ঢাকা ০৬:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ফরিদপুরে কিশোরের আত্মহত্যা

বিশেষ প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৮:১৪:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪
  • / ৪৮৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে ভ্যান হারানোর ৩দিন পর শোকে প্রান গেল কিশোরের। বুধবার সন্ধায় তার বাড়ি থেকে মোরছালিন মিয়া (১৪) নামে ওই কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ মর্মান্তিক র্ঘটনাটি ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের মক্রমপট্রি গ্রামে ঘটে। হতদরিদ্র ভ্যানচালক কিশোর ওই গ্রামের মুনির মিয়ার পুত্র।
গ্রামবাসী সুত্রে জানা যায়, হত দরিদ্র ভ্যান চালক মোরছালিন ভ্যান চালিয়ে সংসার চালাত। গত ৩রা মার্চ রবিবার সকালে মোরছালিন ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। সে ঐদিন সন্ধ্যার পর ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে ভ্যানটি হারিয়ে ফেলে। ভ্যান হারিয়ে মোরছালিন বাড়িতে আসলে পরিবারের লোকজন তাকে গালমন্দ করে। এতে ভ্যান হারানোর শোক এবং পরিবারের সদস্যদের গালমন্দ শুনে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দেয়। দুঃখে কষ্টে এবং অভিমানে বুধবার দুপুরে নিজের ঘরের আড়ার সাথে রশি দিয়ে ফাঁস দেয়। পরে পরিবারের সদস্যরা তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে তারা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
এ ব্যাপারে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার উপ পরিদর্শক শওকত হোসেন জানান, কিশোরের আত্মহত্যার খবর পেয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করেছি। পরে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ ও পরিবারের অনাপত্তি থাকায় লাশ ময়না তদন্ত না করেই দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

ফরিদপুরে কিশোরের আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ০৮:১৪:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪
ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে ভ্যান হারানোর ৩দিন পর শোকে প্রান গেল কিশোরের। বুধবার সন্ধায় তার বাড়ি থেকে মোরছালিন মিয়া (১৪) নামে ওই কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ মর্মান্তিক র্ঘটনাটি ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের মক্রমপট্রি গ্রামে ঘটে। হতদরিদ্র ভ্যানচালক কিশোর ওই গ্রামের মুনির মিয়ার পুত্র।
গ্রামবাসী সুত্রে জানা যায়, হত দরিদ্র ভ্যান চালক মোরছালিন ভ্যান চালিয়ে সংসার চালাত। গত ৩রা মার্চ রবিবার সকালে মোরছালিন ভ্যান নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। সে ঐদিন সন্ধ্যার পর ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে ভ্যানটি হারিয়ে ফেলে। ভ্যান হারিয়ে মোরছালিন বাড়িতে আসলে পরিবারের লোকজন তাকে গালমন্দ করে। এতে ভ্যান হারানোর শোক এবং পরিবারের সদস্যদের গালমন্দ শুনে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দেয়। দুঃখে কষ্টে এবং অভিমানে বুধবার দুপুরে নিজের ঘরের আড়ার সাথে রশি দিয়ে ফাঁস দেয়। পরে পরিবারের সদস্যরা তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে তারা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
এ ব্যাপারে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার উপ পরিদর্শক শওকত হোসেন জানান, কিশোরের আত্মহত্যার খবর পেয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করেছি। পরে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ ও পরিবারের অনাপত্তি থাকায় লাশ ময়না তদন্ত না করেই দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
বাখ//আর