ঢাকা ০৬:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পাকিস্তান-ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ৪৬৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মাথায় রেখে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) থেকে করাচিতে সাত ম্যাচের সিরিজ শুরু করবে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। সর্বশেষ ২০০৫ সালে পাকিস্তান সফর করেছিল ইংলিশরা।

ইংল্যান্ড দলের চলতি সফরটি কোনো প্রকার ঝামেলামুক্ত করতে পারলে পাকিস্তানের মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট পুরোদমে ফিরবে বলে আশা করা হচ্ছে।

২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট দল বহনকারী বাসে সন্ত্রাসী হামলার পর বিদেশি দলগুলো সফরে অস্বীকৃতি জানালে পাকিস্তান তাদের হোম ম্যাচগুলো নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলতে বাধ্য হয়। তবে শেষ কয়েক বছর যাবত ধীরে ধীরে পাকিস্তানের মাটিতে আবারও ফিরছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট।

গত বছর অক্টোবর মাসে ইংল্যান্ড দলের পাকিস্তান সফরের কথা ছিল। তবে নিরাপত্তা শংকায় সফররত নিউজিল্যান্ড দল সিরিজ শুরুর আগ মুহূর্তে দেশে ফিরে যাওয়ার পর ইংল্যান্ড তাদের নির্ধারিত সফরটি বাতিল করে।

পাকিস্তান সফর নিরাপদ- পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) কর্তৃক বার বার এমন দাবী করা হলেও ইংল্যান্ডের সফর বাতিল করাকে ‘অসম্মানজনক’ মনে করে পিসিবি। নিউজিল্যান্ড ফিরে যাওয়ার পর আগামী ডিসেম্বরে আবারও টেস্ট সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরের কথা রয়েছে ওয়ানডে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড দলের।

সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজ (৩-২), দক্ষিণ আফ্রিকা (২-১) ভারতের কাছে (২-১) ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারার পর মঙ্গলবার শুরু হওয়া সিরিজ দিয়ে ঘুড়ে দাঁড়াতে চায় সফরকারী ইংল্যান্ড দল।

এদিকে গত সপ্তাহে সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজিত হওয়ার পর ঘুড়ে দাঁড়াতে চায় স্বাগতিক পাকিস্তানও।

দীর্ঘ সময়ের অধিনায়ক ইয়োইন মরগান অবসর নেয়ায় তার কাছ থেকে দায়িত্ব নেয়া ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার কাফ ইনজুরি থেকে সুস্থ হতে লড়াই করছেন। এমনকি এ ইনজুরির কারণে পুরো সিরিজও মিস করতে পারেন বাটলার। কেবলমাত্র সিরিজের শেষ দুই ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা থাকলেও দলের সঙ্গে সফর করাটা গুরুত্বপূর্ণ মনে করা বাটলার বলেন, ‘বিশ্বকাপের জন্য এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি সিরিজ।’

বাটলার আরও বলেন, ‘অবশ্যই দলের সবারই প্রধান লক্ষ্য বিশ্বকাপের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত করা। পাকিস্তান অত্যন্ত শক্তিশালী দল এবং সত্যিকারার্থে তারা আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে।’

বাটলারের অনুপুস্থিতিতে ইংল্যান্ড দলের নেতৃত্ব দেবেন অলাউন্ডার মঈন আলী।

পাকিস্তানের টপ অর্ডার ব্যাটার শান মাসুদের মতে, অসাবধানতার কারণে ড্রাগ পরীক্ষায় তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে পুনরায় দলে ফেরা আগ্রাসী ওপেনার এ্যালেক্স হেলসের অন্তর্ভুক্তি ইংল্যান্ড দলের ব্যাটিং লাইনআপকে উজ্জীবিত করবে।

ইংলিশ টি-টোয়েন্টি ব্লিটজে ডার্বিশায়ারের হয়ে সংক্ষিপ্ত ভার্সনে পাকিস্তান দলে প্রথমবারের মত ডাক পাওয়া মাসুদ বলেন, ‘আমি মনে করি সাদা বলে বিশ্ব সেরা দলগুলোর একটি ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ড আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে এবং বিশ্বকাপের আগে অন্যতম সেরা দলের বিপক্ষে খেলাটা সম্ভবত আমাদের জন্য একটি আদর্শ প্রস্তুতি।’

সিরিজের প্রথম চার ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে করাচিতে আগামী ২০, ২২, ২৩ ও ২৫ সেপ্টেম্বর। পরের তিন ম্যাচ অনুষ্ঠিত লাহোরে যথাক্রমে ২৮, ৩০ সেপ্টেম্বর এবং ২ অক্টোবর। ইংল্যান্ড দলকে একজন রাষ্ট্রপ্রধানের সমান নিরাপত্তা দেয়া হয়েছে, যেমনটা এর আগে অস্ট্রেলিয়াকে দেয়া হয়েছিল।

ম্যাচের দিন স্টেডিয়াম এবং দলকে নিরাপত্তা দেয়ার জন্য পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনীর চার হাজার সদস্য নিয়োজিত থাকবে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। স্টেডিয়ামের অন্তত এক মাইল দূরে দর্শকদের গাড়ি রেখে আসতে হবে এবং তাদের শরীর ও ব্যাগ পরীক্ষার পর বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় শাটল বাসে ভেন্যুতে নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

