ঢাকা ০৮:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দিনাজপুর শ্রাবণ হত্যাকাণ্ডের জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

মোঃ খাদেমুল ইসলাম, দিনাজপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১১:৪৮:৩৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪
  • / ৪২২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শ্রাবণ দাস হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন এবং জড়িত অপরাধিদের মুখোশ উম্মোচনসহ ফাঁসির দাবীতে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন করলেন অসহায় পিতা নির্মল চন্দ্র দাস।

আজ ৬ জুলাই শনিবার সকালে দিনাজপুর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত দাবী জানিয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সদর উপজেলার ৫ নং শশরা ইউনিয়ানের ৮ নং ওয়ার্ডের উমরপাইল দাসপাড়া গ্রামের নির্মল চন্দ্র দাস।

এসময় তিনি বলেন,আমার পুত্র গত ৮/১২/২০২৩ ইং তারিখ শুক্রবার সকাল ৮ টায় বাড়ি থেকে বেড়িয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত বাড়িতে আসেনি। এরমধ্যে পুত্রের সন্ধান পেতে দিনাজপুর কোতওয়ালী থানায় সাধারন ডায়েরী করা হয়,যার নাম্বার ৫৮১ তাং ০৯/১২/২৩ ইং। এর কিছুদিন পর ১৮/১২/২৩ ইং তারিখে আত্রাই নদীর পাড়ে একটি মাথার খুলি পাওয়া যায় । আমার দেয়া সংবাদ পেয়ে পুলিশ অজ্ঞাতনামা মাথার খুলিটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত এবং ডিএনএ সেম্পল টেষ্টের জন্য এসআই মো: সবুজ আলী এম আব্দর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এব্যাপারে সাব-ইন্সপেক্টর সবুজ বাদি হয়ে একটি মামলা করে যার জিডি নং ১২৩৯। ঘটনার ২ মাস পর আমার পুত্রের মাথার খুলি কিনা তা নিশ্চিত হতে ডিএনএর মাধ্যমে পরীক্ষার জন্য এসআই তহিদুল ইসলাম আমাকে ঢাকায় নিয়ে যায়। গত ২৫/০৬/২৪ইং তারিখে পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে জানতে পারি যে,উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাতনামা মাথার খুলিটি আমার পুত্র শ্রাবণ দাসের। এরপর কললিস্টের ভিক্তিতে পুলিশ শ্রাবণ দাসের বন্ধু রনি এবং শিমুল গ্রেফতার করে ২ দিনের রিমান্ডে নেয়। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ কি পেলো না পেলো কিছুই জানিনা, তবে পুলিশ শ্রাবণের মৃতদেহের বাকি অংশ এখনো উদ্ধার করতে পারেনি।

একজন পিতা হিসেবে আমার মনে অনেক প্রশ্ন জাগছে কিন্তু সমাধান খুজে পাচ্ছি না। ঘটনার ৭ মাস অতিবিাহিত হলেও আমরা অসহায় পিতামাতা,আত্বীয়স্বজন ও পাড়া প্রতিবেশীরা শ্রাবণের সৎকার করতে না পেরে মনোকষ্ট নিয়ে বেঁচে আছি। আমরা জাতিরজনকের কন্যা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিকট শ্রাবন হত্যার বিচার চাই। সেইসাথে শ্রাবণের মাথার খুলির সৎকার নয় গোটা দেহের সতকার করতে চাই এবং হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অপরাধিদের মুখোশ উম্মোচনসহ ফাঁসি চাই।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিহত শ্রাবণের মা রিতা রানী দাস,দ্বিপেন্দ্রনাথ দাস,সুমন দাস,দিলীপ চন্দ্র দাসসহ আরও অনেকে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

দিনাজপুর শ্রাবণ হত্যাকাণ্ডের জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ১১:৪৮:৩৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪

শ্রাবণ দাস হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন এবং জড়িত অপরাধিদের মুখোশ উম্মোচনসহ ফাঁসির দাবীতে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন করলেন অসহায় পিতা নির্মল চন্দ্র দাস।

আজ ৬ জুলাই শনিবার সকালে দিনাজপুর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত দাবী জানিয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সদর উপজেলার ৫ নং শশরা ইউনিয়ানের ৮ নং ওয়ার্ডের উমরপাইল দাসপাড়া গ্রামের নির্মল চন্দ্র দাস।

এসময় তিনি বলেন,আমার পুত্র গত ৮/১২/২০২৩ ইং তারিখ শুক্রবার সকাল ৮ টায় বাড়ি থেকে বেড়িয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত বাড়িতে আসেনি। এরমধ্যে পুত্রের সন্ধান পেতে দিনাজপুর কোতওয়ালী থানায় সাধারন ডায়েরী করা হয়,যার নাম্বার ৫৮১ তাং ০৯/১২/২৩ ইং। এর কিছুদিন পর ১৮/১২/২৩ ইং তারিখে আত্রাই নদীর পাড়ে একটি মাথার খুলি পাওয়া যায় । আমার দেয়া সংবাদ পেয়ে পুলিশ অজ্ঞাতনামা মাথার খুলিটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত এবং ডিএনএ সেম্পল টেষ্টের জন্য এসআই মো: সবুজ আলী এম আব্দর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এব্যাপারে সাব-ইন্সপেক্টর সবুজ বাদি হয়ে একটি মামলা করে যার জিডি নং ১২৩৯। ঘটনার ২ মাস পর আমার পুত্রের মাথার খুলি কিনা তা নিশ্চিত হতে ডিএনএর মাধ্যমে পরীক্ষার জন্য এসআই তহিদুল ইসলাম আমাকে ঢাকায় নিয়ে যায়। গত ২৫/০৬/২৪ইং তারিখে পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে জানতে পারি যে,উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাতনামা মাথার খুলিটি আমার পুত্র শ্রাবণ দাসের। এরপর কললিস্টের ভিক্তিতে পুলিশ শ্রাবণ দাসের বন্ধু রনি এবং শিমুল গ্রেফতার করে ২ দিনের রিমান্ডে নেয়। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ কি পেলো না পেলো কিছুই জানিনা, তবে পুলিশ শ্রাবণের মৃতদেহের বাকি অংশ এখনো উদ্ধার করতে পারেনি।

একজন পিতা হিসেবে আমার মনে অনেক প্রশ্ন জাগছে কিন্তু সমাধান খুজে পাচ্ছি না। ঘটনার ৭ মাস অতিবিাহিত হলেও আমরা অসহায় পিতামাতা,আত্বীয়স্বজন ও পাড়া প্রতিবেশীরা শ্রাবণের সৎকার করতে না পেরে মনোকষ্ট নিয়ে বেঁচে আছি। আমরা জাতিরজনকের কন্যা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিকট শ্রাবন হত্যার বিচার চাই। সেইসাথে শ্রাবণের মাথার খুলির সৎকার নয় গোটা দেহের সতকার করতে চাই এবং হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অপরাধিদের মুখোশ উম্মোচনসহ ফাঁসি চাই।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিহত শ্রাবণের মা রিতা রানী দাস,দ্বিপেন্দ্রনাথ দাস,সুমন দাস,দিলীপ চন্দ্র দাসসহ আরও অনেকে।

 

বাখ//আর