ঢাকা ০৫:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ফরিদপুরের চকবাজারে নিন্মমানের রাস্তা সংস্কারের অভিযোগ 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:২২:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৪৫৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
// বিশেষ প্রতিনিধি, ফরিদপুর //

ফরিদপুরে নিন্মমানের খোয়া দিয়ে কাজ করছে ঠিকাদার । ফরিদপুরের শত বছরের পুরাতন বাজার চকবাজার । এই বাজারটি ফরিদপুর শহরের অন্যতম বাজার হিসেবে পরিচিত ব্যবসায়ীক কেন্দ্র । এই চকবাজারে বিভিন্ন প্রকার চাল থেকে আরম্ভ সব ধরণের পণ্যের পাইকারী আড়ত। ফরিদপুর পৌরসভা ও শহরের প্রাণ কেন্দ্র হিসেবে চকবাজারের রাস্তাটি সংস্কারের কাজ চলছে নিন্মমানের খোয়া দিয়ে। রাস্তার কাজটির ঠিকাদার হচ্ছে ফারুক হোসেন নামে এক ব্যক্তি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় পৌরসভার প্রকৌশলীসহ অন্যান্য কোন কর্মকর্তা –কর্মচারীদের রাস্তার কাজ দেখভাল করতে দেখা যায়নি। এজন্যই কাজটি আরো বেশি নিন্মমানের হচ্ছে।
চকবাজারের একাধিক ব্যবসায়ীরা জানান, এতো নিন্মমানের খোয়া দিয়ে রাস্তার সংস্কার কাজ করছে যা বলার মতো নয়। আবার অনেকে বিভিন্ন ধরণের ভয়ে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি । কারণ মন্তব্য করলে যেকোন সময় হামলা–মামলার শিকার হতে পারেন । চকবাজারের এ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন দূর দুরান্ত থেকে প্রায় শতাধিক ট্রাকে মালামাল লোড – আনলোড হয় । যেভাবে নিন্মমানের খোয়া সংস্কার কাজ হচ্ছে তাতে রাস্তাটি দুই এক মাস টিকবে কি না ? তা নিয়ে জনমনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।
এ বিষয়ে প্যানেল মেয়র মনিরুল ইসলাম জানান, নিন্মমানের খোয়া ব্যবহার করে রাস্তার সংস্কার কাজ হয়েছে এমন অভিযোগ মেয়রের নিকট  করলে বিষয়টি মেয়র দেখভাল করবেন । তিনিই বলতে পারবেন কাজ ভালো না খারাপ হয়েছে ।
তিনি আরো জানান , চকবাজারের রাস্তা সংস্কারের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনারের বুঝে নেওয়া দায়িত্ব ।
এ বিষয়ে  ওই ওয়ার্ডের কমিশনার মোঃ ইদ্রিস জানান , বর্তমানে মালামালের দাম অনেক বৃদ্ধি পাওয়ায় কাজের গুণগতমান একটু খারাপ হতে পারে । তিনি আরো জানান , নিন্মমানের কাজের বিষয়টি পৌরসভার মেয়রকে অবগত করুন ।
ফরিদপুর পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুল আলম জানান , চকবাজারের রাস্তার কাজটি নিন্মমানের হচ্ছে এ বিষয়টি আমার জানা নেই। নিন্মমানের কাজ হলে বিষয়টি আমি দেখবো । চকবাজারের রাস্তার কাজটি কত টাকার জানতে চাইলে তিনি  সঠিক তথ্য দিতে পারেননি । তবে তিনি এতটুকু বলেছেন যে প্যাকেজের আওতায় কয়েকটি এলাকায় এ ধরণের রাস্তার কাজ যৌথভাবে চলছে।
রাস্তার কাজের বিষয়ে ঠিকাদার ফারুক হোসেনের মুঠো ফোনে একাধিকবার কল দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি ।
চকবাজার এলাকার প্রায় শতাধিক ব্যক্তিরা জানান, এ নিন্মমানের কাজের সাথে পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুল আলম জড়িত রয়েছে বিধায় এতো নিন্মমানের কাজ হচ্ছে । এ পর্যন্ত তাকে সড়কের সংস্কার কাজের তদারকিতে এলাকায় দেখা যায়নি ।
নিন্মমানের কাজের বিষয়ে ফরিদপুরের পৌরসভার মেয়র অমিতাভ বোস জানান, নিন্মমানের কাজ করার কোন সুযোগ নেই। চকবাজারের রাস্তা সংস্কারের কাজটি নিন্মমানের হলে সংশ্লিষ্ট সকলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।
উল্লেখ্য,  এর আগেও একাই ঠিকাদার এবং নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে এ ধরণের কর্মকান্ডের অভিযোগ রয়েছে। সুধী মহলের দাবি, একটি ভয়ংকর চক্র ফরিদপুরের মেয়রের ভাবমুর্তি নষ্টের চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। শুধু এখনই নয় বিগত মেয়রের সময়ও একই ঠিকাদার ও প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে এ ধরণের নিন্মমানের কাজের অভিযোগ রয়েছে। ফলে জনমনে প্রশ্ন জেগেছে, এদের খুঁটির জোড় কোথায় ?
বা/খ: এসআর।