পাকিস্তান-ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু

আপডেট সময় : ১০:৩৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মাথায় রেখে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) থেকে করাচিতে সাত ম্যাচের সিরিজ শুরু করবে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। সর্বশেষ ২০০৫ সালে পাকিস্তান সফর করেছিল ইংলিশরা।

ইংল্যান্ড দলের চলতি সফরটি কোনো প্রকার ঝামেলামুক্ত করতে পারলে পাকিস্তানের মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট পুরোদমে ফিরবে বলে আশা করা হচ্ছে।

২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট দল বহনকারী বাসে সন্ত্রাসী হামলার পর বিদেশি দলগুলো সফরে অস্বীকৃতি জানালে পাকিস্তান তাদের হোম ম্যাচগুলো নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলতে বাধ্য হয়। তবে শেষ কয়েক বছর যাবত ধীরে ধীরে পাকিস্তানের মাটিতে আবারও ফিরছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট।

গত বছর অক্টোবর মাসে ইংল্যান্ড দলের পাকিস্তান সফরের কথা ছিল। তবে নিরাপত্তা শংকায় সফররত নিউজিল্যান্ড দল সিরিজ শুরুর আগ মুহূর্তে দেশে ফিরে যাওয়ার পর ইংল্যান্ড তাদের নির্ধারিত সফরটি বাতিল করে।

পাকিস্তান সফর নিরাপদ- পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) কর্তৃক বার বার এমন দাবী করা হলেও ইংল্যান্ডের সফর বাতিল করাকে ‘অসম্মানজনক’ মনে করে পিসিবি। নিউজিল্যান্ড ফিরে যাওয়ার পর আগামী ডিসেম্বরে আবারও টেস্ট সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরের কথা রয়েছে ওয়ানডে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড দলের।

সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজ (৩-২), দক্ষিণ আফ্রিকা (২-১) ভারতের কাছে (২-১) ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারার পর মঙ্গলবার শুরু হওয়া সিরিজ দিয়ে ঘুড়ে দাঁড়াতে চায় সফরকারী ইংল্যান্ড দল।

এদিকে গত সপ্তাহে সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজিত হওয়ার পর ঘুড়ে দাঁড়াতে চায় স্বাগতিক পাকিস্তানও।

দীর্ঘ সময়ের অধিনায়ক ইয়োইন মরগান অবসর নেয়ায় তার কাছ থেকে দায়িত্ব নেয়া ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার কাফ ইনজুরি থেকে সুস্থ হতে লড়াই করছেন। এমনকি এ ইনজুরির কারণে পুরো সিরিজও মিস করতে পারেন বাটলার। কেবলমাত্র সিরিজের শেষ দুই ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা থাকলেও দলের সঙ্গে সফর করাটা গুরুত্বপূর্ণ মনে করা বাটলার বলেন, ‘বিশ্বকাপের জন্য এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি সিরিজ।’

বাটলার আরও বলেন, ‘অবশ্যই দলের সবারই প্রধান লক্ষ্য বিশ্বকাপের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত করা। পাকিস্তান অত্যন্ত শক্তিশালী দল এবং সত্যিকারার্থে তারা আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে।’

বাটলারের অনুপুস্থিতিতে ইংল্যান্ড দলের নেতৃত্ব দেবেন অলাউন্ডার মঈন আলী।

পাকিস্তানের টপ অর্ডার ব্যাটার শান মাসুদের মতে, অসাবধানতার কারণে ড্রাগ পরীক্ষায় তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে পুনরায় দলে ফেরা আগ্রাসী ওপেনার এ্যালেক্স হেলসের অন্তর্ভুক্তি ইংল্যান্ড দলের ব্যাটিং লাইনআপকে উজ্জীবিত করবে।

ইংলিশ টি-টোয়েন্টি ব্লিটজে ডার্বিশায়ারের হয়ে সংক্ষিপ্ত ভার্সনে পাকিস্তান দলে প্রথমবারের মত ডাক পাওয়া মাসুদ বলেন, ‘আমি মনে করি সাদা বলে বিশ্ব সেরা দলগুলোর একটি ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ড আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে এবং বিশ্বকাপের আগে অন্যতম সেরা দলের বিপক্ষে খেলাটা সম্ভবত আমাদের জন্য একটি আদর্শ প্রস্তুতি।’

সিরিজের প্রথম চার ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে করাচিতে আগামী ২০, ২২, ২৩ ও ২৫ সেপ্টেম্বর। পরের তিন ম্যাচ অনুষ্ঠিত লাহোরে যথাক্রমে ২৮, ৩০ সেপ্টেম্বর এবং ২ অক্টোবর। ইংল্যান্ড দলকে একজন রাষ্ট্রপ্রধানের সমান নিরাপত্তা দেয়া হয়েছে, যেমনটা এর আগে অস্ট্রেলিয়াকে দেয়া হয়েছিল।

ম্যাচের দিন স্টেডিয়াম এবং দলকে নিরাপত্তা দেয়ার জন্য পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনীর চার হাজার সদস্য নিয়োজিত থাকবে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। স্টেডিয়ামের অন্তত এক মাইল দূরে দর্শকদের গাড়ি রেখে আসতে হবে এবং তাদের শরীর ও ব্যাগ পরীক্ষার পর বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় শাটল বাসে ভেন্যুতে নেয়া হবে।