ঢাকা ১১:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

প্রবাসীরা রেমিট্যান্স পাঠানো শুরু করলে সব ঠিক হয়ে যাবে : প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১৭:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৩
  • / ৪৪৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সিলেট প্রতিনিধি : 

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, ২০২০-২১ থেকে ২০২১-২২ অর্থবছরে করোনাভাইরাসের কারণে অনেক প্রবাসী সবকিছু গুটিয়ে দেশে ফিরে এসেছিলেন। এখন আবার বিভিন্ন দেশে তাদের পুরোনো কর্মস্থলে ফিরে যাচ্ছেন প্রবাসীরা। তারা গিয়ে রেমিট্যান্স পাঠানো শুরু করলে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) বিকালে সিলেট নগরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতির সিলেট, চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা বিভাগীয় সম্মেলন প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ইমরান আহমদ বলেন, ২০২০-২১ অর্থবছরে ২৪ বিলিয়ন ডলার ও ২০২১-২২ অর্থবছরে ২২ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স দেশে এসেছে।

প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ১৬ বিলিয়ন ডলার, ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১৮ বিলিয়ন ডলার, ২০২০-২১ অর্থবছরে ২৪ বিলিয়ন ডলার ও ২০২১-২২ অর্থবছরে ২২ বিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স দেশে এসেছে। চলতি বছরের জুনের মধ্যে, অর্থাৎ ২০২২-২৩ অর্থবছরেও রেমিট্যান্সের পরিমাণ ২২ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে।

তিনি আরো বলেন, এ বছর নতুন করে আরও প্রায় ১৫ লাখ লোক বিদেশ পাঠানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। সে লক্ষ্যে কাজও চলছে। মালয়েশিয়াতে লোক যাওয়া নিয়ে আপনারা (মিডিয়া) আমার মাথা খারাপ করে দিয়েছেন। সে দেশে এখন নিয়মিত লোক যাচ্ছে। রোমানিয়াতেও যাওয়া শুরু হয়েছে। এবার গ্রিসের সঙ্গেও নতুন করে চুক্তি করেছে সরকার। ইতালিতেও যাচ্ছে। লিবিয়াতেও খোলার একটা ব্যবস্থা করে নেবো। আগামী দুএক বছরের মধ্যে চীনসহ আরও কয়েকটি দেশে শ্রমিক সংকট দেখা দিবে। সরকার এ সুযোগ কাজে লাগাবে।

মন্ত্রী বলেন, নির্দিষ্ট কাজে চুক্তিবদ্ধ হয়ে অনেকে বিদেশে গেলেও সেখানে পৌঁছে সে কাজ ছেড়ে দেয়। এক দেশ থেকে আরেক দেশে চলে যায়। এতে দেশের বদনাম হয়।

তিনি বলেন, বিদেশে যাওয়ার আগে সে দেশের ভাষা শিক্ষা ও সংশ্লিষ্ট কাজে দক্ষ হয়ে যাওয়া উচিত। শিখে গেলে বেতন ডাবল হয়ে যায়। আর ভাষা যদি শিখে নেন, আরও ভাল হয়, বিশেষ করে কোরিয়ান ও জাপানিজ ভাষা। আর না হয় নার্সিংয়ে যাও। তা না হলে সাধারণ শ্রমিক হিসেবেই কাজ করতে হয়।

সম্মেলনে প্রকৌশলী সমিতির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সহসভাপতি মো. উজ্জ্বল বখতের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. দেলোয়ার হোসেন মজুমদার, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব সরোজ কুমার নাথ, ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুর রহমান প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

প্রবাসীরা রেমিট্যান্স পাঠানো শুরু করলে সব ঠিক হয়ে যাবে : প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১০:১৭:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৩

সিলেট প্রতিনিধি : 

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, ২০২০-২১ থেকে ২০২১-২২ অর্থবছরে করোনাভাইরাসের কারণে অনেক প্রবাসী সবকিছু গুটিয়ে দেশে ফিরে এসেছিলেন। এখন আবার বিভিন্ন দেশে তাদের পুরোনো কর্মস্থলে ফিরে যাচ্ছেন প্রবাসীরা। তারা গিয়ে রেমিট্যান্স পাঠানো শুরু করলে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) বিকালে সিলেট নগরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতির সিলেট, চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা বিভাগীয় সম্মেলন প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ইমরান আহমদ বলেন, ২০২০-২১ অর্থবছরে ২৪ বিলিয়ন ডলার ও ২০২১-২২ অর্থবছরে ২২ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স দেশে এসেছে।

প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ১৬ বিলিয়ন ডলার, ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১৮ বিলিয়ন ডলার, ২০২০-২১ অর্থবছরে ২৪ বিলিয়ন ডলার ও ২০২১-২২ অর্থবছরে ২২ বিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স দেশে এসেছে। চলতি বছরের জুনের মধ্যে, অর্থাৎ ২০২২-২৩ অর্থবছরেও রেমিট্যান্সের পরিমাণ ২২ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে।

তিনি আরো বলেন, এ বছর নতুন করে আরও প্রায় ১৫ লাখ লোক বিদেশ পাঠানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। সে লক্ষ্যে কাজও চলছে। মালয়েশিয়াতে লোক যাওয়া নিয়ে আপনারা (মিডিয়া) আমার মাথা খারাপ করে দিয়েছেন। সে দেশে এখন নিয়মিত লোক যাচ্ছে। রোমানিয়াতেও যাওয়া শুরু হয়েছে। এবার গ্রিসের সঙ্গেও নতুন করে চুক্তি করেছে সরকার। ইতালিতেও যাচ্ছে। লিবিয়াতেও খোলার একটা ব্যবস্থা করে নেবো। আগামী দুএক বছরের মধ্যে চীনসহ আরও কয়েকটি দেশে শ্রমিক সংকট দেখা দিবে। সরকার এ সুযোগ কাজে লাগাবে।

মন্ত্রী বলেন, নির্দিষ্ট কাজে চুক্তিবদ্ধ হয়ে অনেকে বিদেশে গেলেও সেখানে পৌঁছে সে কাজ ছেড়ে দেয়। এক দেশ থেকে আরেক দেশে চলে যায়। এতে দেশের বদনাম হয়।

তিনি বলেন, বিদেশে যাওয়ার আগে সে দেশের ভাষা শিক্ষা ও সংশ্লিষ্ট কাজে দক্ষ হয়ে যাওয়া উচিত। শিখে গেলে বেতন ডাবল হয়ে যায়। আর ভাষা যদি শিখে নেন, আরও ভাল হয়, বিশেষ করে কোরিয়ান ও জাপানিজ ভাষা। আর না হয় নার্সিংয়ে যাও। তা না হলে সাধারণ শ্রমিক হিসেবেই কাজ করতে হয়।

সম্মেলনে প্রকৌশলী সমিতির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সহসভাপতি মো. উজ্জ্বল বখতের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. দেলোয়ার হোসেন মজুমদার, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব সরোজ কুমার নাথ, ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুর রহমান প্রমুখ।