ঢাকা ১২:০২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দ. আফ্রিকার বাঁচামরার ম্যাচ, ওরাই চাপে থাকবে : সাকিব

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২৪:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ অক্টোবর ২০২২
  • / ৪৫৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্পোর্টস ডেস্ক : 
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার টুয়েলভপর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টায় প্রোটিয়াদের মুখোমুখি হবে সাকিব আল হাসানের দল। এর আগে প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জিতে বেশ ফুরফুরে মেজাজেই আছে বাংলাদেশ।

বুধবার (২৬ অক্টোবর) ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান বলেন, এটা আমাদের দুই দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের প্রথম ম্যাচে দুই পয়েন্ট আশা করেছিলো, তাদের জন্য এই ম্যাচটা বাঁচামরার। তারাই চাপে থাকবে।

গত ২৪ অক্টোবর হোবার্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলতে নেমেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। এমনিতেই এই ম্যাচে তারা ছিলো ফেবারিট। বৃষ্টি হলেও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ পুরোপুরিই প্রোটিয়াদের হাতে ছিলো। ৭ ওভারে ৬৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৩ ওভারেই ৫১ রান তুলে ফেলেছিলো টেম্বা বাভুমার দল। এরপরই বৃষ্টিতে ম্যাচটি ভেসে যায়।

সাকিব বলেন, আমরা একটি জয় পেয়ে গেছি। এর মধ্যে আমাদের খেলতে হবে এমন এক মাঠে, যেখানে স্পিনাররা কিছুটা সাহায্য পায়। তাদের বিশ্বমানের খেলোয়াড় আছে। কিন্তু আমরাও সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করবো।

দক্ষিণ আফ্রিকাকে কখনো টি-টোয়েন্টিতে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে সাকিব আত্মবিশ্বাসী, এবার প্রতিপক্ষকে কঠিন পরীক্ষায় ফেলতে পারবে তার দল। সাকিব বলেন, তাদের বিপক্ষে সম্প্রতি আমাদের ভালো কিছু স্মৃতি আছে, অন্য ফরম্যাটে। এটা আমাদের মানসিকভাবে সাহায্য করবে। আমরা খেলা মনে খেলাটা উপভোগ করতে চাই। আমরা মাঠে অনেক বাংলাদেশি সমর্থকও আশা করছি, কারণ সিডনিতে অনেক বাংলাদেশি থাকেন।

সাকিবের কাছে প্রশ্ন করা হয়েছিলো দক্ষিণ আফ্রিকার দুই স্পিনার তাবরাইজ শামসি ও কেশভ মহারাজকে সামলানোর জন্য কোনো বিশেষ প্রস্তুতি বা পরিকল্পনা আছে কি না? উত্তরে সাকিব উদাহরণ টানেন পরীক্ষার আগের রাতের পড়ার। তার মতে, এখন যার যার মতো ঝালাই করে নিলেই হবে।

সাকিব বলেন, (দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনারদের ব্যাপারে) দল হিসেবে আমরা সেভাবে কথা বলে নিইনি। আমাদের যা কথা বলার ছিল সেটি প্রস্তুতির সময়েই বলেছি। এখন কথা বলে খুব বেশি উপকার হবে কি না… এখন যদি বেশি শিখতে যাই এমন অবস্থা হবে পরীক্ষার আগের রাতে পড়ার মতো।

আমার ধারণা আমাদের প্রস্তুতি ভালো আছে। এখন শুধু যার যার মতো রিভিশন দেওয়া দরকার, তার নিজের জায়গা থেকে সে কাজটা করবে। সে তার মতো নিজের গেম প্ল্যান ঠিক করবে এবং কীভাবে প্রতিপক্ষের বোলার-ব্যাটসম্যানকে সামলাবে সেটি তার নিজের ওপর নির্ভর করবে।

এসময় সাকিব জানান, দলের প্রত্যেককে নিজের খেলার ব্যাপারে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া আছে। বলেন, কেউ যদি মনে করে প্রথম বলে গিয়ে চার-ছক্কা মারতে চায়, মারবে। কেউ যদি চায় প্রথম বল বাউন্সার করবে বা ইয়র্কার করবে, করতে পারে। সবার সেই স্বাধীনতা আছে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

