শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:১৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
রোহিঙ্গা ও তাদের আশ্রয়দাতাদের চাহিদা পূরণে পাশে আছে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ভেন্যু নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব শুক্রবার কেটে যাবে: হারুন ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার ম্যাচের দিন ঝড়বৃষ্টির শঙ্কা চিকিৎসকরা উপজেলায় যেতে চান না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সচিবরা নিজেদের রাজা মনে করেন: হাইকোর্ট বিএনপি চায় কমলাপুর স্টেডিয়াম, ডিএমপি বলছে বাঙলা কলেজ নারী শিক্ষার প্রসারে বেগম রোকেয়ার অবদান অন্তহীন প্রেরণার উৎস: প্রধানমন্ত্রী ‘বিয়ে’ করছেন শুভ-অন্তরা! দুজনেরই সিদ্ধান্ত বিয়ে করব না: নুসরাত ফারিয়া স্পিকারের সঙ্গে চীন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ হাসপাতালে রোগীদের বারবার একই টেস্ট বন্ধ কর‍তে হবে : মেয়র আতিক নয়াপল্টনে ‘সহিংসতা’র সুষ্ঠু তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র ফখরুল সাহেব, হুঁশ হারাবেন না, অবস্থা শিশুবক্তার মতো হবে: হানিফ রাঙ্গাবালীতে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ  সাঁথিয়ায় অটোবাইক চাপায় প্রাণ গেল শিশুর

নীলক্ষেতের অবৈধ দোকান ভাঙা হচ্ছে

নীলক্ষেতের অবৈধ দোকান ভাঙা হচ্ছে
ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 
রাজধানীর নীলক্ষেত রোড সাইড মার্কেটের অবৈধ দোকান উচ্ছেদে কাজ শুরু করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। মার্কেটের ১৪৮টি দোকান ভাঙা হবে। সেই সঙ্গে ভাঙা হবে নিচতলার নকশাবহির্ভূত পেছনের অংশ এবং ফুটপাতের ওপর গড়ে তোলা কার্নিস।

রোববার (৬ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়।

যার কারণে বৈধ দোকানগুলোও বন্ধ রাখা হয়েছে। ঠিক কবে নাগাদ ভাঙা অংশ সংস্কার করে দোকান করা যাবে তা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বলে দোকানিরা জানিয়েছেন। আগামীকাল সোমবারও অভিযান পরিচালনার কথা রয়েছে।

ডিএসসিসি জানান, প্রথম দিনের মতো অভিযান পরিচালনা করবেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনিরুজ্জামান। এছাড়াও পরবর্তীদিন অভিযান চালাবেন এক্সিকিউটিভ ম্যাসিস্ট্রেট আফিফা খান।
এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনিরুজ্জামান বলেন, অবৈধ দোকানগুলো ভাঙার জন্য আজকে অভিযান শুরু হলো। আগামীকালও অভিযান অব্যাহত থাকবে। কবে নাগাদ পরিপূর্ণভাবে অবৈধ স্থাপনা গুলোর আবর্জনা অপসারণ করা যাবে সেটি এখন বলা যাচ্ছে না।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানিদের জন্য কোনো ব্যবস্থা নেবে কিনা সিটি কর্পোরেশন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার দায়িত্ব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা। বাকি বিষয় সিটি কর্পোরেশন জানে।

জানা যায়, মার্কেটটির দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলার নকশাবহির্ভূত এসব দোকান বরাদ্দের নামে হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে কোটি কোটি টাকা। বারবার উদ্যোগ নেওয়া হলেও অজ্ঞাত কারণে ভাঙা যায়নি এসব দোকান। সবশেষ সিটি করপোরেশন এগুলো ভাঙার উদ্যোগ নেয়।

দেখা যায়, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় তলার পাশাপাশি মালামাল সরিয়েছেন নিচ তলার দোকানিরাও। এ বিষয়ে দোকানিরা জানান, নিচতলার পেছনের কিছু অংশ ভাঙা হবে। এছাড়াও সামনে প্রায় চার ফুট কার্নিস ভাঙা হবে বলে সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে।

দোকানিদের দাবি, সিটি করপোরেশন অনেকটা জেদের বশেই দোকানগুলো ভাঙছে। এর কারণে বিনিয়োগকারীদের মোটা অঙ্কের আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি অনেকের ব্যবসা বন্ধের উপক্রম হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *