ঢাকা ১০:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা তৈরির উপর আর্ন্তজাতিক সিম্পোজিয়াম

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:১৩:৫৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৩ নভেম্বর ২০২২
  • / ৪৭৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কমিউিনিটি ইনিশিয়েটিভ সোসাইটি (সিআইএস) এবং এশিয়া প্যাসিফিক অ্যালায়েন্স ফর ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট (এ-প্যাড) যৌথভাবে মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর), ঢাকার একটি হোটেলে ডিজাস্টর রিস্ক ম্যানজমেন্ট অ্যান্ড বিল্ডিং রেজিলিয়েন্স ফর কমিউনিটি, সেফার সোসাইটি” র্শীষক একটি আর্ন্তজাতিক সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করে।

সিআইএস “ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রকল্প” নামে যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে তার সাথে সম্পর্ক রেখেই সিম্পোযি়য়ামটি আয়োজন করে। এ-প্যাড বাংলাদেশের স্থানীয় অংশীদার, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেসরকারী সেক্টরসমূহের সমন্বয়ে সিম্পোজিয়ামটি অনুষ্ঠিত হয় । সিআইএস এবং এ-প্যাড যৌথভাবে “বাংলাদেশে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য বহু-সেক্টর প্ল্যাটফর্মের প্রতিষ্ঠা ও টেকসই ব্যবস্থাপনার প্রয়োজনীয়তা প্রণয়ন করে।

বাংলাদেশে জাপান রাষ্ট্রদূত মিঃ আইটিও নওকি কমিউনিটি ইনিশিয়েটিভ সোসাইটি (সিআইএস) এর চলমান কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন । এ-প্যাড- প্রধান নির্বাহী কেনসুক ওনিশি দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের দূর্য়োগ ঝুঁকি নিরসনে সামগ্রিক কর্মকান্ড সর্ম্পকে আলোচনা করেন মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি, সচিব, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশের সাতটি বিভাগে কমিউনিটি ইনিসিয়েটিভ সোসাইটির চলমান কর্মকান্ডের ভূয়সি প্রশংসা করেন । নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার (যুগ্ন সচিব), ডিরেক্টর (পরিকল্পনা), দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ,অধিদপ্তর, বাংলাদশে দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় ও জরুরী দূর্যোগ প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসেবে গৃহিত পদক্ষেপ গুলোকে সাধুবাদ জানান। সাবরে হোসনে চৌধুরী, সংসদ সদস্য, বাংলাদশে, সাবেক সভাপতি, আন্তঃ সংসদীয় ইউনয়িন টেকসই উন্নয়ন ও স্থতিস্থিাপকতা তৈরির জন্য জনগণকে কিভাবে শক্তিশালী করতে হবে সে বিষয়ে ভিডিও বার্তা প্রেরণ করেন। প্রফেসর কাজী কামরুজ্জামান দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার উপর তার নিজস্ব অভিজ্ঞতা, আবহাওয়া পরিবর্তন ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় জনগণের ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করে।

এ-প্যাড বাংলাদেশের বহু-সেক্টরীয় প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠা ও জনগোষ্ঠীর সহনশীলতা গড়ে তুলতে এবং জাতীয় পর্যায়ে মানবিক সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য এনজিও, বেসরকারী সংস্থা, ব্যবসায়ী গোষ্ঠী এবং সরকারের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও সমর্থন নিশ্চিত করতে এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনটি সহায়কের ভূমিকা পালন করবে।

সম্মেলনে এ-প্যাডের অন্যান্য কর্মকর্তাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মাসাটাকা ইউও, পরিচালক, কৌশলগত পরিকল্পনা, নেটওয়ার্কিং এবং উন্নয়ন; জাংগুলি, পরিচালক, ফান্ডিং স্ট্র্যাটেজি ; সিনতা কানিয়াওয়াতী, পরিচালক, গ্লোবাল পার্টনারশিপ। জিওবি-ও কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জনাব হোসনে আলী খন্দকার, অতিরিক্ত সচিব, স্বাস্থ্য ও পরবিার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বাংলাদশে সরকার ও গওহর নাঈম ওয়াহারা ।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক আবু সালহে মনরিুল আলম, অধ্যক্ষ, ঢাকা কমউিনিটি মেডিকেল কলজে, মুহাম্মদ ফরেদৌস, সমন্বয়কারী, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ব্র্যাক ইউনির্ভাসিটি, অধ্যাপক ডাঃ সারিয়া তাসনিম, ডিসিএমসি, মোঃ গোলাম মোস্তফা, সিআইএস, ডাঃ মোঃ ওমর শরীফ ইবনে হাসান, পরিচালক (ডিসিএইচ), সহযোগী অধ্যাপক, ডিসিএমসি প্রমুখ।

বক্তারা বিপর্যয়কালে এবং বিপর্যয়ের পরে আবহাওয়া পরিবর্তন ও টেকসই উন্নয়নের জন্য জনগণকে কিভাবে শক্তিশালী করতে হবে সে সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন। সম্মেলনটিতে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ছিলেন এ-প্যাড-এর সদস্য দেশ, ইউএন, বিশ্ববিদ্যালয়, এনজিও এবং বাংলাদেশ সরকারের স্টেকহোল্ডার, এ-প্যাড অংশীদার, বেসরকারী বিভাগ এবং নাগরিক সমাজসহ আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় প্ল্যাটফর্ম-এর প্রতিনিধিবৃন্দ ।

