ঢাকা ০৭:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পাবনায় সম্পত্তি না দেওয়ায় বাবাকে রেখে এলো মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৪৬:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২
  • / ৪৫৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
আল এহসান হক মাসুক,পাবনা প্রতিনিধি :
পাবনায় সম্পত্তি বৃদ্ধের জীবনের কাল হয়ে দাড়ালো। সম্পত্তির জন্যই বাবাকে রেখে এলো মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে। সন্তানদের এমন হীন কর্মকান্ডে এলাকাবাসির মধ্যে নিন্দার ঝড় উঠেছে। পাবনা সদর উপজেলার গয়েশপুর শালাইপুর গোরস্থান এলাকায় এই অমানবিক ঘটনা ঘটেছে। সম্পত্তি আত্মসাতের উদ্দেশ্যে বৃদ্ধ বাবাকে বেসরকারী মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তির অভিযোগ উঠেছে তার ছেলেদের বিরুদ্ধে। পুত্র ও পুত্রবধূ বৃদ্ধ পিতার কোন দায়িত্ব পালন না করে উল্টো তার উপর একাধিকবার অমানবিক নির্যাতন করেছে বলে অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী সেই বৃদ্ধ। ছেলেদের এমন আমানবিক আচরণে ক্ষুদ্ধ ভুক্তভোগীর মেয়েসহ স্থানীয়রা। বলছি পাবনা সদর উপজেলার গয়েশপুর ইউনিয়নের শালাইপুর গোরস্থান পাড়া গ্রামের আলহাজ্ব আব্দুল শেখের কথা। দুই ছেলে ও তিন মেয়ের জনক বৃদ্ধ আলহাজ আজিজ শেখ। বৃদ্ধ পিতার ভরণ পোষণের দায়িত্ব না নিলেও পুত্র ও পুত্রবধূরা বিভিন্ন সময় বৃদ্ধ আজিজ শেখকে সম্পত্তি লিখে দিতে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। সম্প্রতি আজিজ শেখ তার নিজ জায়গার একটি গাছ কাটতে গেলে দুই পুত্র আবুল হোসেন ও আবুল কাসেম বঁাধা দেয়। এসময় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ক্ষুদ্ধ আজিজ শেখ গাছসহ জমি বিক্রির হুমকি দিয়ে মেয়ের বাড়িতে চলে যায়। আর এতেই বঁাধে বিপত্তি। পরবর্তীতে মেয়ের বাড়ি থেকে আজিজ শেখকে গত ১৪ নভেম্বর দুই ছেলে জোরপূর্বক নিয়ে এসে পাবনা সদরে একটি বেসরকারি মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করে। তার পর থেকে সেখানেই অবস্থান করছেন অসহায় এই বৃদ্ধ। এতো কিছুর পরেও ছেলেদের প্রতি কোন অভিযোগ নেই অসহায় এই পিতার।
এ বিষয়ে স্থানীয় মোঃ ইসলাম এর সাথে কথা বলে জানা যায়, তিনি এলাকায় শান্তশিষ্ট ও নিতান্তই ভালো মানুষ হিসেবে পরিচিত । সদা হাস্যজ্জল আজিজ শেখ নিয়মিত নামাজ আদায় করেন স্থানীয় মসজিদে।
তার মেয়ে আয়সা খাতুন জানান, আমার বাবা পাগল না। সম্পদ আত্মসাৎ করতেই ছেলেরা এমনটি করেছেন বলে মনে করছি। পিতার প্রতি অবিচারের প্রতিবাদ করায় আমার ভাইয়েরা প্রতিনিয়ত ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। আমরা  দ্রুত বাবাকে উদ্ধারের দাবী করছি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে।
সরেজমিনে বৃদ্ধ আজিজের বাড়িতে গিয়ে দেখা পাওয়া যায় তার ছেলে আবুল হোসেনের । তার কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার বাবার মাথায় সমস্যা হয়েছে। গাছ ও জমি বিক্রির হুমকি দিয়ে মেয়ের বাড়ীতে চলে গিয়েছে। বাবা আগে ভালো ছিলো বর্তমানে তার মাথায় ব্যপক সমস্যা হয়েছে। আমার স্ত্রীকে বিভিন্ন সময় মারধর করে এবং আমাকে মারার জন্য দা বানিয়ে নিয়ে এসেছে। পরে আমরা সবাই মিলে তাকে পাবনা মানসিক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে রেখে এসেছি। আমার বোনরা আমাদের সাথে ঝামেলা করার জন্য আপনাদের এই কথা বলেছে।
এ বিষয়ে গয়েশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন মুতাই জানান, আজিজের ছেলেরা আমার কাছে আসছিলো। তাদের পরিবারের লোকদের ডেকে নিয়ে বসে এর একটা সমাধান করে দিবো ।
বা/খ:জই

