ঢাকা ০৭:০৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

নিজ এলাকায় ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ

আছাদুজ্জামান খন্দকার, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০২:৩২:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৫০১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজ এলাকা কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় জনগণের ভালোবাসা আর ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ নুরুল হক।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পাওয়ায় এলাকাবাসির পক্ষ থেকে তাঁকে এ ফুলেল শুভেচ্ছা দেওয়া হয়।
শুক্রবার (১২ এপ্রিল) পাকুন্দিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে পাকুন্দিয়া-কটিয়াদি উপজেলার গণ সংবর্ধনা কমিটি এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানটি বিকেল পাঁচটা থেকে শুরু হয়ে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত চলে।
অনুষ্ঠানের আহবায়ক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার মিজবাহ উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান, পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত ডিআইজি আব্দুল কাহার আকন্দ, কিশোরগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য দিলারা বেগম, পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আসাদ উল্লাহ, আন্তর্জাতিক যোদ্ধা অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর এডভোকেট মো. মুখলেছুর রহমান বাদল, পাকুন্দিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. কফিল উদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট আবু নাসের ফারুক সঞ্জু, নাক, কান ও গলা বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আব্দুস সামাদ, হোসেন্দী ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাদীউল ইসলাম হাদী প্রমুখ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ নুরুল হক শুধু পাকুন্দিয়ার গর্ব নন। তিনি কিশোরগঞ্জ জেলা তথা গোটা বাংলাদেশের গর্ব।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়ে শুধু তাঁকেই আলোকিত করেননি। তিনি গোটা পাকুন্দিয়া তথা কিশোরগঞ্জ বাসীকে আলোকিত করেছেন, ধন্য করেছেন। তাই আমরা পাকুন্দিয়া তথা কিশোরগঞ্জবাসীর পক্ষ থেকে তাঁকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। আমরা তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ।

অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ বলেন, আপনারা আামাকে আজকে যে নাগরিক সংবর্ধনা দিয়েছেন, আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। এতে আমি খুবই গর্বিত, আনন্দে আপ্লুত। তবে আমি মনে করি জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা  প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁকেই আপনারা এ সংবর্ধনা দিয়েছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে এই বাংলাদেশটাকে বিশ্বের দরবারে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। এ দেশ এখন বিশ্বের দরবারে একটি রোল মডেল। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী খুব আশা করে আমাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। আমি তাঁর প্রতি চির কৃতজ্ঞ।  প্রধানমন্ত্রীর এই আশা পূরণ করতে আমার যা যা করার সবই করে যাব। আমি ওয়াদাবদ্ধ। এই প্রতিষ্ঠানে কোন অনিয়ম ও দুর্নীতি হতে দেবনা। একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান যদি সৎ থাকে তাহলে এই প্রতিষ্ঠান উন্নত হবেই। আমি চাই এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মান উন্নয়ন, গবেষণার মান উন্নয়ন ও সেবার মান উন্নয়ন হোক। এই প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড় করানোর জন্য যা যা করার সবই করে যাব আমি। কারণ  প্রধানমন্ত্রী আমার পাশে রয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে সম্মান দিয়েছেন তাঁর মূল্য দিতে আমার জীবন দিয়ে হলেও চেষ্টা করে যাব ইনশাল্লাহ।

অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ নুরুল হক গত ২৮ মার্চ বিএসএমএমইউ’র উপাচার্যের দায়িত্ব নিয়েছেন। তাঁর জন্মস্থান কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার হোসেন্দী গ্রামে। তিনি পাকুন্দিয়া এলাকায় মানুষের কাছে ‘ননী ডাক্তার’ নামে পরিচিত। অত্র অঞ্চলের সবাই তাঁকে ননী ডাক্তার হিসেবেই চিনেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিজ এলাকায় ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ

আপডেট সময় : ০২:৩২:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

নিজ এলাকা কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় জনগণের ভালোবাসা আর ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ নুরুল হক।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পাওয়ায় এলাকাবাসির পক্ষ থেকে তাঁকে এ ফুলেল শুভেচ্ছা দেওয়া হয়।
শুক্রবার (১২ এপ্রিল) পাকুন্দিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে পাকুন্দিয়া-কটিয়াদি উপজেলার গণ সংবর্ধনা কমিটি এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানটি বিকেল পাঁচটা থেকে শুরু হয়ে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত চলে।
অনুষ্ঠানের আহবায়ক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার মিজবাহ উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান, পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত ডিআইজি আব্দুল কাহার আকন্দ, কিশোরগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য দিলারা বেগম, পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আসাদ উল্লাহ, আন্তর্জাতিক যোদ্ধা অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর এডভোকেট মো. মুখলেছুর রহমান বাদল, পাকুন্দিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. কফিল উদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট আবু নাসের ফারুক সঞ্জু, নাক, কান ও গলা বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আব্দুস সামাদ, হোসেন্দী ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাদীউল ইসলাম হাদী প্রমুখ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ নুরুল হক শুধু পাকুন্দিয়ার গর্ব নন। তিনি কিশোরগঞ্জ জেলা তথা গোটা বাংলাদেশের গর্ব।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়ে শুধু তাঁকেই আলোকিত করেননি। তিনি গোটা পাকুন্দিয়া তথা কিশোরগঞ্জ বাসীকে আলোকিত করেছেন, ধন্য করেছেন। তাই আমরা পাকুন্দিয়া তথা কিশোরগঞ্জবাসীর পক্ষ থেকে তাঁকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। আমরা তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ।

অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ বলেন, আপনারা আামাকে আজকে যে নাগরিক সংবর্ধনা দিয়েছেন, আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। এতে আমি খুবই গর্বিত, আনন্দে আপ্লুত। তবে আমি মনে করি জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা  প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁকেই আপনারা এ সংবর্ধনা দিয়েছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে এই বাংলাদেশটাকে বিশ্বের দরবারে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। এ দেশ এখন বিশ্বের দরবারে একটি রোল মডেল। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী খুব আশা করে আমাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। আমি তাঁর প্রতি চির কৃতজ্ঞ।  প্রধানমন্ত্রীর এই আশা পূরণ করতে আমার যা যা করার সবই করে যাব। আমি ওয়াদাবদ্ধ। এই প্রতিষ্ঠানে কোন অনিয়ম ও দুর্নীতি হতে দেবনা। একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান যদি সৎ থাকে তাহলে এই প্রতিষ্ঠান উন্নত হবেই। আমি চাই এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মান উন্নয়ন, গবেষণার মান উন্নয়ন ও সেবার মান উন্নয়ন হোক। এই প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড় করানোর জন্য যা যা করার সবই করে যাব আমি। কারণ  প্রধানমন্ত্রী আমার পাশে রয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে সম্মান দিয়েছেন তাঁর মূল্য দিতে আমার জীবন দিয়ে হলেও চেষ্টা করে যাব ইনশাল্লাহ।

অধ্যাপক ডাক্তার দীন মোহাম্মদ নুরুল হক গত ২৮ মার্চ বিএসএমএমইউ’র উপাচার্যের দায়িত্ব নিয়েছেন। তাঁর জন্মস্থান কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার হোসেন্দী গ্রামে। তিনি পাকুন্দিয়া এলাকায় মানুষের কাছে ‘ননী ডাক্তার’ নামে পরিচিত। অত্র অঞ্চলের সবাই তাঁকে ননী ডাক্তার হিসেবেই চিনেন।