ঢাকা ১০:০৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

নৌকার বাহিরে কেউ আওয়ামী লীগ না : রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম

মোঃ জামাল হোসেন, শাহরাস্তি প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:৩৬:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৪৬২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মহান মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর কমান্ডার, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, চাঁদপুর-৫ (শাহরাস্তি-হাজীগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম বলেছেন, নৌকার বাহিরে কেউ আওয়ামী লীগ না। নৌকা প্রতীকের বাহিরে কেউ যদি নিজেকে আওয়ামী লীগ বলে তবে সে বেঈমান মোনাফেক ও বিশ্বাসঘাতক। এরা খন্দকার মোশতাকার রক্ত, কারণ আওয়ামী লীগ নৌকার বাইরে যেতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী ২০ তারিখে সিলেটের জনসভায় দ্যার্থহীনভাবে সবাইকে বলেছেন আপনারা আমার প্রার্থীকে নৌকায় ভোট দিন। অন্য কোন প্রতীকের কথা প্রধানমন্ত্রী বলেন নাই। অন্য কোন প্রতীক আওয়ামী লীগের নয়, আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকা।

তিনি বলেন, আপনারা ৭০ এর নির্বাচনে নৌকাকে ভোট দিয়েছেন। ৭১ এ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এ দেশকে স্বাধীন করেছি। এই দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর স্কুল, কলেজ, ফায়ার সার্ভিস, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, প্রতিবন্ধি ভাতা, টিসিবি, স্বল্প মূল্যে চাল বিতরণ সহ আরও নানা কাজে আওয়ামী লীগ সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন করেছে। নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ জয়ী হলেই দেশে এতো উন্নয়ন সম্ভব হচ্ছে। এই আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই কাঁচা রাস্তা পাকা করণ হয়েছে। হাসপাতালের সেবার মান উন্নয়ন হয়েছে।

আমার নির্বাচনী আসনের শাহরাস্তি ও হাজীগঞ্জ সরকারী হাসপাতাল ৫০ শয্যা থেকে ১০০ শয্যায় উন্নিত করার জন্য আমি মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছি। সংসদে আমি বক্তব্য দিয়েছিলাম, ভাতা ৫০০ টাকা দিয়ে গরীবদের কিছুই হয় না, বরং ২০০০ টাকা করে দিলে প্রকৃত ভাতা ভোগীরা সত্যিকারের উপকৃত হবে। আবার নির্বাচিত হলে আমি এই বিষয়টি নিয়ে আবার সংসদে আলোচনা করবো। যারা গরীব ও অসহায় তাদের চিকিৎসা খরচ দেশের সকল হাসপাতালে বিনা মূল্যে করার জন্য আমি সংসদে বলেছি। আমি আবার সংসদে গেলে বিষয়টি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবার আবদার করবো।

মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী শাহরাস্তি উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ও দক্ষিণ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে পথসভায় তিনি এসব কথা বলেছেন।

ওইদিন তিনি রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের বিজয়পুর, নাহারা, খিলা বাজার, বেরনাইয়া, ও রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের চন্ডিপুর, উল্যাশ্বর, রায়শ্রী, উনকিলা, শাহরাস্তি বাজার এলাকায় পথসভা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ নিমাই চন্দ্র পাল, সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ আঃ রাজ্জাক, রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম মাসুদ, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন মিজান, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ মোশারফ হোসেনসহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

নৌকার বাহিরে কেউ আওয়ামী লীগ না : রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম

আপডেট সময় : ১২:৩৬:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩

মহান মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর কমান্ডার, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, চাঁদপুর-৫ (শাহরাস্তি-হাজীগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম বলেছেন, নৌকার বাহিরে কেউ আওয়ামী লীগ না। নৌকা প্রতীকের বাহিরে কেউ যদি নিজেকে আওয়ামী লীগ বলে তবে সে বেঈমান মোনাফেক ও বিশ্বাসঘাতক। এরা খন্দকার মোশতাকার রক্ত, কারণ আওয়ামী লীগ নৌকার বাইরে যেতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী ২০ তারিখে সিলেটের জনসভায় দ্যার্থহীনভাবে সবাইকে বলেছেন আপনারা আমার প্রার্থীকে নৌকায় ভোট দিন। অন্য কোন প্রতীকের কথা প্রধানমন্ত্রী বলেন নাই। অন্য কোন প্রতীক আওয়ামী লীগের নয়, আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকা।

তিনি বলেন, আপনারা ৭০ এর নির্বাচনে নৌকাকে ভোট দিয়েছেন। ৭১ এ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এ দেশকে স্বাধীন করেছি। এই দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর স্কুল, কলেজ, ফায়ার সার্ভিস, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, প্রতিবন্ধি ভাতা, টিসিবি, স্বল্প মূল্যে চাল বিতরণ সহ আরও নানা কাজে আওয়ামী লীগ সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন করেছে। নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ জয়ী হলেই দেশে এতো উন্নয়ন সম্ভব হচ্ছে। এই আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই কাঁচা রাস্তা পাকা করণ হয়েছে। হাসপাতালের সেবার মান উন্নয়ন হয়েছে।

আমার নির্বাচনী আসনের শাহরাস্তি ও হাজীগঞ্জ সরকারী হাসপাতাল ৫০ শয্যা থেকে ১০০ শয্যায় উন্নিত করার জন্য আমি মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছি। সংসদে আমি বক্তব্য দিয়েছিলাম, ভাতা ৫০০ টাকা দিয়ে গরীবদের কিছুই হয় না, বরং ২০০০ টাকা করে দিলে প্রকৃত ভাতা ভোগীরা সত্যিকারের উপকৃত হবে। আবার নির্বাচিত হলে আমি এই বিষয়টি নিয়ে আবার সংসদে আলোচনা করবো। যারা গরীব ও অসহায় তাদের চিকিৎসা খরচ দেশের সকল হাসপাতালে বিনা মূল্যে করার জন্য আমি সংসদে বলেছি। আমি আবার সংসদে গেলে বিষয়টি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবার আবদার করবো।

মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী শাহরাস্তি উপজেলার রায়শ্রী উত্তর ও দক্ষিণ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে পথসভায় তিনি এসব কথা বলেছেন।

ওইদিন তিনি রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের বিজয়পুর, নাহারা, খিলা বাজার, বেরনাইয়া, ও রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের চন্ডিপুর, উল্যাশ্বর, রায়শ্রী, উনকিলা, শাহরাস্তি বাজার এলাকায় পথসভা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ নিমাই চন্দ্র পাল, সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ আঃ রাজ্জাক, রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম মাসুদ, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন মিজান, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ মোশারফ হোসেনসহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

 

বাখ//আর