ঢাকা ০৫:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ধূমপানের জন্য হাওয়া সিনেমার প্রযোজক ও পরিচালককে নোটিস 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৫১:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৭১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
নিজস্ব প্রতিবেদক :
ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা-২০১৫ ভঙ্গ করে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার করায় “হাওয়” সিনেমার সিনেমার প্রযোজক ও পরিচালককে আইনি নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। শনিবার (২৯ অক্টোবর) ইম্প্রেসিভ কমিউনিকেশনস লিঃ এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক কেএইচ হাসিবুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিৎ করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, “তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা নিষিদ্ধ এবং পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত বিধান ৫ (১) অুনুযায়ী কোন ব্যক্তি-(ঙ) বাংলাদেশে প্রস্তুতকৃত বা লভ্য ও প্রচারিত, বিদেশে প্রস্তুতকৃত কোন সিনেমা, নাটক বা প্রামাণ্য চিত্রে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের দৃশ্য টেলিভিশন, রেডিও, ইন্টারনেট, মঞ্চ অনুষ্ঠান বা অন্য কোন গণমাধ্যমে প্রচার, প্রদর্শন বা বর্ণনা করিবেন না বা করাইবেন না:তবে শর্ত থাকে যে, কোন সিনেমার কাহিনীর প্রয়োজনে অত্যাবশ্যক হইলে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার দৃশ্য রহিয়াছে এইরূপ কোন সিনেমা প্রদর্শনকালে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে লিখিত সতর্কবাণী, বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে, পর্দায় প্রদর্শনপূর্বক উহা প্রদর্শন করা যাইবে।”
আইনের উপরোক্ত অনুচ্ছেদের চরম অবমাননা হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ‘সাম্প্রতিক সময়ের বহুল আলোচিত ও জনপ্রিয় ”হাওয়া” সিনেমায়।  হাওয়া সিনেমার মূল চরিত্র চঞ্চল চৌধুরী দেশের সব শ্রেনীর বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে অনেক বেশি গ্রহনযোগ্য ব্যক্তিত্ব। সিনেমার বিভিন্ন স্থানে অপ্রয়োজনে ধূমপানের যেসব দৃশ্য সংযোযিত হয়েছে তার সাথে ধূমপানের ক্ষতিকর সতর্কবার্তা বিধি অনুযায়ী প্রদান করা হয়নি, যেখানে আইনে স্পষ্ট উল্লেখ আছে যে, সকল গণমাধ্যম, সিনেমা, নাটক বা যে কোন প্রকার ভিডিওচিত্র জনসমক্ষে প্রদর্শনকালে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে লিখিত সতর্কবাণী, বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে, পর্দায় প্রদর্শনপূর্বক উহা প্রদর্শন করা যাবে। দেশের এবং বিশ্বের তামাক বিরোধী সংগঠনগুলোর আশংকা দেশে যাদেরকে আইডল মনে করা হয় এদের এহেন কর্মকাণ্ড তরুণদেরকে তামাক গ্রহণে উৎসাহি করে তুলতে পারে এবং দেশের তরুণ সমাজকে রক্ষার সরকারি ও বেসরকারি তামাক বিরোধী কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হতে পারে। এযাবৎ কাল ধরে উক্ত সিনেমার প্রযোযক ও পরিচালককে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হলেও তারা কোন প্রকার ব্যবস্থা নেননি। এমনকি কোন প্রকার সতর্কবার্তাও সংযোযন করেননি। এমতাবস্থায় তামাক বিরোধী কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করা সময়ের দাবি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

ধূমপানের জন্য হাওয়া সিনেমার প্রযোজক ও পরিচালককে নোটিস 

আপডেট সময় : ১২:৫১:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২
নিজস্ব প্রতিবেদক :
ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা-২০১৫ ভঙ্গ করে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার করায় “হাওয়” সিনেমার সিনেমার প্রযোজক ও পরিচালককে আইনি নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। শনিবার (২৯ অক্টোবর) ইম্প্রেসিভ কমিউনিকেশনস লিঃ এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক কেএইচ হাসিবুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিৎ করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, “তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা নিষিদ্ধ এবং পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত বিধান ৫ (১) অুনুযায়ী কোন ব্যক্তি-(ঙ) বাংলাদেশে প্রস্তুতকৃত বা লভ্য ও প্রচারিত, বিদেশে প্রস্তুতকৃত কোন সিনেমা, নাটক বা প্রামাণ্য চিত্রে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের দৃশ্য টেলিভিশন, রেডিও, ইন্টারনেট, মঞ্চ অনুষ্ঠান বা অন্য কোন গণমাধ্যমে প্রচার, প্রদর্শন বা বর্ণনা করিবেন না বা করাইবেন না:তবে শর্ত থাকে যে, কোন সিনেমার কাহিনীর প্রয়োজনে অত্যাবশ্যক হইলে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার দৃশ্য রহিয়াছে এইরূপ কোন সিনেমা প্রদর্শনকালে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে লিখিত সতর্কবাণী, বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে, পর্দায় প্রদর্শনপূর্বক উহা প্রদর্শন করা যাইবে।”
আইনের উপরোক্ত অনুচ্ছেদের চরম অবমাননা হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ‘সাম্প্রতিক সময়ের বহুল আলোচিত ও জনপ্রিয় ”হাওয়া” সিনেমায়।  হাওয়া সিনেমার মূল চরিত্র চঞ্চল চৌধুরী দেশের সব শ্রেনীর বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে অনেক বেশি গ্রহনযোগ্য ব্যক্তিত্ব। সিনেমার বিভিন্ন স্থানে অপ্রয়োজনে ধূমপানের যেসব দৃশ্য সংযোযিত হয়েছে তার সাথে ধূমপানের ক্ষতিকর সতর্কবার্তা বিধি অনুযায়ী প্রদান করা হয়নি, যেখানে আইনে স্পষ্ট উল্লেখ আছে যে, সকল গণমাধ্যম, সিনেমা, নাটক বা যে কোন প্রকার ভিডিওচিত্র জনসমক্ষে প্রদর্শনকালে তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে লিখিত সতর্কবাণী, বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে, পর্দায় প্রদর্শনপূর্বক উহা প্রদর্শন করা যাবে। দেশের এবং বিশ্বের তামাক বিরোধী সংগঠনগুলোর আশংকা দেশে যাদেরকে আইডল মনে করা হয় এদের এহেন কর্মকাণ্ড তরুণদেরকে তামাক গ্রহণে উৎসাহি করে তুলতে পারে এবং দেশের তরুণ সমাজকে রক্ষার সরকারি ও বেসরকারি তামাক বিরোধী কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হতে পারে। এযাবৎ কাল ধরে উক্ত সিনেমার প্রযোযক ও পরিচালককে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হলেও তারা কোন প্রকার ব্যবস্থা নেননি। এমনকি কোন প্রকার সতর্কবার্তাও সংযোযন করেননি। এমতাবস্থায় তামাক বিরোধী কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করা সময়ের দাবি।’