ঢাকা ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

‘ধারাবাহিক গণতন্ত্র না থাকলে কোনো দেশ উন্নত করতে পারে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৫:৩১:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৫৬৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধারাবাহিক গণতন্ত্র না থাকলে কোনো দেশ উন্নত করতে পারে না। দেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রগতি কেউ দাবিয়ে রাখতে পারবে না। সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) ঢাকা সেনানিবাসে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা এবং ২০২২-২৩ সালে সশস্ত্র বাহিনীর সর্বোচ্চ শান্তিকালীন পদক দেওয়ার অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সশস্ত্র বাহিনীকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আধুনিক প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শুধু ফ্লাইওভার-মেট্রোরেল নয় পুরো দেশের উন্নয়নে কাজ করেছে সরকার। হরতাল-অবরোধ দিয়ে মানুষের জীবনকে শঙ্কায় ফেলা হয়েছে। জনগণের লাশের ওপর পাড়া দিয়ে যারা ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করে তারা অমানবিক।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে কোন দুর্যোগে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছে। সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে প্রধানমন্ত্রী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এসময় সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সদস্য এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে কুশল বিনিময় করেন শেখ হাসিনা। এসময় প্রধানমন্ত্রীর সাথে ছিলেন তিন বাহিনীর প্রধান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনিসহ অনেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

‘ধারাবাহিক গণতন্ত্র না থাকলে কোনো দেশ উন্নত করতে পারে না’

আপডেট সময় : ০৫:৩১:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধারাবাহিক গণতন্ত্র না থাকলে কোনো দেশ উন্নত করতে পারে না। দেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রগতি কেউ দাবিয়ে রাখতে পারবে না। সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) ঢাকা সেনানিবাসে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা এবং ২০২২-২৩ সালে সশস্ত্র বাহিনীর সর্বোচ্চ শান্তিকালীন পদক দেওয়ার অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সশস্ত্র বাহিনীকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আধুনিক প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শুধু ফ্লাইওভার-মেট্রোরেল নয় পুরো দেশের উন্নয়নে কাজ করেছে সরকার। হরতাল-অবরোধ দিয়ে মানুষের জীবনকে শঙ্কায় ফেলা হয়েছে। জনগণের লাশের ওপর পাড়া দিয়ে যারা ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করে তারা অমানবিক।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে কোন দুর্যোগে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছে। সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে প্রধানমন্ত্রী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এসময় সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সদস্য এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে কুশল বিনিময় করেন শেখ হাসিনা। এসময় প্রধানমন্ত্রীর সাথে ছিলেন তিন বাহিনীর প্রধান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনিসহ অনেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।