ঢাকা ০৩:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বলসোনারোকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন লুলা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৪৪:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩১ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৬৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ব্রাজিলের মানুষ ভালো থাকতে চায়, ভালো খেতে চায়, চাকরি করতে চায়। তারা সুযোগ পেতে চায় শিক্ষার। বন্দুকের পরিবর্তে চায় বই। আমরা শান্তি, গণতন্ত্র এবং মর্যাদা চাই। আমরা এখন এক মানুষ।

তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় কথাগুলো বলছিলেন লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা। কারণ তিনিই হতে যাচ্ছেন লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বড় দেশটির প্রেসিডেন্ট। বর্তমান প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারোকে হারিয়েছেন লুলা।

নির্বাচনে তাদের মধ্যে লড়াই হয়েছে হাড্ডাহাড্ডি। শেষ ধাপের ভোটগণনা শেষে লুলা দা সিলভা পেয়েছেন ৫০ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট। আর ৪৯ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন বলসোনারো।

রোববার (৩০ অক্টোবর) ব্রাজিলের সুপ্রিম কোর্ট লুলাকে দেশটির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। ৭৭ বছর বয়সী এ নেতার ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন অনুষ্ঠান হতে পারে আগামী ১ জানুয়ারি। লুলা দা সিলভা বামপন্থী রাজনীতিবদ আর বলসোনারো কট্টর ডানপন্থী।

এমন ফলাফলের পর উল্লসিত সমর্থকদের ৭৭ বছর বয়সী লুলা বলেন, প্রথমত, আমি এখানে আমার সঙ্গে থাকা সমস্ত কমরেডকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমাদের লড়াই রাজ্যের মেশিনের সঙ্গে ছিল, শুধু প্রার্থীর সঙ্গে নয়, যারা আমাদের এই নির্বাচনে জেতাতে আটকাতে চেয়েছিল। যারা ভোট দিতে গেছেন, আমি তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।

বলসোনারোকে হারানোর পর এ দিন লুলা আরো বলেন, আজ আমরা বিশ্বকে বলতে চাই ব্রাজিল আবার ফিরে এসেছে। ব্রাজিল জলবায়ু সংকটের বিরুদ্ধে , বিশেষ করে আমাজন বন রক্ষার লড়াইয়ে তার জায়গা ফিরে নিতে প্রস্তুত।

এই জয়ে বিশ্বনেতারা লুলাকে অভিনন্দন জানাতে শুরু করেছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন লুলাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু এবং বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন হয়েছে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ টুইটারে লুলালে অভিনন্দন জানান।

এর আগে, ২০০৩ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন লুলা। তার বিরুদ্ধে বেশ কিছু দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। তারপরও নির্বাচনে জিতে রাজনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ছিল সাবেক প্রেসিডেন্টের। এবারে তিনি তৃতীয় বারের মতো দেশটির প্রসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে, ২০১৯ সালে কিছু বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ও লাগামহীন কথাবার্তার জন্য সমালোচিত ছিলেন বলসোনারো। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, বিশ্বে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর তিনি ব্রাজিলকে রক্ষায় তেমন কোনো পদক্ষেপ নেননি। এছাড়া, তার বিরুদ্ধে মহামারির সময় অব্যবস্থাপনার অভিযোগও রয়েছে।

তবে আমাজন বন উজাড় করার কথা বলে সবচেয়ে বেশি সমালোচিত ছিলেন বলসোনারো। সব মিলিয়ে তলানিতে ছিল তার জনপ্রিয়তা।

নিউজটি শেয়ার করুন

বলসোনারোকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন লুলা

আপডেট সময় : ১০:৪৪:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩১ অক্টোবর ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 
ব্রাজিলের মানুষ ভালো থাকতে চায়, ভালো খেতে চায়, চাকরি করতে চায়। তারা সুযোগ পেতে চায় শিক্ষার। বন্দুকের পরিবর্তে চায় বই। আমরা শান্তি, গণতন্ত্র এবং মর্যাদা চাই। আমরা এখন এক মানুষ।

তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় কথাগুলো বলছিলেন লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা। কারণ তিনিই হতে যাচ্ছেন লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বড় দেশটির প্রেসিডেন্ট। বর্তমান প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারোকে হারিয়েছেন লুলা।

নির্বাচনে তাদের মধ্যে লড়াই হয়েছে হাড্ডাহাড্ডি। শেষ ধাপের ভোটগণনা শেষে লুলা দা সিলভা পেয়েছেন ৫০ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট। আর ৪৯ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন বলসোনারো।

রোববার (৩০ অক্টোবর) ব্রাজিলের সুপ্রিম কোর্ট লুলাকে দেশটির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। ৭৭ বছর বয়সী এ নেতার ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন অনুষ্ঠান হতে পারে আগামী ১ জানুয়ারি। লুলা দা সিলভা বামপন্থী রাজনীতিবদ আর বলসোনারো কট্টর ডানপন্থী।

এমন ফলাফলের পর উল্লসিত সমর্থকদের ৭৭ বছর বয়সী লুলা বলেন, প্রথমত, আমি এখানে আমার সঙ্গে থাকা সমস্ত কমরেডকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমাদের লড়াই রাজ্যের মেশিনের সঙ্গে ছিল, শুধু প্রার্থীর সঙ্গে নয়, যারা আমাদের এই নির্বাচনে জেতাতে আটকাতে চেয়েছিল। যারা ভোট দিতে গেছেন, আমি তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।

বলসোনারোকে হারানোর পর এ দিন লুলা আরো বলেন, আজ আমরা বিশ্বকে বলতে চাই ব্রাজিল আবার ফিরে এসেছে। ব্রাজিল জলবায়ু সংকটের বিরুদ্ধে , বিশেষ করে আমাজন বন রক্ষার লড়াইয়ে তার জায়গা ফিরে নিতে প্রস্তুত।

এই জয়ে বিশ্বনেতারা লুলাকে অভিনন্দন জানাতে শুরু করেছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন লুলাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু এবং বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন হয়েছে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ টুইটারে লুলালে অভিনন্দন জানান।

এর আগে, ২০০৩ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন লুলা। তার বিরুদ্ধে বেশ কিছু দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। তারপরও নির্বাচনে জিতে রাজনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ছিল সাবেক প্রেসিডেন্টের। এবারে তিনি তৃতীয় বারের মতো দেশটির প্রসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে, ২০১৯ সালে কিছু বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ও লাগামহীন কথাবার্তার জন্য সমালোচিত ছিলেন বলসোনারো। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, বিশ্বে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর তিনি ব্রাজিলকে রক্ষায় তেমন কোনো পদক্ষেপ নেননি। এছাড়া, তার বিরুদ্ধে মহামারির সময় অব্যবস্থাপনার অভিযোগও রয়েছে।

তবে আমাজন বন উজাড় করার কথা বলে সবচেয়ে বেশি সমালোচিত ছিলেন বলসোনারো। সব মিলিয়ে তলানিতে ছিল তার জনপ্রিয়তা।