নিউজটি শেয়ার করুন

ফরিদপুরের চকবাজারে নিন্মমানের রাস্তা সংস্কারের অভিযোগ 

আপডেট সময় : ০২:২২:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩
// বিশেষ প্রতিনিধি, ফরিদপুর //

ফরিদপুরে নিন্মমানের খোয়া দিয়ে কাজ করছে ঠিকাদার । ফরিদপুরের শত বছরের পুরাতন বাজার চকবাজার । এই বাজারটি ফরিদপুর শহরের অন্যতম বাজার হিসেবে পরিচিত ব্যবসায়ীক কেন্দ্র । এই চকবাজারে বিভিন্ন প্রকার চাল থেকে আরম্ভ সব ধরণের পণ্যের পাইকারী আড়ত। ফরিদপুর পৌরসভা ও শহরের প্রাণ কেন্দ্র হিসেবে চকবাজারের রাস্তাটি সংস্কারের কাজ চলছে নিন্মমানের খোয়া দিয়ে। রাস্তার কাজটির ঠিকাদার হচ্ছে ফারুক হোসেন নামে এক ব্যক্তি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় পৌরসভার প্রকৌশলীসহ অন্যান্য কোন কর্মকর্তা –কর্মচারীদের রাস্তার কাজ দেখভাল করতে দেখা যায়নি। এজন্যই কাজটি আরো বেশি নিন্মমানের হচ্ছে।
চকবাজারের একাধিক ব্যবসায়ীরা জানান, এতো নিন্মমানের খোয়া দিয়ে রাস্তার সংস্কার কাজ করছে যা বলার মতো নয়। আবার অনেকে বিভিন্ন ধরণের ভয়ে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি । কারণ মন্তব্য করলে যেকোন সময় হামলা–মামলার শিকার হতে পারেন । চকবাজারের এ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন দূর দুরান্ত থেকে প্রায় শতাধিক ট্রাকে মালামাল লোড – আনলোড হয় । যেভাবে নিন্মমানের খোয়া সংস্কার কাজ হচ্ছে তাতে রাস্তাটি দুই এক মাস টিকবে কি না ? তা নিয়ে জনমনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।
এ বিষয়ে প্যানেল মেয়র মনিরুল ইসলাম জানান, নিন্মমানের খোয়া ব্যবহার করে রাস্তার সংস্কার কাজ হয়েছে এমন অভিযোগ মেয়রের নিকট  করলে বিষয়টি মেয়র দেখভাল করবেন । তিনিই বলতে পারবেন কাজ ভালো না খারাপ হয়েছে ।
তিনি আরো জানান , চকবাজারের রাস্তা সংস্কারের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনারের বুঝে নেওয়া দায়িত্ব ।
এ বিষয়ে  ওই ওয়ার্ডের কমিশনার মোঃ ইদ্রিস জানান , বর্তমানে মালামালের দাম অনেক বৃদ্ধি পাওয়ায় কাজের গুণগতমান একটু খারাপ হতে পারে । তিনি আরো জানান , নিন্মমানের কাজের বিষয়টি পৌরসভার মেয়রকে অবগত করুন ।
ফরিদপুর পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুল আলম জানান , চকবাজারের রাস্তার কাজটি নিন্মমানের হচ্ছে এ বিষয়টি আমার জানা নেই। নিন্মমানের কাজ হলে বিষয়টি আমি দেখবো । চকবাজারের রাস্তার কাজটি কত টাকার জানতে চাইলে তিনি  সঠিক তথ্য দিতে পারেননি । তবে তিনি এতটুকু বলেছেন যে প্যাকেজের আওতায় কয়েকটি এলাকায় এ ধরণের রাস্তার কাজ যৌথভাবে চলছে।
রাস্তার কাজের বিষয়ে ঠিকাদার ফারুক হোসেনের মুঠো ফোনে একাধিকবার কল দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি ।
চকবাজার এলাকার প্রায় শতাধিক ব্যক্তিরা জানান, এ নিন্মমানের কাজের সাথে পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুল আলম জড়িত রয়েছে বিধায় এতো নিন্মমানের কাজ হচ্ছে । এ পর্যন্ত তাকে সড়কের সংস্কার কাজের তদারকিতে এলাকায় দেখা যায়নি ।
নিন্মমানের কাজের বিষয়ে ফরিদপুরের পৌরসভার মেয়র অমিতাভ বোস জানান, নিন্মমানের কাজ করার কোন সুযোগ নেই। চকবাজারের রাস্তা সংস্কারের কাজটি নিন্মমানের হলে সংশ্লিষ্ট সকলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।
উল্লেখ্য,  এর আগেও একাই ঠিকাদার এবং নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে এ ধরণের কর্মকান্ডের অভিযোগ রয়েছে। সুধী মহলের দাবি, একটি ভয়ংকর চক্র ফরিদপুরের মেয়রের ভাবমুর্তি নষ্টের চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। শুধু এখনই নয় বিগত মেয়রের সময়ও একই ঠিকাদার ও প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে এ ধরণের নিন্মমানের কাজের অভিযোগ রয়েছে। ফলে জনমনে প্রশ্ন জেগেছে, এদের খুঁটির জোড় কোথায় ?
বা/খ: এসআর।