ঢাকা ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দেশে এ মাস জুড়ে থাকবে তাপপ্রবাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০১:১৪:৪০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪৪৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আপাতত গরম কমার কোন সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। রাজশাহী, পাবনা, টাঙ্গাইল জেলাসহ খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এছাড়া চাঁদপুর, মৌলভীবাজার, ঢাকা জেলাসহ রাজশাহী বিভাগের কিছু অংশ ও বরিশাল বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বইছে—তা আরও তিন দিন থাকবে।

দেশে এ মাস জুড়ে থাকবে তাপপ্রবাহ। মে মাসেও একই অবস্থার পূর্বাভাস রয়েছে। চুয়াডাঙ্গা, যশোরসহ কয়েকটি জেলার তাপমাত্রা ৪৪ ডিগ্রি ছাড়াতে পারে- এমন শঙ্কাও ব্যক্ত করেছেন আবহাওয়াবিদরা।

সারাদেশে বইছে তাপপ্রবাহ। দেশের কোথাও মৃদু, কোথাও মাঝারি থেকে তীব্র তাপ প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। গত ১১ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এই তাপ প্রবাহ চলবে মাসব্যপী। গরমের দাপট মে মাসেও থাকবে। তবে সপ্তাহ জুড়ে একটানা না থেকে বৈশাখী ঝড়ো হাওয়ায় তাপমাত্রা ওঠা নামা করবে।

৮ দিন ধরে দেশের বিভিন্ন জায়গার তাপমাত্রা চলছে ৩৬ থেকে ৪২ ডিগ্রি। বঙ্গপোসাগরে জলীয়বাষ্প কমে যাওয়ায় মেঘ কম হচ্ছে। এ কারণে কমেছে বৃষ্টি, বেড়েছে বাতাসের আদ্রতা।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালে দেশের সার্বিক তাপমাত্রা বেড়েছে এক দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এরপর ২০২৪ সালে তা আরো এক ধাপ বেড়ে দাঁড়ায় এক দশমিক ৬ ডিগ্রিতে। জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী, ১৯৮১ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ৪২ বছরে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ৯৮৭ দিন সবচেয়ে উত্তপ্ত ছিলো যশোর।

গত ২৪ ঘণ্টায় চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রার রেকর্ড হয়েছে। এই অঞ্চলে তাপমাত্রা আরো বাড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

তীব্র গরম থেকে উত্তরণের জন্য সারাদেশে কয়েক ঘণ্টার জন্য হলেও টানা বৈশাখী ঝড়ো হাওয়া সহ বৃষ্টির প্রয়োজন। এ বছর বর্ষাতেও গরমের তীব্রতা থাকবে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

এদিকে, আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, আগামী তিন দিন কুমিল্লা, কিশোরগঞ্জ অঞ্চলসহ ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্য জায়গায় অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুন

দেশে এ মাস জুড়ে থাকবে তাপপ্রবাহ

আপডেট সময় : ০১:১৪:৪০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

আপাতত গরম কমার কোন সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। রাজশাহী, পাবনা, টাঙ্গাইল জেলাসহ খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এছাড়া চাঁদপুর, মৌলভীবাজার, ঢাকা জেলাসহ রাজশাহী বিভাগের কিছু অংশ ও বরিশাল বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বইছে—তা আরও তিন দিন থাকবে।

দেশে এ মাস জুড়ে থাকবে তাপপ্রবাহ। মে মাসেও একই অবস্থার পূর্বাভাস রয়েছে। চুয়াডাঙ্গা, যশোরসহ কয়েকটি জেলার তাপমাত্রা ৪৪ ডিগ্রি ছাড়াতে পারে- এমন শঙ্কাও ব্যক্ত করেছেন আবহাওয়াবিদরা।

সারাদেশে বইছে তাপপ্রবাহ। দেশের কোথাও মৃদু, কোথাও মাঝারি থেকে তীব্র তাপ প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। গত ১১ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এই তাপ প্রবাহ চলবে মাসব্যপী। গরমের দাপট মে মাসেও থাকবে। তবে সপ্তাহ জুড়ে একটানা না থেকে বৈশাখী ঝড়ো হাওয়ায় তাপমাত্রা ওঠা নামা করবে।

৮ দিন ধরে দেশের বিভিন্ন জায়গার তাপমাত্রা চলছে ৩৬ থেকে ৪২ ডিগ্রি। বঙ্গপোসাগরে জলীয়বাষ্প কমে যাওয়ায় মেঘ কম হচ্ছে। এ কারণে কমেছে বৃষ্টি, বেড়েছে বাতাসের আদ্রতা।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালে দেশের সার্বিক তাপমাত্রা বেড়েছে এক দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এরপর ২০২৪ সালে তা আরো এক ধাপ বেড়ে দাঁড়ায় এক দশমিক ৬ ডিগ্রিতে। জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী, ১৯৮১ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ৪২ বছরে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ৯৮৭ দিন সবচেয়ে উত্তপ্ত ছিলো যশোর।

গত ২৪ ঘণ্টায় চুয়াডাঙ্গা ও যশোরে ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রার রেকর্ড হয়েছে। এই অঞ্চলে তাপমাত্রা আরো বাড়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

তীব্র গরম থেকে উত্তরণের জন্য সারাদেশে কয়েক ঘণ্টার জন্য হলেও টানা বৈশাখী ঝড়ো হাওয়া সহ বৃষ্টির প্রয়োজন। এ বছর বর্ষাতেও গরমের তীব্রতা থাকবে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

এদিকে, আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, আগামী তিন দিন কুমিল্লা, কিশোরগঞ্জ অঞ্চলসহ ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্য জায়গায় অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।