ঢাকা ০৬:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পাকুন্দিয়ায় মায়ের ওপর অভিমান করে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৩:৫০:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৭৭০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় এক স্কুল ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ওই ছাত্রীর নাম জেরিন (১৬)। সে উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের মিরদী গ্রামের মৃত আলাউদ্দিনের মেয়ে এবং মঠখোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে আজ রবিবার দুপুরে পাকুন্দিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

তার চাচাত ভাই মো. মাহবুবুর রহমান জানান, জেরিন রাতে তার অসুস্থ্য মাকে ঔষধ সেবন করিয়ে নিজ পড়ার ঘরে গিয়ে ধরনার সাথে ওড়না দিয়ে ফাঁস নেয়। রাত সাড়ে ১১ টার দিকে মা তার কোন সাড়া শব্দ না পাওয়ায় ওই ঘরের দরজায় গিয়ে ধাক্কা দেয়। এরপরও কোনো সাড়া না পাওয়ায় চিৎকার করতে থাকে তার মা। পরে প্রতিবেশীরা এসে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুলে মেয়েটিকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। খবর পেয়ে রাত ২টার দিকে পাকুন্দিয়া থানাধীন আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন।

আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মো. আছাদুজ্জামান পরিবারের বরাদ দিয়ে বলেন, শুনেছি সংসারের নানা বিষয় নিয়ে ওই দিন বিকেলে মেয়েটিকে নাকি তার মা বকাঝকা করেছিলেন। এ কারণেই হয়তবা সে মায়ের সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পাকুন্দিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আছাদুজ্জামান টিটু বলেন, আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট করেছেন। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় বিশেষ অনুরোধে লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

পাকুন্দিয়ায় মায়ের ওপর অভিমান করে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ০৩:৫০:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় এক স্কুল ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ওই ছাত্রীর নাম জেরিন (১৬)। সে উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের মিরদী গ্রামের মৃত আলাউদ্দিনের মেয়ে এবং মঠখোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে আজ রবিবার দুপুরে পাকুন্দিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

তার চাচাত ভাই মো. মাহবুবুর রহমান জানান, জেরিন রাতে তার অসুস্থ্য মাকে ঔষধ সেবন করিয়ে নিজ পড়ার ঘরে গিয়ে ধরনার সাথে ওড়না দিয়ে ফাঁস নেয়। রাত সাড়ে ১১ টার দিকে মা তার কোন সাড়া শব্দ না পাওয়ায় ওই ঘরের দরজায় গিয়ে ধাক্কা দেয়। এরপরও কোনো সাড়া না পাওয়ায় চিৎকার করতে থাকে তার মা। পরে প্রতিবেশীরা এসে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুলে মেয়েটিকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। খবর পেয়ে রাত ২টার দিকে পাকুন্দিয়া থানাধীন আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন।

আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মো. আছাদুজ্জামান পরিবারের বরাদ দিয়ে বলেন, শুনেছি সংসারের নানা বিষয় নিয়ে ওই দিন বিকেলে মেয়েটিকে নাকি তার মা বকাঝকা করেছিলেন। এ কারণেই হয়তবা সে মায়ের সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পাকুন্দিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আছাদুজ্জামান টিটু বলেন, আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট করেছেন। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় বিশেষ অনুরোধে লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

 

বাখ//আর