ঢাকা ০৮:৪৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতাল জনবলের অভাবে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে 

বিশেষ প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:০৭:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৭ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৫৩১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
ফরিদপুরের শতবছরের ঐতিহ্যবাহী জেনারেল হাসপাতালটি (সদর) শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। প্রতিদিন গড়ে ২০০/৩০০ শত রোগী চিকিৎসা সেবা নেবার জন্য এই হাসপাতালে আসেন । কিন্তু চিকিৎসক ও জনবলের অভাবে সুনামধণ্য জেনারেল হাসপাতালটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে চলে যাচ্ছে বলে অভিযোগ সেবা নিতে আসা হাজারো রোগী ও স্বজনদের ।
সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় , হাসপাতালের অভ্যন্তরে ২নং যক্ষা চিকিৎসাসেবা কক্ষ ও ৩ নং জলাতঙ্ক চিকিৎসাসেবা কক্ষের সামনে বিভিন্ন ধরণের আবর্জনা ফেলে রাখা হয়েছে । কিন্তু এই দুইটি কক্ষে প্রতিদিন গড়ে শতাধিক রোগী চিকিৎসা সেবা  নিতে আসে। এই দুইটি রুমের সামনে অনিয়ন্ত্রিত ভাবে বিভিন্ন ধরণের পচা – আবর্জনা ফেলার কারণে দুর্গন্ধে লাইনে দাড়িয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে ।
এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কোন পদক্ষেপ নেবার মাথাব্যাথা নেই। চিকিৎসাসেবা নিতে আসা কামরুল , আসমা বেগম সহ একাধিক রোগীরা জানান, হাসপাতালের পচা দুর্গন্ধের কারণে লাইনে দাড়িয়ে থাকা দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে ।
জলাতঙ্ক চিকিৎসা সেবায় দায়িত্বে নিয়োজিত ব্রাদার (স্টাফ নার্স) আনসার জানান, জেনারেল হাসপাতালে আয়া , সুইপার, নাইটগার্ড না থাকার কারণে রোগীরা উক্ত স্থানে আবর্জনা ফেলে রাখে। এতে সৃষ্ট দুর্গন্ধে আমাদের ও চিকিৎসা সেবা দিতে সমস্যা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, আমাদের হাসপাতালে ডাক্তার সহ ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর জনবল সংকট। তার মধ্যে সুইওপার ও আয়া অন্যতম।  সিভিল সার্জন স্যারকে জনবল সংকটের কারণে অবগত করা হয়েছে ।
এ ব্যাপারে ফরিদপুরের সিভিল সার্জন ডা মো সিদ্দিকুর রহমান জানান, আমাদের জনবল সংকটের বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চিঠি দিয়ে ও মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। অতিসত্বর সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতাল জনবলের অভাবে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে 

আপডেট সময় : ০৬:০৭:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৭ অক্টোবর ২০২৩
ফরিদপুরের শতবছরের ঐতিহ্যবাহী জেনারেল হাসপাতালটি (সদর) শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। প্রতিদিন গড়ে ২০০/৩০০ শত রোগী চিকিৎসা সেবা নেবার জন্য এই হাসপাতালে আসেন । কিন্তু চিকিৎসক ও জনবলের অভাবে সুনামধণ্য জেনারেল হাসপাতালটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে চলে যাচ্ছে বলে অভিযোগ সেবা নিতে আসা হাজারো রোগী ও স্বজনদের ।
সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় , হাসপাতালের অভ্যন্তরে ২নং যক্ষা চিকিৎসাসেবা কক্ষ ও ৩ নং জলাতঙ্ক চিকিৎসাসেবা কক্ষের সামনে বিভিন্ন ধরণের আবর্জনা ফেলে রাখা হয়েছে । কিন্তু এই দুইটি কক্ষে প্রতিদিন গড়ে শতাধিক রোগী চিকিৎসা সেবা  নিতে আসে। এই দুইটি রুমের সামনে অনিয়ন্ত্রিত ভাবে বিভিন্ন ধরণের পচা – আবর্জনা ফেলার কারণে দুর্গন্ধে লাইনে দাড়িয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে ।
এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কোন পদক্ষেপ নেবার মাথাব্যাথা নেই। চিকিৎসাসেবা নিতে আসা কামরুল , আসমা বেগম সহ একাধিক রোগীরা জানান, হাসপাতালের পচা দুর্গন্ধের কারণে লাইনে দাড়িয়ে থাকা দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে ।
জলাতঙ্ক চিকিৎসা সেবায় দায়িত্বে নিয়োজিত ব্রাদার (স্টাফ নার্স) আনসার জানান, জেনারেল হাসপাতালে আয়া , সুইপার, নাইটগার্ড না থাকার কারণে রোগীরা উক্ত স্থানে আবর্জনা ফেলে রাখে। এতে সৃষ্ট দুর্গন্ধে আমাদের ও চিকিৎসা সেবা দিতে সমস্যা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, আমাদের হাসপাতালে ডাক্তার সহ ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর জনবল সংকট। তার মধ্যে সুইওপার ও আয়া অন্যতম।  সিভিল সার্জন স্যারকে জনবল সংকটের কারণে অবগত করা হয়েছে ।
এ ব্যাপারে ফরিদপুরের সিভিল সার্জন ডা মো সিদ্দিকুর রহমান জানান, আমাদের জনবল সংকটের বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চিঠি দিয়ে ও মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। অতিসত্বর সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।
বাখ//আর