ধকতার কথা তুলে ধরেন তিনি।

এরপরই প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বাংলাদেশকে বিনিয়োগের সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে তুলে ধরেন। এসময় তিনি বলেন, ‘বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ করতে সরকার সম্ভাব্য সকল খাতে সংস্কার করে যাচ্ছে। আমাদের প্রধান লক্ষ্য স্মার্ট বাংলাদেশ গড়া, যেখানে চীনের সহযোগিতা জরুরি।’

বাংলাদেশের পুঁজিবাজারসহ আর্থিক খাতে চীনা বিনিয়োগকারীদের আহ্বান জানান সরকারপ্রধান। দু’দেশের ব্যবসায়ীদের অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ব্যবসায়িক উদ্যোগ নেয়ার তাগিদ দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শেষে তার উপস্থিতিতে ১৬টি সমঝোতা স্মারক সাক্ষর হয় বেসরকারি খাতে। এর মধ্যে জ্বালানি, প্রযুক্তি ও আর্থিকখাতে বেশ কয়েকটি সমঝোতাও ছিল।