ঢাকা ১১:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দুই রেকর্ডের মালিক হলেন সুনীল নারিন

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:৪০:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৪২২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে প্রায় পাঁচশ ম্যাচ খেলেছিলেন সুনীল নারিন। মারকুটে ব্যাটার হিসেবে স্বীকৃতি ছিল বটে, তবে নারিনের কাজটা বোধহয় উড়ন্ত সূচনা এনে দেওয়া পর্যন্তই।

উইন্ডিজের এই ক্রিকেটার ব্যাট হাতে বড় ইনিংস খেলবেন, এমনটা তার দলেরও হয়ত প্রত্যাশা থাকে না। ওপেনার হিসেবে তার কাজ সূচনা ভালো করে দিয়ে যাওয়া। কিন্তু কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে ঘরের মাঠ ইডেন গার্ডেনে গতকাল একেবারেই ভিন্ন কিছু করে দেখালেন সুনীল নারিন। দুর্দান্ত সব চার-ছয়ের পসরা সাজিয়ে পেলেন সেঞ্চুরির দেখা। তাতে দেখা গেল দুই বিরল রেকর্ডের। কলকাতা নাইট রাইডার্সের ফ্র্যাঞ্চাইজ ইতিহাসেই এটি তৃতীয় সেঞ্চুরি। এবং কাকতালীয়ভাবে কলকাতার তিনটি সেঞ্চুরিই এসেছে এপ্রিল মাসে।

আইপিএলের একদম প্রথম ম্যাচেই কলকাতার হয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। প্রতিপক্ষ ছিল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। পরের সেঞ্চুরি ভেঙ্কেটশ আইয়ারের। আর গতকাল করলেন সুনীল নারিন। তবে এরচে বড় কথা, গতকালই কলকাতার কোনো সেঞ্চুরি তাদের ঘরের মাঠ ইডেন গার্ডেন্সে ঘটেছে।

এছাড়া আরও দুই বিরল রেকর্ড গড়েছেন তিনি। আইপিএলে সেঞ্চুরি এবং হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গতকালের আগে ছিল কেবল দুজনের। রোহিত শর্মা ডেকান চার্জাসের হয়ে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। আর সেঞ্চুরি করেছেন মুম্বাইয়ের হয়ে। এছাড়া বল ও ব্যাট হাতে এমন জোড়া কীর্তি ছিল শেন ওয়াটসনের। এই দুজনের পাশে গতকাল নিজেকে নিয়ে গিয়েছেন সুনীল নারিন।

তবে আরেকটি কীর্তিতে সুনীল একাই অবস্থান করছেন। আইপিএলের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে সেঞ্চুরি এবং ১০০ উইকেট নেওয়ার ক্লাবে প্রবেশ করেছেন উইন্ডিজের এই ক্রিকেটার।

যদিও কলকাতাকে গতকাল ম্যাচের গোড়া থেকেই উড়ন্ত সূচনা এনে দিতে পারেননি ওপেনার নারিন-ফিল সল্টরা। রাজস্থানের ট্রেন্ট বোল্ট ও আবেশ খানদের সামনে কিছুটা ঢিমেতালে শুরু করেন ইনিংস। ষষ্ঠ ওভারের একটা সময় নারিন ১৪ বলে ১৩ রানে খেলছিলেন। কিন্তু ৫.৫ ওভারে একটা ছক্কা এবং ষষ্ঠ ওভারে একটা চারের পরই নারিনের ব্যাটে ‘প্রাণ’ চলে আসে।

আক্রমণের পর আক্রমণের জন্য তিনি বেছে নেন যুজবেন্দ্র চাহাল এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে। ফলে মাঝের ওভারগুলোতে রাজস্থান যে বিপক্ষ দলকে চেপে ধরে, সেটা আজ হয়নি। বিশেষ করে অশ্বিনকে বেধড়ক মেরেছেন নারিন। অশ্বিনকে ছক্কা মেরেই ২৯ বলে অর্ধশতরান পূরণ করেন নারিন। আর পরের ৫০ রান তুলতে ক্যারিবিয়ান তারকা মাত্র ২০ বল খেলেছেন। ম্যাজিক ফিগারটাও পূর্ণ করেছেন একেবারে নিজস্ব স্টাইলে।

বোল্টের ইয়র্কারে বোল্ড হওয়ার আগে নারিন ৫৬ বলে ১৩টি চার ও ৬টি ছক্কায় করেছেন ১০৯ রান। এমন ইনিংসের জন্য দাঁড়িয়ে হাত তালিতে তাকে অভিবাদন জানান বলিউড বাদশাহ শাহরুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

