ঢাকা ১০:১০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশের সম্ভাব্য সময় জানাল অধিদফতর

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:২৪:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৮৩ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশের সম্ভাব্য সময় জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। আগামী নভেম্বর মাসের দ্বিতীয় বা তৃতীয় সপ্তাহে ফল প্রকাশিত হতে পারে বলে জানিয়েছে অধিদফতর।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াত গণমাধ্যমকে বলেন, শিক্ষক নিয়োগের কাজ চলমান। আগামী মাসের দ্বিতীয় বা তৃতীয় সপ্তাহে এটি প্রকাশ করা হতে পারে।ফল প্রকাশের পর দ্রুত নিয়োগ দেওয়ার কাজও শুরু হবে।

বর্তমানে সারাদেশে ৬৫ হাজার ৫৬৬টি প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয় আছে। এবারের নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন পরীক্ষার্থী। তিন ধাপে মোট ৬১টি জেলায় (তিন পার্বত্য জেলা ব্যতীত) লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে ৬১ জেলায় তিন ধাপে ১ হাজার ৮১১টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর সহকারী শিক্ষকের ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্যপদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। কিন্তু করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। ফলে সারাদেশে অবসরজনিত কারণে আরও ১০ হাজারেরও বেশি সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য হয়ে পড়েছে। শিক্ষক ঘাটতি নিরসনকল্পে মন্ত্রণালয় পূর্বের বিজ্ঞপ্তির শূন্যপদ ও বিজ্ঞপ্তির পরের শূন্যপদ মিলিয়ে ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশের সম্ভাব্য সময় জানাল অধিদফতর

আপডেট সময় : ০৭:২৪:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশের সম্ভাব্য সময় জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। আগামী নভেম্বর মাসের দ্বিতীয় বা তৃতীয় সপ্তাহে ফল প্রকাশিত হতে পারে বলে জানিয়েছে অধিদফতর।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াত গণমাধ্যমকে বলেন, শিক্ষক নিয়োগের কাজ চলমান। আগামী মাসের দ্বিতীয় বা তৃতীয় সপ্তাহে এটি প্রকাশ করা হতে পারে।ফল প্রকাশের পর দ্রুত নিয়োগ দেওয়ার কাজও শুরু হবে।

বর্তমানে সারাদেশে ৬৫ হাজার ৫৬৬টি প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয় আছে। এবারের নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন পরীক্ষার্থী। তিন ধাপে মোট ৬১টি জেলায় (তিন পার্বত্য জেলা ব্যতীত) লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে ৬১ জেলায় তিন ধাপে ১ হাজার ৮১১টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর সহকারী শিক্ষকের ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্যপদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। কিন্তু করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। ফলে সারাদেশে অবসরজনিত কারণে আরও ১০ হাজারেরও বেশি সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য হয়ে পড়েছে। শিক্ষক ঘাটতি নিরসনকল্পে মন্ত্রণালয় পূর্বের বিজ্ঞপ্তির শূন্যপদ ও বিজ্ঞপ্তির পরের শূন্যপদ মিলিয়ে ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।