ঢাকা ০৪:০৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দিনাজপুর পৌরসভার উন্নয়নে নিজের জীবনকেও বিনিয়োগ করতে ব্রত নিয়েছি : ভারপ্রাপ্ত মেয়র আবু তৈয়ব আলী দুলাল

মো: খাদেমুল ইসলাম, দিনাজপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:১৬:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪
  • / ৪৩৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দিনাজপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র আবু তৈয়ব আলী দুলাল বলেন, দিনাজপুর পৌরসভার উন্নয়নে নিজের জীবনকেও বিনিয়োগ করতে ব্রত নিয়েছি। সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি পৌরসভার বিভিন্ন সমস্যা সরেজমিনে দেখছি এবং তার প্রতিকার করার চেষ্টা করছি।

আজ ৭ জুলাই দিনাজপুর পৌরসভার ফাতেহুল আলম দুলাল মিলনায়তনে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের ২৩৩ কোটি ৪৬ লাখ ৮৬ হাজার ২৪৪ টাকার বাজেট ঘোষণা কালে এসব কথা বলেন তিনি। প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যয় ধরা হয়েছে ২২২ কোটি ৬০ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

এ সময় পৌরসভার রাস্তাঘাটের বেহাল অবস্থা সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,বর্ষাকাল হওয়া সত্ত্বেও শহরের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা সংস্কার ও মেরামতের কাজ চলছে। জরুরি, অতি জরুরী এবং তাৎক্ষণিকভাবে এখনই প্রয়োজন এই ক্যাটাগরিতে আমরা রাস্তাগুলো সংস্কার করছি।

আপনারা নিশ্চয়ই লক্ষ্য করেছেন শহরের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা সংস্কার ও মেরামতের কাজ চলছে। বর্ষাকাল বিধায় কাজের গতি কিছুটা কম হওয়ার কারণে পৌরবাসী দুর্ভোগে আছে। আগে যারা শপথ নিয়ে পৌরপিতা হয়েছিলেন তারা তাদের কথা রাখেনি। কথা রাখেনি বলেই আজকের এই দুর্ভোগ। বিগত মেয়র কে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তিনি পৌরসভাটিকে নিয়ে রাজনীতি করেছেন। পৌর পিতা কোন দলের হতে পারেনা। তিনি সবার এবং অবারিত।

এখানে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়। আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই পৌরসভার দুর্ভোগ গুলো চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়েছি। বর্তমানে দিনাজপুর পৌরসভা একটি সমন্বিত টিম হিসেবে কাজ করছে। এরই মধ্যে কিছু ফলাফল পেতে শুরু করেছে পৌরবাসী। শুধু আমার প্রতি বিশ্বাস রাখবেন আমি আপনাদের বিশ্বাসের প্রতিদান দিতে বাধ্য এটাই আমার জীবনের ব্রত।

একটি উন্নয়নমুখী ও সুন্দর বাজেট যা পৌরবাসীর আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণে সহায়ক হবে, প্রস্তাবিত বাজেটে সিংহভাগ টাকা উন্নয়ন খাতে ব্যয় করা হবে। এ বছরে বাজেট হবে একটি উদ্বৃত্ত বাজেট। এই পৌরসভার আয় সীমিত কিন্তু পৌরবাসী চাহিদা অনেক। এখনো অনেক এলাকা অবহেলিত।

আমি বিশ্বাস করি সমস্যা আছে তবে প্রত্যেকটি সমাধানযোগ্য শুধু চাই সদিচ্ছা। কল্যাণমূলক দৃষ্টিভঙ্গি অবশ্যই মানুষকে কল্যাণের দিকে ধাবিত করে। সেজন্য আমাদেরকে প্রথমেই দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টাতে হবে। সাহসী মনোভাব নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। অসম্ভব বলে কোন কিছু নেই।

আমরা অত্যন্ত আশাবাদী। আমরা এ কারণে আশাবাদী বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি মহোদয় পৌরসভা নিয়ে অত্যন্ত ইতিবাচক অবস্থায়। তিনি প্রতি নিয়ত আমাকে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড কিভাবে দ্রুত সমাধান করা যায় সে বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। আমরা অচিরেই দুর্ভোগ মুক্ত একটি পৌরসভা গড়ে তুলতে সক্ষম হব।

এবারের বাজেটে আধুনিক কৃষি মার্কেট গড়ে তোলা, পৌরসভার দীর্ঘতম সড়ক, ফুটপাত ড্রেন কাম ফুটপাত, প্রাইমারি ড্রেন স্ট্রিট লাইট, কবরস্থান, মার্কেট, আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন বাস টার্মিনাল ও একটি অত্যাধুনিক পৌর ভবন নির্মাণ করা ইত্যাদি অতি গুরুত্বের সাথে বাস্তবায়ন হবে এমন ইঙ্গিত দিয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ।এসময় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

দিনাজপুর পৌরসভার উন্নয়নে নিজের জীবনকেও বিনিয়োগ করতে ব্রত নিয়েছি : ভারপ্রাপ্ত মেয়র আবু তৈয়ব আলী দুলাল

আপডেট সময় : ০৭:১৬:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ জুলাই ২০২৪

দিনাজপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র আবু তৈয়ব আলী দুলাল বলেন, দিনাজপুর পৌরসভার উন্নয়নে নিজের জীবনকেও বিনিয়োগ করতে ব্রত নিয়েছি। সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি পৌরসভার বিভিন্ন সমস্যা সরেজমিনে দেখছি এবং তার প্রতিকার করার চেষ্টা করছি।

আজ ৭ জুলাই দিনাজপুর পৌরসভার ফাতেহুল আলম দুলাল মিলনায়তনে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের ২৩৩ কোটি ৪৬ লাখ ৮৬ হাজার ২৪৪ টাকার বাজেট ঘোষণা কালে এসব কথা বলেন তিনি। প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যয় ধরা হয়েছে ২২২ কোটি ৬০ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

এ সময় পৌরসভার রাস্তাঘাটের বেহাল অবস্থা সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,বর্ষাকাল হওয়া সত্ত্বেও শহরের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা সংস্কার ও মেরামতের কাজ চলছে। জরুরি, অতি জরুরী এবং তাৎক্ষণিকভাবে এখনই প্রয়োজন এই ক্যাটাগরিতে আমরা রাস্তাগুলো সংস্কার করছি।

আপনারা নিশ্চয়ই লক্ষ্য করেছেন শহরের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা সংস্কার ও মেরামতের কাজ চলছে। বর্ষাকাল বিধায় কাজের গতি কিছুটা কম হওয়ার কারণে পৌরবাসী দুর্ভোগে আছে। আগে যারা শপথ নিয়ে পৌরপিতা হয়েছিলেন তারা তাদের কথা রাখেনি। কথা রাখেনি বলেই আজকের এই দুর্ভোগ। বিগত মেয়র কে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তিনি পৌরসভাটিকে নিয়ে রাজনীতি করেছেন। পৌর পিতা কোন দলের হতে পারেনা। তিনি সবার এবং অবারিত।

এখানে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়। আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই পৌরসভার দুর্ভোগ গুলো চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়েছি। বর্তমানে দিনাজপুর পৌরসভা একটি সমন্বিত টিম হিসেবে কাজ করছে। এরই মধ্যে কিছু ফলাফল পেতে শুরু করেছে পৌরবাসী। শুধু আমার প্রতি বিশ্বাস রাখবেন আমি আপনাদের বিশ্বাসের প্রতিদান দিতে বাধ্য এটাই আমার জীবনের ব্রত।

একটি উন্নয়নমুখী ও সুন্দর বাজেট যা পৌরবাসীর আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণে সহায়ক হবে, প্রস্তাবিত বাজেটে সিংহভাগ টাকা উন্নয়ন খাতে ব্যয় করা হবে। এ বছরে বাজেট হবে একটি উদ্বৃত্ত বাজেট। এই পৌরসভার আয় সীমিত কিন্তু পৌরবাসী চাহিদা অনেক। এখনো অনেক এলাকা অবহেলিত।

আমি বিশ্বাস করি সমস্যা আছে তবে প্রত্যেকটি সমাধানযোগ্য শুধু চাই সদিচ্ছা। কল্যাণমূলক দৃষ্টিভঙ্গি অবশ্যই মানুষকে কল্যাণের দিকে ধাবিত করে। সেজন্য আমাদেরকে প্রথমেই দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টাতে হবে। সাহসী মনোভাব নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। অসম্ভব বলে কোন কিছু নেই।

আমরা অত্যন্ত আশাবাদী। আমরা এ কারণে আশাবাদী বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি মহোদয় পৌরসভা নিয়ে অত্যন্ত ইতিবাচক অবস্থায়। তিনি প্রতি নিয়ত আমাকে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড কিভাবে দ্রুত সমাধান করা যায় সে বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। আমরা অচিরেই দুর্ভোগ মুক্ত একটি পৌরসভা গড়ে তুলতে সক্ষম হব।

এবারের বাজেটে আধুনিক কৃষি মার্কেট গড়ে তোলা, পৌরসভার দীর্ঘতম সড়ক, ফুটপাত ড্রেন কাম ফুটপাত, প্রাইমারি ড্রেন স্ট্রিট লাইট, কবরস্থান, মার্কেট, আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন বাস টার্মিনাল ও একটি অত্যাধুনিক পৌর ভবন নির্মাণ করা ইত্যাদি অতি গুরুত্বের সাথে বাস্তবায়ন হবে এমন ইঙ্গিত দিয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ।এসময় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

বাখ//আর