ঢাকা ০৫:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পুকুর খননের প্রস্তুতিতে কৃষকদের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০২:৪১:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪
  • / ৪৭৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বোরো জমিতে সেচ বন্ধ করে ধান নষ্ট করা হয়েছে। অপরিপক্ক ভুট্টা কেটে ফেলা হয়েছে। এখনও কিছু জমিতে থরে থরে শোভা পাচ্ছে ভুট্টার কাদি, পাশে অপরিপক্ক রসুনের আবাদও। এমনি অন্তত ২০ বিঘা জমিতে ফসল নষ্ট করে চলছে পুকুর খননের প্রস্ততি। জলাবদ্ধতার শঙ্কায় নারীসহ শত শত এলাকাবাসী ফসলী জমিতে দাঁড়িয়ে পুকুর খননের প্রস্তুতির প্রতিবাদ জানাতে শুক্রবার বেলা ১১ টার দিকে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে।

নাটোরের গুরুদাসপুরের বিয়াঘাট কুমারখালী উত্তর পাড়া গ্রামের কুমারখালী মৌজায় প্রভাবশালী আব্দুল হাকিম ও আব্দুল মমিন নামে দুই ভাই তাদের পৌত্রিক তিন ফসলী জমির উঠতি ফসল নষ্ট করে এমন অমানবিক পুকুর খননের প্রস্তুতি শুরু করেছেন। তারা একই মহল্লার মৃত সদর উদ্দিন মন্ডলের ছেলে।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া এলাকাবাসী জানান,কুমারখালী উত্তরপাড়া মাঠে অন্তত ২ হাজার বিঘা ফসলি জমি আছে। সেখানে ধান,পাট,ভুট্টা,রসুন, সব ধরনের রবি শষ্যসহ তিনটি ফসল ফলে। প্রভাবশালী দুইভাই পুকুর খনন করলে মাঠে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবে। পানি জমে ফসল উৎপাদন ব্যাহত হবে। নিচু জমিতে যাদের বাসা বাড়ি সেখানে পানি উঠবে। দীর্ঘ মেয়াদী ক্ষতির শঙ্কায় ফসলী জমিতে দাঁড়িয়ে ঘন্টাব্যাপী মাবন বন্ধনে অংশ নেন কৃষকরা।

মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভও করেছেন শঙ্কিত কৃষকরা। এলাকাবাসীর পক্ষে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জমসেদ আলী,মুঞ্জুর আলম,সোলায়মান আলী,শাজাহান আলী,আব্দুল কাদের প্রমুখ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা আক্তার জানান, পুকুর খননের প্রস্তুতির প্রতিবাদে কৃষকদের মানববন্ধনের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংবাদ নজরে আসলে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পৌছে তাদের নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। বোর জমিতে সেচের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দুই ভাইকে ফসলী জমিতে পুকুর খননের আইনগত শাস্তির বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

পুকুর খননের প্রস্তুতিতে কৃষকদের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

আপডেট সময় : ০২:৪১:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪

বোরো জমিতে সেচ বন্ধ করে ধান নষ্ট করা হয়েছে। অপরিপক্ক ভুট্টা কেটে ফেলা হয়েছে। এখনও কিছু জমিতে থরে থরে শোভা পাচ্ছে ভুট্টার কাদি, পাশে অপরিপক্ক রসুনের আবাদও। এমনি অন্তত ২০ বিঘা জমিতে ফসল নষ্ট করে চলছে পুকুর খননের প্রস্ততি। জলাবদ্ধতার শঙ্কায় নারীসহ শত শত এলাকাবাসী ফসলী জমিতে দাঁড়িয়ে পুকুর খননের প্রস্তুতির প্রতিবাদ জানাতে শুক্রবার বেলা ১১ টার দিকে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে।

নাটোরের গুরুদাসপুরের বিয়াঘাট কুমারখালী উত্তর পাড়া গ্রামের কুমারখালী মৌজায় প্রভাবশালী আব্দুল হাকিম ও আব্দুল মমিন নামে দুই ভাই তাদের পৌত্রিক তিন ফসলী জমির উঠতি ফসল নষ্ট করে এমন অমানবিক পুকুর খননের প্রস্তুতি শুরু করেছেন। তারা একই মহল্লার মৃত সদর উদ্দিন মন্ডলের ছেলে।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া এলাকাবাসী জানান,কুমারখালী উত্তরপাড়া মাঠে অন্তত ২ হাজার বিঘা ফসলি জমি আছে। সেখানে ধান,পাট,ভুট্টা,রসুন, সব ধরনের রবি শষ্যসহ তিনটি ফসল ফলে। প্রভাবশালী দুইভাই পুকুর খনন করলে মাঠে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবে। পানি জমে ফসল উৎপাদন ব্যাহত হবে। নিচু জমিতে যাদের বাসা বাড়ি সেখানে পানি উঠবে। দীর্ঘ মেয়াদী ক্ষতির শঙ্কায় ফসলী জমিতে দাঁড়িয়ে ঘন্টাব্যাপী মাবন বন্ধনে অংশ নেন কৃষকরা।

মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভও করেছেন শঙ্কিত কৃষকরা। এলাকাবাসীর পক্ষে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জমসেদ আলী,মুঞ্জুর আলম,সোলায়মান আলী,শাজাহান আলী,আব্দুল কাদের প্রমুখ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা আক্তার জানান, পুকুর খননের প্রস্তুতির প্রতিবাদে কৃষকদের মানববন্ধনের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংবাদ নজরে আসলে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পৌছে তাদের নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। বোর জমিতে সেচের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দুই ভাইকে ফসলী জমিতে পুকুর খননের আইনগত শাস্তির বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

 

বাখ//আর