ঢাকা ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

‘বর্তমান সময়ে বেশি সংকটে গণমাধ্যমকর্মীরা’

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:৫২:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৭ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৫৭০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বেশি সংকটে গণমাধ্যমকর্মীরা। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সবাইকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

আজ শনিবার (৭ই অক্টোবর) সকালে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটিতে দৈনিক যুগান্তরের সিনিয়র সাংবাদিক হাবিবুর রহমান খানের শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। শোকসভায় ডিআরইউর সদস্যসহ সাংবাদিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির মহাসচিব অত্যন্ত ভারাক্রান্ত কন্ঠে বলেন, হাবিবের স্মৃতিসভায় এসে কথা বলতে হবে এটি কখনও ভাবিনি। অল্প সময়েই তার বন্ধুসূলভ আমাকে বিমোহিত করেছে। সে এক সময় ছাত্রদলের রাজনীতি করলেও সাংবাদিকতার সঙ্গে রাজনীতিকে মেলাতেন না। পেশাগত চেতনায় আত্নবিশ্বাসী থেকে সত্য প্রকাশে দ্বিধা করতেন না।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে সাংবাদিকতা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের একটি পেশা, সেই জায়গায় তিনি আত্মবিশ্বাসের জায়গায় লড়াই করে গেছেন। তিনি বলেন, এতো অল্প বয়সে তার চলে যাওয়াটা মেনে নেয়া নেয়া কষ্টের। দেশের আজকের প্রেক্ষাপটে তার মতো একজন স্পষ্টবাদী সাংবাদিকদের খুব প্রয়োজন ছিলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

‘বর্তমান সময়ে বেশি সংকটে গণমাধ্যমকর্মীরা’

আপডেট সময় : ০৬:৫২:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৭ অক্টোবর ২০২৩

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বেশি সংকটে গণমাধ্যমকর্মীরা। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সবাইকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

আজ শনিবার (৭ই অক্টোবর) সকালে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটিতে দৈনিক যুগান্তরের সিনিয়র সাংবাদিক হাবিবুর রহমান খানের শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। শোকসভায় ডিআরইউর সদস্যসহ সাংবাদিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির মহাসচিব অত্যন্ত ভারাক্রান্ত কন্ঠে বলেন, হাবিবের স্মৃতিসভায় এসে কথা বলতে হবে এটি কখনও ভাবিনি। অল্প সময়েই তার বন্ধুসূলভ আমাকে বিমোহিত করেছে। সে এক সময় ছাত্রদলের রাজনীতি করলেও সাংবাদিকতার সঙ্গে রাজনীতিকে মেলাতেন না। পেশাগত চেতনায় আত্নবিশ্বাসী থেকে সত্য প্রকাশে দ্বিধা করতেন না।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে সাংবাদিকতা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের একটি পেশা, সেই জায়গায় তিনি আত্মবিশ্বাসের জায়গায় লড়াই করে গেছেন। তিনি বলেন, এতো অল্প বয়সে তার চলে যাওয়াটা মেনে নেয়া নেয়া কষ্টের। দেশের আজকের প্রেক্ষাপটে তার মতো একজন স্পষ্টবাদী সাংবাদিকদের খুব প্রয়োজন ছিলো।