ঢাকা ০১:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বয়স কমানোর ওষুধ আবিষ্কারের দাবি গবেষকদের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৪১:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুলাই ২০২৩
  • / ৫২২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বয়স কমানোর ওষুধ আবিষ্কারের দাবি করলেন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। গত ১২ জুলাই এজিং নামের একটি সাময়িকীতে ‘কেমিকেলি ইনডিউসড রিপ্রোগ্রামিং টু রিভার্স সেলুলার এজিং’ গবেষণাটিতে এ তথ্য জানানো হয়।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, গবেষক দল ছয়টি রাসায়নিক উপাদানের একটি ককটেইল আবিষ্কার করেছেন, যা একটি পিল আকারে উৎপাদন করা সম্ভব। এটি মানুষ ও ইঁদুরের ত্বকের কোষের বার্ধক্য প্রক্রিয়াকে কয়েক বছর পর্যন্ত বাধা দিতে পারে।

হার্ভার্ডের গবেষক ডেভিড সিনক্লেয়ার এক টুইট বার্তায় জানান, আমাদের সাম্প্রতিক গবেষণা প্রকাশ করায় আমরা কৃতজ্ঞ। এর আগে আমরা দেখিয়েছিলাম যে, জিন থেরাপি দিয়ে বয়স কমানো সম্ভব। এবার আমরা দেখতে পেরেছি যে, কেমিকেল ককটেলের মাধ্যমেও এটি সম্ভব।

গবেষকরা জানান, প্রত্যেকটি কেমিকেল ককটেলের মধ্যে পাঁচ থেকে সাতটি উপাদান থাকে, যা মানসিক ও শারীরিক চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত হয়।

সিনক্লেয়ার জানান, হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলে তাঁর দল তিন বছরের বেশি সময় ধরে এমন অণু খুঁজে বের করার জন্য কাজ করেছেন, যা কোষের বার্ধক্যকে ঠেকাতে পারে এবং মানুষের কোষগুলোকে পুনরুজ্জীবিত করতে পারে।

টুইট বার্তায় এই গবেষক বলেন, মানবদেহে জিন থেরাপির মাধ্যমে বয়স কমানোর পরীক্ষা প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আশা করা হচ্ছে আগামী বছরের শেষেই এটি শুরু হবে।

তবে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষসহ বেশ কয়েকজন বিজ্ঞানী সতর্ক করে জানিয়েছেন, এ ধরনের গবেষণা এখনও প্রাথমিক পর্যায়ের ও বিভ্রান্তিমূলক।

নিউজটি শেয়ার করুন

বয়স কমানোর ওষুধ আবিষ্কারের দাবি গবেষকদের

আপডেট সময় : ০১:৪১:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুলাই ২০২৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বয়স কমানোর ওষুধ আবিষ্কারের দাবি করলেন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। গত ১২ জুলাই এজিং নামের একটি সাময়িকীতে ‘কেমিকেলি ইনডিউসড রিপ্রোগ্রামিং টু রিভার্স সেলুলার এজিং’ গবেষণাটিতে এ তথ্য জানানো হয়।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, গবেষক দল ছয়টি রাসায়নিক উপাদানের একটি ককটেইল আবিষ্কার করেছেন, যা একটি পিল আকারে উৎপাদন করা সম্ভব। এটি মানুষ ও ইঁদুরের ত্বকের কোষের বার্ধক্য প্রক্রিয়াকে কয়েক বছর পর্যন্ত বাধা দিতে পারে।

হার্ভার্ডের গবেষক ডেভিড সিনক্লেয়ার এক টুইট বার্তায় জানান, আমাদের সাম্প্রতিক গবেষণা প্রকাশ করায় আমরা কৃতজ্ঞ। এর আগে আমরা দেখিয়েছিলাম যে, জিন থেরাপি দিয়ে বয়স কমানো সম্ভব। এবার আমরা দেখতে পেরেছি যে, কেমিকেল ককটেলের মাধ্যমেও এটি সম্ভব।

গবেষকরা জানান, প্রত্যেকটি কেমিকেল ককটেলের মধ্যে পাঁচ থেকে সাতটি উপাদান থাকে, যা মানসিক ও শারীরিক চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত হয়।

সিনক্লেয়ার জানান, হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলে তাঁর দল তিন বছরের বেশি সময় ধরে এমন অণু খুঁজে বের করার জন্য কাজ করেছেন, যা কোষের বার্ধক্যকে ঠেকাতে পারে এবং মানুষের কোষগুলোকে পুনরুজ্জীবিত করতে পারে।

টুইট বার্তায় এই গবেষক বলেন, মানবদেহে জিন থেরাপির মাধ্যমে বয়স কমানোর পরীক্ষা প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আশা করা হচ্ছে আগামী বছরের শেষেই এটি শুরু হবে।

তবে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষসহ বেশ কয়েকজন বিজ্ঞানী সতর্ক করে জানিয়েছেন, এ ধরনের গবেষণা এখনও প্রাথমিক পর্যায়ের ও বিভ্রান্তিমূলক।