দুই রেকর্ডের মালিক হলেন সুনীল নারিন

আপডেট সময় : ১১:৪০:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে প্রায় পাঁচশ ম্যাচ খেলেছিলেন সুনীল নারিন। মারকুটে ব্যাটার হিসেবে স্বীকৃতি ছিল বটে, তবে নারিনের কাজটা বোধহয় উড়ন্ত সূচনা এনে দেওয়া পর্যন্তই।

উইন্ডিজের এই ক্রিকেটার ব্যাট হাতে বড় ইনিংস খেলবেন, এমনটা তার দলেরও হয়ত প্রত্যাশা থাকে না। ওপেনার হিসেবে তার কাজ সূচনা ভালো করে দিয়ে যাওয়া। কিন্তু কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে ঘরের মাঠ ইডেন গার্ডেনে গতকাল একেবারেই ভিন্ন কিছু করে দেখালেন সুনীল নারিন। দুর্দান্ত সব চার-ছয়ের পসরা সাজিয়ে পেলেন সেঞ্চুরির দেখা। তাতে দেখা গেল দুই বিরল রেকর্ডের। কলকাতা নাইট রাইডার্সের ফ্র্যাঞ্চাইজ ইতিহাসেই এটি তৃতীয় সেঞ্চুরি। এবং কাকতালীয়ভাবে কলকাতার তিনটি সেঞ্চুরিই এসেছে এপ্রিল মাসে।

আইপিএলের একদম প্রথম ম্যাচেই কলকাতার হয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। প্রতিপক্ষ ছিল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। পরের সেঞ্চুরি ভেঙ্কেটশ আইয়ারের। আর গতকাল করলেন সুনীল নারিন। তবে এরচে বড় কথা, গতকালই কলকাতার কোনো সেঞ্চুরি তাদের ঘরের মাঠ ইডেন গার্ডেন্সে ঘটেছে।

এছাড়া আরও দুই বিরল রেকর্ড গড়েছেন তিনি। আইপিএলে সেঞ্চুরি এবং হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গতকালের আগে ছিল কেবল দুজনের। রোহিত শর্মা ডেকান চার্জাসের হয়ে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। আর সেঞ্চুরি করেছেন মুম্বাইয়ের হয়ে। এছাড়া বল ও ব্যাট হাতে এমন জোড়া কীর্তি ছিল শেন ওয়াটসনের। এই দুজনের পাশে গতকাল নিজেকে নিয়ে গিয়েছেন সুনীল নারিন।

তবে আরেকটি কীর্তিতে সুনীল একাই অবস্থান করছেন। আইপিএলের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে সেঞ্চুরি এবং ১০০ উইকেট নেওয়ার ক্লাবে প্রবেশ করেছেন উইন্ডিজের এই ক্রিকেটার।

যদিও কলকাতাকে গতকাল ম্যাচের গোড়া থেকেই উড়ন্ত সূচনা এনে দিতে পারেননি ওপেনার নারিন-ফিল সল্টরা। রাজস্থানের ট্রেন্ট বোল্ট ও আবেশ খানদের সামনে কিছুটা ঢিমেতালে শুরু করেন ইনিংস। ষষ্ঠ ওভারের একটা সময় নারিন ১৪ বলে ১৩ রানে খেলছিলেন। কিন্তু ৫.৫ ওভারে একটা ছক্কা এবং ষষ্ঠ ওভারে একটা চারের পরই নারিনের ব্যাটে ‘প্রাণ’ চলে আসে।

আক্রমণের পর আক্রমণের জন্য তিনি বেছে নেন যুজবেন্দ্র চাহাল এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে। ফলে মাঝের ওভারগুলোতে রাজস্থান যে বিপক্ষ দলকে চেপে ধরে, সেটা আজ হয়নি। বিশেষ করে অশ্বিনকে বেধড়ক মেরেছেন নারিন। অশ্বিনকে ছক্কা মেরেই ২৯ বলে অর্ধশতরান পূরণ করেন নারিন। আর পরের ৫০ রান তুলতে ক্যারিবিয়ান তারকা মাত্র ২০ বল খেলেছেন। ম্যাজিক ফিগারটাও পূর্ণ করেছেন একেবারে নিজস্ব স্টাইলে।

বোল্টের ইয়র্কারে বোল্ড হওয়ার আগে নারিন ৫৬ বলে ১৩টি চার ও ৬টি ছক্কায় করেছেন ১০৯ রান। এমন ইনিংসের জন্য দাঁড়িয়ে হাত তালিতে তাকে অভিবাদন জানান বলিউড বাদশাহ শাহরুখ।