নিউজটি শেয়ার করুন

দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা তৈরির উপর আর্ন্তজাতিক সিম্পোজিয়াম

আপডেট সময় : ০২:১৩:৫৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৩ নভেম্বর ২০২২

কমিউিনিটি ইনিশিয়েটিভ সোসাইটি (সিআইএস) এবং এশিয়া প্যাসিফিক অ্যালায়েন্স ফর ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট (এ-প্যাড) যৌথভাবে মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর), ঢাকার একটি হোটেলে ডিজাস্টর রিস্ক ম্যানজমেন্ট অ্যান্ড বিল্ডিং রেজিলিয়েন্স ফর কমিউনিটি, সেফার সোসাইটি” র্শীষক একটি আর্ন্তজাতিক সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করে।

সিআইএস “ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রকল্প” নামে যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে তার সাথে সম্পর্ক রেখেই সিম্পোযি়য়ামটি আয়োজন করে। এ-প্যাড বাংলাদেশের স্থানীয় অংশীদার, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেসরকারী সেক্টরসমূহের সমন্বয়ে সিম্পোজিয়ামটি অনুষ্ঠিত হয় । সিআইএস এবং এ-প্যাড যৌথভাবে “বাংলাদেশে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য বহু-সেক্টর প্ল্যাটফর্মের প্রতিষ্ঠা ও টেকসই ব্যবস্থাপনার প্রয়োজনীয়তা প্রণয়ন করে।

বাংলাদেশে জাপান রাষ্ট্রদূত মিঃ আইটিও নওকি কমিউনিটি ইনিশিয়েটিভ সোসাইটি (সিআইএস) এর চলমান কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন । এ-প্যাড- প্রধান নির্বাহী কেনসুক ওনিশি দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের দূর্য়োগ ঝুঁকি নিরসনে সামগ্রিক কর্মকান্ড সর্ম্পকে আলোচনা করেন মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি, সচিব, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশের সাতটি বিভাগে কমিউনিটি ইনিসিয়েটিভ সোসাইটির চলমান কর্মকান্ডের ভূয়সি প্রশংসা করেন । নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার (যুগ্ন সচিব), ডিরেক্টর (পরিকল্পনা), দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ,অধিদপ্তর, বাংলাদশে দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় ও জরুরী দূর্যোগ প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসেবে গৃহিত পদক্ষেপ গুলোকে সাধুবাদ জানান। সাবরে হোসনে চৌধুরী, সংসদ সদস্য, বাংলাদশে, সাবেক সভাপতি, আন্তঃ সংসদীয় ইউনয়িন টেকসই উন্নয়ন ও স্থতিস্থিাপকতা তৈরির জন্য জনগণকে কিভাবে শক্তিশালী করতে হবে সে বিষয়ে ভিডিও বার্তা প্রেরণ করেন। প্রফেসর কাজী কামরুজ্জামান দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার উপর তার নিজস্ব অভিজ্ঞতা, আবহাওয়া পরিবর্তন ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনায় জনগণের ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করে।

এ-প্যাড বাংলাদেশের বহু-সেক্টরীয় প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠা ও জনগোষ্ঠীর সহনশীলতা গড়ে তুলতে এবং জাতীয় পর্যায়ে মানবিক সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য এনজিও, বেসরকারী সংস্থা, ব্যবসায়ী গোষ্ঠী এবং সরকারের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও সমর্থন নিশ্চিত করতে এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনটি সহায়কের ভূমিকা পালন করবে।

সম্মেলনে এ-প্যাডের অন্যান্য কর্মকর্তাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মাসাটাকা ইউও, পরিচালক, কৌশলগত পরিকল্পনা, নেটওয়ার্কিং এবং উন্নয়ন; জাংগুলি, পরিচালক, ফান্ডিং স্ট্র্যাটেজি ; সিনতা কানিয়াওয়াতী, পরিচালক, গ্লোবাল পার্টনারশিপ। জিওবি-ও কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জনাব হোসনে আলী খন্দকার, অতিরিক্ত সচিব, স্বাস্থ্য ও পরবিার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বাংলাদশে সরকার ও গওহর নাঈম ওয়াহারা ।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক আবু সালহে মনরিুল আলম, অধ্যক্ষ, ঢাকা কমউিনিটি মেডিকেল কলজে, মুহাম্মদ ফরেদৌস, সমন্বয়কারী, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ব্র্যাক ইউনির্ভাসিটি, অধ্যাপক ডাঃ সারিয়া তাসনিম, ডিসিএমসি, মোঃ গোলাম মোস্তফা, সিআইএস, ডাঃ মোঃ ওমর শরীফ ইবনে হাসান, পরিচালক (ডিসিএইচ), সহযোগী অধ্যাপক, ডিসিএমসি প্রমুখ।

বক্তারা বিপর্যয়কালে এবং বিপর্যয়ের পরে আবহাওয়া পরিবর্তন ও টেকসই উন্নয়নের জন্য জনগণকে কিভাবে শক্তিশালী করতে হবে সে সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন। সম্মেলনটিতে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ছিলেন এ-প্যাড-এর সদস্য দেশ, ইউএন, বিশ্ববিদ্যালয়, এনজিও এবং বাংলাদেশ সরকারের স্টেকহোল্ডার, এ-প্যাড অংশীদার, বেসরকারী বিভাগ এবং নাগরিক সমাজসহ আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় প্ল্যাটফর্ম-এর প্রতিনিধিবৃন্দ ।