ঢাকা ০৭:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

নেছারাবাদে উপজেলা প্রশাসনের নাম করে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে চাদাবাজির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৭:১০:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ ২০২৪
  • / ৪৪১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
নেছারাবাদে উপজেলা প্রশাসনের নাম করে স্বাধীনতা দিবস পালনে চাদাবাজী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মিয়ারহাট বাজার কমিটির কয়েকজন সদস্যসহ প্রভাবশালী ব্যবসায়িরা ভিবিন্ন দোকান থেকে উপজেলা ওই চাদা তুলেছেন। মিয়ারহাট বাজারের সাতশ’ দোকান থেকে মোট এক লাখ চল্লিশ হাজার টাকা চাঁদা নিয়েছেন তারা। এভাবে প্রশাসনের নাম করে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে চাদা নিয়ে আত্মসাৎ করায় প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দেয়া হয়েছে। বাজারের ভুক্তভোগী গামেন্টস ব্যবসায়ি মো: বাদশা মিয়া বুধবার বিকেলে নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মনিরুজ্জামান বরাবর ওই অভিযোগ জমা দিয়েছেন।
অভিযোগে ব্যবসায়ি বাদশা মিয়া বলেন, গত ২০২৩ সাল থেকে স্বাধীনতা দিবসের কয়েকদিন পূর্বে এবং চলতি বছরের স্বাধীনতা দিবসের পূর্বে মিয়ারহাট বাজারের দোকানগুলোসহ তার নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাজার কমিটির কতিপয় সদস্য ও ব্যবসায়ী মোঃ আমির হোসেন,মোঃ আজিম, মোঃরুবেল, মোঃ মোশাররফ হাজিসহ কয়েকজন উপজেলা প্রশাসনের নাম করে স্বাধীনতা দিবস পালনে চাঁদা চাইতে আসে। প্রসাশনের কথা শোনার পর তিনি তাদেরকে একশ টাকা চাদা দেন। এ সময় তারা আরো দাবী করে। তিনি আর টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় তারা অন্যত্র দোকানে চলে যায়। এভাবে তারা বাজারের সাত শতাধিক দোকানের বেশিরভাগ দোকান থেকে উপজেলা প্রশাসনের নাম করে একশ  করে টাকা নিয়েছে। আমি পরবর্তিতে জানতে পারি উপজেলা প্রশাসন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার জন্য বাজার কমিটিকে এমন কোনো আদেশ দেয়নি। এমনকি এরা টাকা তুলে বাজার কমিটির অফিসেও স্বাধীনতা দিবসের জন্য কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করেনি। ব্যবসায়ি বাদশা মিয়ার দাবি, টাকা তুলে বাজার কমিটির কতিপয় লোক সহ প্রভাবশালীরা আত্মসাৎ করেছে।
মিয়ারহাট বাজার কমিটির সভাপতি ও সুটিয়াকাঠি ইউপি চেয়ারম্যান মো: রুহুল আমীন অসীম জানান, “কারা টাকা উঠিয়েছে তা আমার জানা নেই। বাজার কমিটির ক্যাসিয়ার জানে। তিনি আরো বলেন, বাজারের কারো কাছ থেকে জোড় করে টাকা নেয়া হয়নি। যে যা দিয়েছে তা নেয়া হয়েছে। সবার টাকা ফেরৎ দেয়া হবে”।
নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মনিরুজ্জামান জানান, এ বিষয়ে হাতে একটি অভিযোগ পেয়েছি। এক সদস্য তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। তিনি বলেন, মহান স্বাধীনতা দিবস পালনে বাজার কমিটির সভাপতি, সাধারন সম্পাদক ডেকে বলা হয়েছিল, স্বাধীনতা দিবস পালনে সরকারি বাজেট কম। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা, ক্রেস্টসহ অনেক খরচ হয়। তাই আপনারা যদি ইচ্ছুক থাকেন তাহলে সাধ্যনুযায়ি অনুষ্ঠান পালনে একটু সহযোগীতা করতে পারেন। পরে তারা আমাদের পচিশ হাজার টাকা দিয়েছে। আমরা বাজার কমিটির ওই সভাপতি সম্পাদক ডেকে তাদের টাকা ফেরৎ পাঠানোর ব্যবস্থা করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

