ঢাকা ০৪:৫৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পদত্যাগ করলেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৮:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৮২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

দীর্ঘদিন ধরে লেবাননে চলা অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে পদত্যাগ করেলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। ৮৯ বছর বয়সী খ্রিস্টান এ প্রেসিডেন্ট রোববার (৩০ অক্টোবর) পদত্যাগের ঘোষণা দেন। পদত্যাগের পর পরই তিনি প্রেসিডেন্ট প্যালেস ত্যাগ করেন।

২০১৬ সালে লেবাননের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন মিশেল আউন। সেসময় সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ এবং প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যারোনাইট খ্রিস্টান রাজনীতিবিদ সামির গেগা উভয়ের মধ্যকার একটি চুক্তিতে তাকে এই পদে সমর্থন করা হয়েছিল। আর সেই চুক্তির ফলে তৎকালীন নেতৃস্থানীয় সুন্নি রাজনীতিবিদ সাদ আল-হারিরি লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদে এসেছিলেন।

এদিকে, প্রেসিডেন্টের পদ থেকে মিশেল আউনের পদত্যাগের পর দায়িত্বপালনের জন্য এখনও পর্যন্ত উত্তরসূরির বিষয়ে একমত হতে পারেনি লেবাননের পার্লামেন্ট। সাংবিধানিকভাবে লেবাননের প্রেসিডেন্টের কোনো বিলে স্বাক্ষর করে আইনে পরিণত করার, নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করার এবং কোনো দলকে সরকার গঠনের বিষয়ে সবুজ সংকেত দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে।

বর্তমানে লেবাননে একটি তত্বাবধায়ক সরকার দেশটি পরিচালনা করছে। গত ছয় মাস ধরে নতুন সরকার গঠনের চেষ্টা চলছে। দলগুলোর মধ্যে মতবিরোধ থাকায় এখনও স্থিতিশীলতা ফেরেনি লেবাননে। সূত্র : রয়টার্স।

 

 

নিউজটি শেয়ার করুন

পদত্যাগ করলেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট

আপডেট সময় : ০৭:৪৮:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

দীর্ঘদিন ধরে লেবাননে চলা অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে পদত্যাগ করেলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। ৮৯ বছর বয়সী খ্রিস্টান এ প্রেসিডেন্ট রোববার (৩০ অক্টোবর) পদত্যাগের ঘোষণা দেন। পদত্যাগের পর পরই তিনি প্রেসিডেন্ট প্যালেস ত্যাগ করেন।

২০১৬ সালে লেবাননের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন মিশেল আউন। সেসময় সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ এবং প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যারোনাইট খ্রিস্টান রাজনীতিবিদ সামির গেগা উভয়ের মধ্যকার একটি চুক্তিতে তাকে এই পদে সমর্থন করা হয়েছিল। আর সেই চুক্তির ফলে তৎকালীন নেতৃস্থানীয় সুন্নি রাজনীতিবিদ সাদ আল-হারিরি লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদে এসেছিলেন।

এদিকে, প্রেসিডেন্টের পদ থেকে মিশেল আউনের পদত্যাগের পর দায়িত্বপালনের জন্য এখনও পর্যন্ত উত্তরসূরির বিষয়ে একমত হতে পারেনি লেবাননের পার্লামেন্ট। সাংবিধানিকভাবে লেবাননের প্রেসিডেন্টের কোনো বিলে স্বাক্ষর করে আইনে পরিণত করার, নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করার এবং কোনো দলকে সরকার গঠনের বিষয়ে সবুজ সংকেত দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে।

বর্তমানে লেবাননে একটি তত্বাবধায়ক সরকার দেশটি পরিচালনা করছে। গত ছয় মাস ধরে নতুন সরকার গঠনের চেষ্টা চলছে। দলগুলোর মধ্যে মতবিরোধ থাকায় এখনও স্থিতিশীলতা ফেরেনি লেবাননে। সূত্র : রয়টার্স।