ঢাকা ১১:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ফুলবাড়ীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী ও শাশুড়ী আটক

মো: আবু শহীদ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:৫৫:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
  • / ৪১৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে যৌতুকের দাবীতে আরিফা বেগম (২৮) নামে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে পাওয়া গেছে। এঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়ীকে আটক করেছে থানা পুলিশ। নিহত আরিফা বেগম ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার ৯নং ওয়ার্ডের চকচক (ডাঙ্গা) গ্রামের সাইদুল ইসলামের স্ত্রী ও চিরিরবন্দর থানার আমবাড়ী কেশবপুর গ্রামের ছাইদুল ইসলাম এর মেয়ে।
এ ঘটনায় শনিবার সকালে নিহতের বাবা ছাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে স্বামী,শাশুড়ী ও ভগ্নীপতি কে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পর ওইদিনই ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার চকচকা (ডাঙ্গা) গ্রামে নিজ বাড়ী থেকে স্বামী সাইদুল ইসলাম (৩৬)  ও শাশুড়ী জাহেদা বেগম (৫৭) কে আটক করেন পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফুলবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম।
গত শুক্রবার (১৫জুন) রাত ১টার সময় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গৃহবধূ আরিফা বেগম এর মৃত্যু হয়। এর আগে গত ১২জুন ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার চকচকা (ডাঙ্গা) গ্রামে তার স্বামীর বাড়ীতে এই মারপিটের ঘটনা ঘটে।
মামলা সুত্রে জানাযায়, গত ০৭ বছর পূর্বে ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার চকচক (ডাঙ্গা) গ্রামের মৃত মইজ উদ্দিন এর ছেলে সাইদুল ইসলাম সাথে চিরিরবন্দর থানার আমবাড়ী কেশবপুর গ্রামের ছাইদুল ইসলাম এর মেয়ে আরিফা বেগমের বিয়ে হয়। এরপর সংসার জীবনে তাদের এক ছেলে ও এক কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করে।
আরিফার আসামি সাইদুল এর নিদিষ্ট কোন পেশা নাই, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কাজকর্ম করে। বিয়ের পর থেকে প্রায় সময় যৌতুকের জন্য চাপসৃষ্টি করে আরিফাকে কারণে অকারণে মারপিট সহ মানুষিক ও শারীরিক নির্যাতন করে অসছিল স্বামী সাইদুল । ঠিকমত ভরণপোষনও দিত না। ইতিপূর্বেও যৌতুকের জন্য তাকে মারপিট করে বাবার বাড়ীতে পাঠিয়ে দিয়েছিল। পরবর্তীতে গ্রামের স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে যৌতুকের জন্য আর মারপিট করিবে না মর্মে অঙ্গীকার করে আরিফাকে আবারও বাড়ীতে নিয়ে আসে।
এরই মধ্যে গত ১২জুন আবারও আরিফাকে তার স্বামী সাইদুল যৌতুক নিয়ে আসার জন্য বললে যৌতুক নিয়ে আসতে অসম্মতি জানালে, তাকে বাশের লাঠি দিয়ে এলোপাথারী ভাবে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ও মাথায় মারপিট করে গুরুতর ফোলা জখম করে।
মারপিটের বিষয়টি আরিফা তার বাবা ছাইদুল ইসলাম কে মোবাইল ফোনে জানালে তার মাতা সাহিদা খাতুন সহ মেয়েকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ওইদিন রাতেই চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। গত শুক্রবার ১৫জুন রাত ১টার সময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে আরিফা বেগমের মৃত্য হয়। এঘটনায় শনিবার সকালে নিহতের বাবা ছাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে স্বামী সাইদুল ইসলাম (৩৬)  ও শাশুড়ী জাহেদা বেগম (৫৭) ও ভগ্নীপতি সোহেল কে আসামী করে ফুলবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ দুজনকে আটক করে ।
ফুলবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান, গৃহবধু আরিফা বেগমের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল থেকে মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের বাবা ছাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে তিন জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন, দুজনকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