নেছারাবাদে উপজেলা প্রশাসনের নাম করে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে চাদাবাজির অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৭:১০:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ ২০২৪
নেছারাবাদে উপজেলা প্রশাসনের নাম করে স্বাধীনতা দিবস পালনে চাদাবাজী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মিয়ারহাট বাজার কমিটির কয়েকজন সদস্যসহ প্রভাবশালী ব্যবসায়িরা ভিবিন্ন দোকান থেকে উপজেলা ওই চাদা তুলেছেন। মিয়ারহাট বাজারের সাতশ’ দোকান থেকে মোট এক লাখ চল্লিশ হাজার টাকা চাঁদা নিয়েছেন তারা। এভাবে প্রশাসনের নাম করে ব্যবসায়িদের কাছ থেকে চাদা নিয়ে আত্মসাৎ করায় প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দেয়া হয়েছে। বাজারের ভুক্তভোগী গামেন্টস ব্যবসায়ি মো: বাদশা মিয়া বুধবার বিকেলে নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মনিরুজ্জামান বরাবর ওই অভিযোগ জমা দিয়েছেন।
অভিযোগে ব্যবসায়ি বাদশা মিয়া বলেন, গত ২০২৩ সাল থেকে স্বাধীনতা দিবসের কয়েকদিন পূর্বে এবং চলতি বছরের স্বাধীনতা দিবসের পূর্বে মিয়ারহাট বাজারের দোকানগুলোসহ তার নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাজার কমিটির কতিপয় সদস্য ও ব্যবসায়ী মোঃ আমির হোসেন,মোঃ আজিম, মোঃরুবেল, মোঃ মোশাররফ হাজিসহ কয়েকজন উপজেলা প্রশাসনের নাম করে স্বাধীনতা দিবস পালনে চাঁদা চাইতে আসে। প্রসাশনের কথা শোনার পর তিনি তাদেরকে একশ টাকা চাদা দেন। এ সময় তারা আরো দাবী করে। তিনি আর টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় তারা অন্যত্র দোকানে চলে যায়। এভাবে তারা বাজারের সাত শতাধিক দোকানের বেশিরভাগ দোকান থেকে উপজেলা প্রশাসনের নাম করে একশ  করে টাকা নিয়েছে। আমি পরবর্তিতে জানতে পারি উপজেলা প্রশাসন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার জন্য বাজার কমিটিকে এমন কোনো আদেশ দেয়নি। এমনকি এরা টাকা তুলে বাজার কমিটির অফিসেও স্বাধীনতা দিবসের জন্য কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করেনি। ব্যবসায়ি বাদশা মিয়ার দাবি, টাকা তুলে বাজার কমিটির কতিপয় লোক সহ প্রভাবশালীরা আত্মসাৎ করেছে।
মিয়ারহাট বাজার কমিটির সভাপতি ও সুটিয়াকাঠি ইউপি চেয়ারম্যান মো: রুহুল আমীন অসীম জানান, “কারা টাকা উঠিয়েছে তা আমার জানা নেই। বাজার কমিটির ক্যাসিয়ার জানে। তিনি আরো বলেন, বাজারের কারো কাছ থেকে জোড় করে টাকা নেয়া হয়নি। যে যা দিয়েছে তা নেয়া হয়েছে। সবার টাকা ফেরৎ দেয়া হবে”।
নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মনিরুজ্জামান জানান, এ বিষয়ে হাতে একটি অভিযোগ পেয়েছি। এক সদস্য তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। তিনি বলেন, মহান স্বাধীনতা দিবস পালনে বাজার কমিটির সভাপতি, সাধারন সম্পাদক ডেকে বলা হয়েছিল, স্বাধীনতা দিবস পালনে সরকারি বাজেট কম। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা, ক্রেস্টসহ অনেক খরচ হয়। তাই আপনারা যদি ইচ্ছুক থাকেন তাহলে সাধ্যনুযায়ি অনুষ্ঠান পালনে একটু সহযোগীতা করতে পারেন। পরে তারা আমাদের পচিশ হাজার টাকা দিয়েছে। আমরা বাজার কমিটির ওই সভাপতি সম্পাদক ডেকে তাদের টাকা ফেরৎ পাঠানোর ব্যবস্থা করছি।