ঢাকা ০৯:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫০:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৮১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ডেস্ক নিউজ :

আবাসিক হোটেলে নিয়ে এক গৃহবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বরিশালের কোতোয়ালি মডেল থানার স্টীমারঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আবুল বাশারকে (৪৭) গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিন শনিবার শেষকার্য দিবসে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। সন্ধ্যায় এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আজিমুল করিম বলেন, গ্রেফতারকৃত এসআই আবুল বাশার বাকেরগঞ্জ উপজেলার বিহারীপুর গ্রামের আব্দুল জলিল খানের ছেলে। আর মামলার বাদি নির্যাতিতা নারী (৩৭) মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানার কাশিপুরের ইছাকাঠী এলাকার বাসিন্দা।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ অক্টোবর স্টীমারঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আবুল বাশারের সাথে ওই নারীর পরিচয় হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে মোবাইল নম্বর আদান প্রদান হয়। এর কয়েকদিন পর ১৩ অক্টোবর বিকেলে এসআই আবুল বাশারকে একটি মামলার জন্য ফোন দেয় ভিকটিম ওই গৃহিনী।

এ সময় এসআই আবুল বাশার ভিকটিমের অবস্থান জেনে সেখানে যান এবং তার অফিসিয়াল রুমে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে। পরবর্তীতে বিকেল চারটার দিকে নগরীর প্যারারা রোডস্থ আবাসিক হোটেল আলভির ২০৪ নম্বর কক্ষে নিয়ে এসআই আবুল বাশার ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

সূত্রমতে, কোতোয়ালি মডেল থানাধীন স্টীমার ঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবুল বাশারের বিরুদ্ধে ওই এলাকায় চাঁদাবাজির বিস্তার অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে কীর্তনখোলা নদী তীরবর্তী দ্বীপ জনপদ রসুলপুরের কতিপয় মাদক ব্যবসায়ীর সাথে সখ্যতা গড়ে তাদের কাছ থেকে মাসিক মোটা অংকের টাকা মাসোহারা আদায় করতো।

এ মনকি তাদের পক্ষালম্বন করে কখনও স্থানীয় বাসিন্দাদের হয়রানি করে আসছিলেন। বাকেরগঞ্জের নিজ এলাকায় এসআই দাপট দেখিয়ে নানা রকম কুকর্মে জড়িত রয়েছেন। একইসাথে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে কর্মরত থাকা অবস্থায় সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় তিনি সাময়িক বরখাস্তও হয়েছিলেন।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ সাইফুল ইসলাম বিপিএম বার বলেন, মামলা দায়েরের পর এসআই মোঃ আবুল বাশারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হবে।

এ ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৯:৫০:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২২

ডেস্ক নিউজ :

আবাসিক হোটেলে নিয়ে এক গৃহবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বরিশালের কোতোয়ালি মডেল থানার স্টীমারঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আবুল বাশারকে (৪৭) গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিন শনিবার শেষকার্য দিবসে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। সন্ধ্যায় এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আজিমুল করিম বলেন, গ্রেফতারকৃত এসআই আবুল বাশার বাকেরগঞ্জ উপজেলার বিহারীপুর গ্রামের আব্দুল জলিল খানের ছেলে। আর মামলার বাদি নির্যাতিতা নারী (৩৭) মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানার কাশিপুরের ইছাকাঠী এলাকার বাসিন্দা।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ অক্টোবর স্টীমারঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আবুল বাশারের সাথে ওই নারীর পরিচয় হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে মোবাইল নম্বর আদান প্রদান হয়। এর কয়েকদিন পর ১৩ অক্টোবর বিকেলে এসআই আবুল বাশারকে একটি মামলার জন্য ফোন দেয় ভিকটিম ওই গৃহিনী।

এ সময় এসআই আবুল বাশার ভিকটিমের অবস্থান জেনে সেখানে যান এবং তার অফিসিয়াল রুমে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে। পরবর্তীতে বিকেল চারটার দিকে নগরীর প্যারারা রোডস্থ আবাসিক হোটেল আলভির ২০৪ নম্বর কক্ষে নিয়ে এসআই আবুল বাশার ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

সূত্রমতে, কোতোয়ালি মডেল থানাধীন স্টীমার ঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবুল বাশারের বিরুদ্ধে ওই এলাকায় চাঁদাবাজির বিস্তার অভিযোগ রয়েছে। বিশেষ করে কীর্তনখোলা নদী তীরবর্তী দ্বীপ জনপদ রসুলপুরের কতিপয় মাদক ব্যবসায়ীর সাথে সখ্যতা গড়ে তাদের কাছ থেকে মাসিক মোটা অংকের টাকা মাসোহারা আদায় করতো।

এ মনকি তাদের পক্ষালম্বন করে কখনও স্থানীয় বাসিন্দাদের হয়রানি করে আসছিলেন। বাকেরগঞ্জের নিজ এলাকায় এসআই দাপট দেখিয়ে নানা রকম কুকর্মে জড়িত রয়েছেন। একইসাথে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে কর্মরত থাকা অবস্থায় সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় তিনি সাময়িক বরখাস্তও হয়েছিলেন।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ সাইফুল ইসলাম বিপিএম বার বলেন, মামলা দায়েরের পর এসআই মোঃ আবুল বাশারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হবে।

এ ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।