ঢাকা ১২:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০৭:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৬১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ (সোমবার) বিকেলে গণভবনে কাতার সফর উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান। এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‌’মুদ্রাস্ফীতির কারণে অনেক পণ্যের দাম বেড়েছে। অনেক উন্নত দেশ আছে যারা নির্ধারণ করে দিয়েছে একটা পরিবার একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের চেয়ে বেশি পণ্য নিতে পারবে না। আমরা এখনো সে পর্যায়ে যাইনি। রমজানের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের পণ্য আমরা আমদানি করেছি’।

এসময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘রমজানে আমাদের খাদ্যের কোনো অভাব হবে না। এক কোটি মানুষ ন্যায্যমূল্যে চাল, তেল, চিনি, ডাল কিনতে পারবে। একইসাথে যারা একেবারেই অসহায় তাদের বিনামূল্যে খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করা হবে। মানুষের যেন রমজানে কোনো কষ্ট না হয় সেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে’।

সরকার প্রধান বলেন, ‘ইসলাম বলে রমজানে আমাদের কৃচ্ছতা সাধন করতে হবে। আমিও সবাইকে কৃচ্ছতা সাধনের আহ্বান জানাচ্ছি। কেউ পণ্য মজুদ করবেন না। যার যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই কিনুন। খাদ্য নষ্ট করবেন না’। রমজানে যাতে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে থাকে তা নিশ্চিতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী যার যে পরিমাণ জমি আছে তা চাষাবাদ করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘যেখানে যার জমি আছে চাষাবাদের আওতায় আনতে হবে। নিজের চাহিদা নিজে পূরণ করতে হবে’।

নিউজটি শেয়ার করুন

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার

আপডেট সময় : ১১:০৭:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ (সোমবার) বিকেলে গণভবনে কাতার সফর উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান। এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‌’মুদ্রাস্ফীতির কারণে অনেক পণ্যের দাম বেড়েছে। অনেক উন্নত দেশ আছে যারা নির্ধারণ করে দিয়েছে একটা পরিবার একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের চেয়ে বেশি পণ্য নিতে পারবে না। আমরা এখনো সে পর্যায়ে যাইনি। রমজানের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের পণ্য আমরা আমদানি করেছি’।

এসময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘রমজানে আমাদের খাদ্যের কোনো অভাব হবে না। এক কোটি মানুষ ন্যায্যমূল্যে চাল, তেল, চিনি, ডাল কিনতে পারবে। একইসাথে যারা একেবারেই অসহায় তাদের বিনামূল্যে খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করা হবে। মানুষের যেন রমজানে কোনো কষ্ট না হয় সেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে’।

সরকার প্রধান বলেন, ‘ইসলাম বলে রমজানে আমাদের কৃচ্ছতা সাধন করতে হবে। আমিও সবাইকে কৃচ্ছতা সাধনের আহ্বান জানাচ্ছি। কেউ পণ্য মজুদ করবেন না। যার যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই কিনুন। খাদ্য নষ্ট করবেন না’। রমজানে যাতে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে থাকে তা নিশ্চিতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী যার যে পরিমাণ জমি আছে তা চাষাবাদ করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘যেখানে যার জমি আছে চাষাবাদের আওতায় আনতে হবে। নিজের চাহিদা নিজে পূরণ করতে হবে’।