ঢাকা ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দিনাজপুরে ইন্টার্ন নার্সদের ১ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ

দিনাজপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:৫৯:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৫৩০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দিনাজপুরে সরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারী সদর হাসপাতালের ইন্টার্ন নার্সদের ১ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে দাবীতে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে। দিনাজপুরে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ২ঘন্টা কর্মবিরতি পালন করা হয়। ইন্টার্ন নার্সদের ১ দফা দাবি আদায়ের দিনাজপুর জেলা শাখার কমিটির আহ্বায়ক এনামুল হক, নেতৃত্বে অংশগ্রহণ করেন যুগ্ম আহবায়ক তাহরিমা আক্তার জিমি, যুগ্ম আহবায়ক শরীফুল ইসলাম, সদস্য সচিব সঞ্জয় বাস্কে সদস্য রুবিনা, স্নেহা বাস্কে, মিন্টু চন্দ্র রায়, নাদিরা খাতুন সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

১দফা দাবি আদায়ের বিক্ষোভে দিনাজপুর জেলা শাখার কমিটির আহ্বায়ক আহবায়ক এনামুল হক তার বক্তব্যে বলেন, আমরা সরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের তিন বছর মেয়াদী “ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সাইন্স এন্ড মিডওয়াইফারি” কোর্স সম্পন্ন করে বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও জেলা হাসপাতালে এবং সদর হাসপাতালে ইন্টার্ন নার্স হিসাবে কর্মরত আছি।

আমরা সরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের তিন বছর মেয়াদী “ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সাইন্স এন্ড মিডওয়াইফারি” কোর্স সম্পন্ন করে বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা হাসপাতাল, সদর হাসপাতালে ইন্টার্ন নার্স হিসাবে কর্মরত আছি। কোর্স কারিকুলাম অনুযায়ী ছয় মাস মেয়াদি ইন্টার্নশীপ শুরু করার জন্য স্বাস্থ শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, শিক্ষা শাখার ০৭-০৮-২০২২ ইং তারিখে প্রকাশিত ১৮০নং স্মারকে প্রশাসনিক অনুমতি পায়। যার প্রেক্ষিতে এ অধিদপ্তরের ২৯-০৯-২০২২ইং তারিখে ৫২০নং স্মারকে ইন্টার্ণ স্যালারি মঞ্জুরির জন্য (ডিজিএনএম) থেকে পত্র প্রেরণ করা হয়। পরবর্তীতে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ বাজেট অধিশাখা এর ১৩-১০-২০২২ইং তারিখে ৭৯৪নং স্মারকে পত্রে চাহিত তথ্যাদি অধিদপ্তরের ২৬-১০-২০২২ইং তারিখের ৬০১নং স্মারকে পত্রে প্রেরণ করা হয় এবং ২৬-০৭-২০২৩ইং তারিখে (ডিজিএনএম) থেকে ৩৬২নং স্মারকে ইন্টার্ন স্যালারি বরাদ্দ ও মঞ্জুরির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুনরায় অনুরোধ জানিয়ে পত্র প্রেরণ করা হলেও এখনো পর্যন্ত আমরা আমাদের ইন্টার্ন স্যালারির জন্য কোনো বরাদ্দ পাইনি।

আমাদের লগবুক এর ১৪নং পৃষ্ঠার Code of Conduct, Rules and Regulation এর ১নং পয়েন্টে ইন্টার্ন স্যালারির উল্লেখ থাকা সত্ত্বেও আমরা কোনো ইন্টার্ন স্যালারি পাচ্ছি না। বর্তমানে আমাদের কোনো হোস্টেলের সুবিধাও নাই। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজার, বাসা ভাড়া, থাকা-খাওয়া, যাতায়াত, হাত খরচ ইত্যাদি মিলিয়ে ৮-১০ হাজার টাকা খরচ হয়ে যায়। পড়াশোনা শেষ করে ইন্টার্নশীপ করা অবস্থায় বাসা থেকে টাকা এনে ইন্টার্নশীপ করাটা আমাদের জন্য কষ্টসাধ্য হয়ে যাচ্ছে। আমাদের মধ্যে অনেকের পরিবার আছে যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায়। যেখানে তাদের দিনাতিপাত করাই কষ্টসাধ্য হচ্ছে সেখানে সন্তানের ইন্টার্নশীপ চলাকালীন খরচ চালানোর জন্য মাসে ৮-১০ হাজার টাকার ভার বহন করাটা কষ্টসাধ্য হইয়ে যাচ্ছে।

 

বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

দিনাজপুরে ইন্টার্ন নার্সদের ১ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ

আপডেট সময় : ০৭:৫৯:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩

দিনাজপুরে সরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারী সদর হাসপাতালের ইন্টার্ন নার্সদের ১ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে দাবীতে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে। দিনাজপুরে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ২ঘন্টা কর্মবিরতি পালন করা হয়। ইন্টার্ন নার্সদের ১ দফা দাবি আদায়ের দিনাজপুর জেলা শাখার কমিটির আহ্বায়ক এনামুল হক, নেতৃত্বে অংশগ্রহণ করেন যুগ্ম আহবায়ক তাহরিমা আক্তার জিমি, যুগ্ম আহবায়ক শরীফুল ইসলাম, সদস্য সচিব সঞ্জয় বাস্কে সদস্য রুবিনা, স্নেহা বাস্কে, মিন্টু চন্দ্র রায়, নাদিরা খাতুন সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

১দফা দাবি আদায়ের বিক্ষোভে দিনাজপুর জেলা শাখার কমিটির আহ্বায়ক আহবায়ক এনামুল হক তার বক্তব্যে বলেন, আমরা সরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের তিন বছর মেয়াদী “ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সাইন্স এন্ড মিডওয়াইফারি” কোর্স সম্পন্ন করে বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও জেলা হাসপাতালে এবং সদর হাসপাতালে ইন্টার্ন নার্স হিসাবে কর্মরত আছি।

আমরা সরকারি নার্সিং ও মিডওয়াইফারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের তিন বছর মেয়াদী “ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সাইন্স এন্ড মিডওয়াইফারি” কোর্স সম্পন্ন করে বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা হাসপাতাল, সদর হাসপাতালে ইন্টার্ন নার্স হিসাবে কর্মরত আছি। কোর্স কারিকুলাম অনুযায়ী ছয় মাস মেয়াদি ইন্টার্নশীপ শুরু করার জন্য স্বাস্থ শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, শিক্ষা শাখার ০৭-০৮-২০২২ ইং তারিখে প্রকাশিত ১৮০নং স্মারকে প্রশাসনিক অনুমতি পায়। যার প্রেক্ষিতে এ অধিদপ্তরের ২৯-০৯-২০২২ইং তারিখে ৫২০নং স্মারকে ইন্টার্ণ স্যালারি মঞ্জুরির জন্য (ডিজিএনএম) থেকে পত্র প্রেরণ করা হয়। পরবর্তীতে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ বাজেট অধিশাখা এর ১৩-১০-২০২২ইং তারিখে ৭৯৪নং স্মারকে পত্রে চাহিত তথ্যাদি অধিদপ্তরের ২৬-১০-২০২২ইং তারিখের ৬০১নং স্মারকে পত্রে প্রেরণ করা হয় এবং ২৬-০৭-২০২৩ইং তারিখে (ডিজিএনএম) থেকে ৩৬২নং স্মারকে ইন্টার্ন স্যালারি বরাদ্দ ও মঞ্জুরির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুনরায় অনুরোধ জানিয়ে পত্র প্রেরণ করা হলেও এখনো পর্যন্ত আমরা আমাদের ইন্টার্ন স্যালারির জন্য কোনো বরাদ্দ পাইনি।

আমাদের লগবুক এর ১৪নং পৃষ্ঠার Code of Conduct, Rules and Regulation এর ১নং পয়েন্টে ইন্টার্ন স্যালারির উল্লেখ থাকা সত্ত্বেও আমরা কোনো ইন্টার্ন স্যালারি পাচ্ছি না। বর্তমানে আমাদের কোনো হোস্টেলের সুবিধাও নাই। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজার, বাসা ভাড়া, থাকা-খাওয়া, যাতায়াত, হাত খরচ ইত্যাদি মিলিয়ে ৮-১০ হাজার টাকা খরচ হয়ে যায়। পড়াশোনা শেষ করে ইন্টার্নশীপ করা অবস্থায় বাসা থেকে টাকা এনে ইন্টার্নশীপ করাটা আমাদের জন্য কষ্টসাধ্য হয়ে যাচ্ছে। আমাদের মধ্যে অনেকের পরিবার আছে যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায়। যেখানে তাদের দিনাতিপাত করাই কষ্টসাধ্য হচ্ছে সেখানে সন্তানের ইন্টার্নশীপ চলাকালীন খরচ চালানোর জন্য মাসে ৮-১০ হাজার টাকার ভার বহন করাটা কষ্টসাধ্য হইয়ে যাচ্ছে।

 

বাখ//আর