দ. আফ্রিকার বাঁচামরার ম্যাচ, ওরাই চাপে থাকবে : সাকিব

আপডেট সময় : ১০:২৪:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ অক্টোবর ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক : 
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার টুয়েলভপর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টায় প্রোটিয়াদের মুখোমুখি হবে সাকিব আল হাসানের দল। এর আগে প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জিতে বেশ ফুরফুরে মেজাজেই আছে বাংলাদেশ।

বুধবার (২৬ অক্টোবর) ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান বলেন, এটা আমাদের দুই দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের প্রথম ম্যাচে দুই পয়েন্ট আশা করেছিলো, তাদের জন্য এই ম্যাচটা বাঁচামরার। তারাই চাপে থাকবে।

গত ২৪ অক্টোবর হোবার্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলতে নেমেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। এমনিতেই এই ম্যাচে তারা ছিলো ফেবারিট। বৃষ্টি হলেও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ পুরোপুরিই প্রোটিয়াদের হাতে ছিলো। ৭ ওভারে ৬৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৩ ওভারেই ৫১ রান তুলে ফেলেছিলো টেম্বা বাভুমার দল। এরপরই বৃষ্টিতে ম্যাচটি ভেসে যায়।

সাকিব বলেন, আমরা একটি জয় পেয়ে গেছি। এর মধ্যে আমাদের খেলতে হবে এমন এক মাঠে, যেখানে স্পিনাররা কিছুটা সাহায্য পায়। তাদের বিশ্বমানের খেলোয়াড় আছে। কিন্তু আমরাও সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করবো।

দক্ষিণ আফ্রিকাকে কখনো টি-টোয়েন্টিতে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে সাকিব আত্মবিশ্বাসী, এবার প্রতিপক্ষকে কঠিন পরীক্ষায় ফেলতে পারবে তার দল। সাকিব বলেন, তাদের বিপক্ষে সম্প্রতি আমাদের ভালো কিছু স্মৃতি আছে, অন্য ফরম্যাটে। এটা আমাদের মানসিকভাবে সাহায্য করবে। আমরা খেলা মনে খেলাটা উপভোগ করতে চাই। আমরা মাঠে অনেক বাংলাদেশি সমর্থকও আশা করছি, কারণ সিডনিতে অনেক বাংলাদেশি থাকেন।

সাকিবের কাছে প্রশ্ন করা হয়েছিলো দক্ষিণ আফ্রিকার দুই স্পিনার তাবরাইজ শামসি ও কেশভ মহারাজকে সামলানোর জন্য কোনো বিশেষ প্রস্তুতি বা পরিকল্পনা আছে কি না? উত্তরে সাকিব উদাহরণ টানেন পরীক্ষার আগের রাতের পড়ার। তার মতে, এখন যার যার মতো ঝালাই করে নিলেই হবে।

সাকিব বলেন, (দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনারদের ব্যাপারে) দল হিসেবে আমরা সেভাবে কথা বলে নিইনি। আমাদের যা কথা বলার ছিল সেটি প্রস্তুতির সময়েই বলেছি। এখন কথা বলে খুব বেশি উপকার হবে কি না… এখন যদি বেশি শিখতে যাই এমন অবস্থা হবে পরীক্ষার আগের রাতে পড়ার মতো।

আমার ধারণা আমাদের প্রস্তুতি ভালো আছে। এখন শুধু যার যার মতো রিভিশন দেওয়া দরকার, তার নিজের জায়গা থেকে সে কাজটা করবে। সে তার মতো নিজের গেম প্ল্যান ঠিক করবে এবং কীভাবে প্রতিপক্ষের বোলার-ব্যাটসম্যানকে সামলাবে সেটি তার নিজের ওপর নির্ভর করবে।

এসময় সাকিব জানান, দলের প্রত্যেককে নিজের খেলার ব্যাপারে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া আছে। বলেন, কেউ যদি মনে করে প্রথম বলে গিয়ে চার-ছক্কা মারতে চায়, মারবে। কেউ যদি চায় প্রথম বল বাউন্সার করবে বা ইয়র্কার করবে, করতে পারে। সবার সেই স্বাধীনতা আছে।