ফুলবাড়ীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী ও শাশুড়ী আটক

আপডেট সময় : ০৭:৫৫:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে যৌতুকের দাবীতে আরিফা বেগম (২৮) নামে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে পাওয়া গেছে। এঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়ীকে আটক করেছে থানা পুলিশ। নিহত আরিফা বেগম ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার ৯নং ওয়ার্ডের চকচক (ডাঙ্গা) গ্রামের সাইদুল ইসলামের স্ত্রী ও চিরিরবন্দর থানার আমবাড়ী কেশবপুর গ্রামের ছাইদুল ইসলাম এর মেয়ে।
এ ঘটনায় শনিবার সকালে নিহতের বাবা ছাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে স্বামী,শাশুড়ী ও ভগ্নীপতি কে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পর ওইদিনই ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার চকচকা (ডাঙ্গা) গ্রামে নিজ বাড়ী থেকে স্বামী সাইদুল ইসলাম (৩৬)  ও শাশুড়ী জাহেদা বেগম (৫৭) কে আটক করেন পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফুলবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম।
গত শুক্রবার (১৫জুন) রাত ১টার সময় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গৃহবধূ আরিফা বেগম এর মৃত্যু হয়। এর আগে গত ১২জুন ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার চকচকা (ডাঙ্গা) গ্রামে তার স্বামীর বাড়ীতে এই মারপিটের ঘটনা ঘটে।
মামলা সুত্রে জানাযায়, গত ০৭ বছর পূর্বে ফুলবাড়ী পৌর এলাকারার চকচক (ডাঙ্গা) গ্রামের মৃত মইজ উদ্দিন এর ছেলে সাইদুল ইসলাম সাথে চিরিরবন্দর থানার আমবাড়ী কেশবপুর গ্রামের ছাইদুল ইসলাম এর মেয়ে আরিফা বেগমের বিয়ে হয়। এরপর সংসার জীবনে তাদের এক ছেলে ও এক কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করে।
আরিফার আসামি সাইদুল এর নিদিষ্ট কোন পেশা নাই, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কাজকর্ম করে। বিয়ের পর থেকে প্রায় সময় যৌতুকের জন্য চাপসৃষ্টি করে আরিফাকে কারণে অকারণে মারপিট সহ মানুষিক ও শারীরিক নির্যাতন করে অসছিল স্বামী সাইদুল । ঠিকমত ভরণপোষনও দিত না। ইতিপূর্বেও যৌতুকের জন্য তাকে মারপিট করে বাবার বাড়ীতে পাঠিয়ে দিয়েছিল। পরবর্তীতে গ্রামের স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে যৌতুকের জন্য আর মারপিট করিবে না মর্মে অঙ্গীকার করে আরিফাকে আবারও বাড়ীতে নিয়ে আসে।
এরই মধ্যে গত ১২জুন আবারও আরিফাকে তার স্বামী সাইদুল যৌতুক নিয়ে আসার জন্য বললে যৌতুক নিয়ে আসতে অসম্মতি জানালে, তাকে বাশের লাঠি দিয়ে এলোপাথারী ভাবে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ও মাথায় মারপিট করে গুরুতর ফোলা জখম করে।
মারপিটের বিষয়টি আরিফা তার বাবা ছাইদুল ইসলাম কে মোবাইল ফোনে জানালে তার মাতা সাহিদা খাতুন সহ মেয়েকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ওইদিন রাতেই চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। গত শুক্রবার ১৫জুন রাত ১টার সময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে আরিফা বেগমের মৃত্য হয়। এঘটনায় শনিবার সকালে নিহতের বাবা ছাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে স্বামী সাইদুল ইসলাম (৩৬)  ও শাশুড়ী জাহেদা বেগম (৫৭) ও ভগ্নীপতি সোহেল কে আসামী করে ফুলবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ দুজনকে আটক করে ।
ফুলবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান, গৃহবধু আরিফা বেগমের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল থেকে মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের বাবা ছাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে তিন জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন, দুজনকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।
বাখ//আর