নিউজটি শেয়ার করুন

পাবনায় সম্পত্তি না দেওয়ায় বাবাকে রেখে এলো মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে 

আপডেট সময় : ০৯:৪৬:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২
আল এহসান হক মাসুক,পাবনা প্রতিনিধি :
পাবনায় সম্পত্তি বৃদ্ধের জীবনের কাল হয়ে দাড়ালো। সম্পত্তির জন্যই বাবাকে রেখে এলো মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে। সন্তানদের এমন হীন কর্মকান্ডে এলাকাবাসির মধ্যে নিন্দার ঝড় উঠেছে। পাবনা সদর উপজেলার গয়েশপুর শালাইপুর গোরস্থান এলাকায় এই অমানবিক ঘটনা ঘটেছে। সম্পত্তি আত্মসাতের উদ্দেশ্যে বৃদ্ধ বাবাকে বেসরকারী মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তির অভিযোগ উঠেছে তার ছেলেদের বিরুদ্ধে। পুত্র ও পুত্রবধূ বৃদ্ধ পিতার কোন দায়িত্ব পালন না করে উল্টো তার উপর একাধিকবার অমানবিক নির্যাতন করেছে বলে অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী সেই বৃদ্ধ। ছেলেদের এমন আমানবিক আচরণে ক্ষুদ্ধ ভুক্তভোগীর মেয়েসহ স্থানীয়রা। বলছি পাবনা সদর উপজেলার গয়েশপুর ইউনিয়নের শালাইপুর গোরস্থান পাড়া গ্রামের আলহাজ্ব আব্দুল শেখের কথা। দুই ছেলে ও তিন মেয়ের জনক বৃদ্ধ আলহাজ আজিজ শেখ। বৃদ্ধ পিতার ভরণ পোষণের দায়িত্ব না নিলেও পুত্র ও পুত্রবধূরা বিভিন্ন সময় বৃদ্ধ আজিজ শেখকে সম্পত্তি লিখে দিতে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। সম্প্রতি আজিজ শেখ তার নিজ জায়গার একটি গাছ কাটতে গেলে দুই পুত্র আবুল হোসেন ও আবুল কাসেম বঁাধা দেয়। এসময় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ক্ষুদ্ধ আজিজ শেখ গাছসহ জমি বিক্রির হুমকি দিয়ে মেয়ের বাড়িতে চলে যায়। আর এতেই বঁাধে বিপত্তি। পরবর্তীতে মেয়ের বাড়ি থেকে আজিজ শেখকে গত ১৪ নভেম্বর দুই ছেলে জোরপূর্বক নিয়ে এসে পাবনা সদরে একটি বেসরকারি মানসিক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করে। তার পর থেকে সেখানেই অবস্থান করছেন অসহায় এই বৃদ্ধ। এতো কিছুর পরেও ছেলেদের প্রতি কোন অভিযোগ নেই অসহায় এই পিতার।
এ বিষয়ে স্থানীয় মোঃ ইসলাম এর সাথে কথা বলে জানা যায়, তিনি এলাকায় শান্তশিষ্ট ও নিতান্তই ভালো মানুষ হিসেবে পরিচিত । সদা হাস্যজ্জল আজিজ শেখ নিয়মিত নামাজ আদায় করেন স্থানীয় মসজিদে।
তার মেয়ে আয়সা খাতুন জানান, আমার বাবা পাগল না। সম্পদ আত্মসাৎ করতেই ছেলেরা এমনটি করেছেন বলে মনে করছি। পিতার প্রতি অবিচারের প্রতিবাদ করায় আমার ভাইয়েরা প্রতিনিয়ত ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। আমরা  দ্রুত বাবাকে উদ্ধারের দাবী করছি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে।
সরেজমিনে বৃদ্ধ আজিজের বাড়িতে গিয়ে দেখা পাওয়া যায় তার ছেলে আবুল হোসেনের । তার কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার বাবার মাথায় সমস্যা হয়েছে। গাছ ও জমি বিক্রির হুমকি দিয়ে মেয়ের বাড়ীতে চলে গিয়েছে। বাবা আগে ভালো ছিলো বর্তমানে তার মাথায় ব্যপক সমস্যা হয়েছে। আমার স্ত্রীকে বিভিন্ন সময় মারধর করে এবং আমাকে মারার জন্য দা বানিয়ে নিয়ে এসেছে। পরে আমরা সবাই মিলে তাকে পাবনা মানসিক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে রেখে এসেছি। আমার বোনরা আমাদের সাথে ঝামেলা করার জন্য আপনাদের এই কথা বলেছে।
এ বিষয়ে গয়েশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন মুতাই জানান, আজিজের ছেলেরা আমার কাছে আসছিলো। তাদের পরিবারের লোকদের ডেকে নিয়ে বসে এর একটা সমাধান করে দিবো ।
বা/খ:জই