ঢাকা ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সৎ বাবাসহ গ্রেফতার ২

ধানক্ষেতে পুঁতে রাখা শিশুর লাশ উদ্ধার

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৫:০৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৫২০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলংগায় ধানক্ষেতে পুঁতে রাখা অবস্থায় সানজিদা নামে ৯ বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শিশুটির সৎ বাবা শরিফুল ও প্রতিবেশী হাসমতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার সলঙ্গা থানার ওলিদহ পশ্চিমপাড়া গ্রামের একটি ধান ক্ষেত থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত শিশু সানজিদা খাতুন (৯) আমসড়া গ্রামের শাহিনের মেয়ে।
সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, জরিনা খাতুন ছিলেন শরিফুলের চতুর্থ স্ত্রী। দেড় মাস আগে পারিবারিক দ্বন্দ্বে জরিনা খাতুন বাবার বাড়ি চলে যায়। শরিফুল তাকে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করলেও সে ফেরেনি। একপর্যায়ে সে জরিনার প্রতিবেশী ভাই হাসমতের শরণাপন্ন হন। হাসমত তাকে জরিনার মেয়ে সানজিদাকে অপহরণের পরামর্শ দেয়। এবং মেয়েকে অপহরণ করলেই জরিনা ফিরে আসবে। একপর্যায়ে গত ১০ ফেব্রুয়ারি মাদ্রাসা যাওয়ার পথে শরিফুল ও হাসমত চিপসের প্রলোভন দেখিয়ে সানজিদাকে অপহরণের চেষ্টা করে। এ সময় শিশুটি চিৎকার করলে তাকে গলাটিপে হত্যা করা হয়। পরে ওই রাতে মরদেহটি পাশের একটি ধান ক্ষেতে পুঁতে রাখে তারা।
এনামুল হক আরও বলেন, পরবর্তীতে অনেক খোঁজাখুঁজির পর সানজিদার সন্ধান না পেয়ে ১১ ফেব্রুয়ারি নিহতের নানা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এরপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এই দুজনকে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যার দায় স্বীকার করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যমতে ধান ক্ষেতে পুঁতে রাখা অবস্থায় সানজিদার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ সময় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

সৎ বাবাসহ গ্রেফতার ২

ধানক্ষেতে পুঁতে রাখা শিশুর লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৬:৪৫:০৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলংগায় ধানক্ষেতে পুঁতে রাখা অবস্থায় সানজিদা নামে ৯ বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শিশুটির সৎ বাবা শরিফুল ও প্রতিবেশী হাসমতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার সলঙ্গা থানার ওলিদহ পশ্চিমপাড়া গ্রামের একটি ধান ক্ষেত থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত শিশু সানজিদা খাতুন (৯) আমসড়া গ্রামের শাহিনের মেয়ে।
সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, জরিনা খাতুন ছিলেন শরিফুলের চতুর্থ স্ত্রী। দেড় মাস আগে পারিবারিক দ্বন্দ্বে জরিনা খাতুন বাবার বাড়ি চলে যায়। শরিফুল তাকে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করলেও সে ফেরেনি। একপর্যায়ে সে জরিনার প্রতিবেশী ভাই হাসমতের শরণাপন্ন হন। হাসমত তাকে জরিনার মেয়ে সানজিদাকে অপহরণের পরামর্শ দেয়। এবং মেয়েকে অপহরণ করলেই জরিনা ফিরে আসবে। একপর্যায়ে গত ১০ ফেব্রুয়ারি মাদ্রাসা যাওয়ার পথে শরিফুল ও হাসমত চিপসের প্রলোভন দেখিয়ে সানজিদাকে অপহরণের চেষ্টা করে। এ সময় শিশুটি চিৎকার করলে তাকে গলাটিপে হত্যা করা হয়। পরে ওই রাতে মরদেহটি পাশের একটি ধান ক্ষেতে পুঁতে রাখে তারা।
এনামুল হক আরও বলেন, পরবর্তীতে অনেক খোঁজাখুঁজির পর সানজিদার সন্ধান না পেয়ে ১১ ফেব্রুয়ারি নিহতের নানা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এরপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এই দুজনকে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যার দায় স্বীকার করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যমতে ধান ক্ষেতে পুঁতে রাখা অবস্থায় সানজিদার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ সময় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।