ঢাকা ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

তেভাগা চেতনা পরিষদের উদ্যোগে

দিনাজপুরের তেভাগার শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি

দিনাজপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৯:০৩:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৫২৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

তেভাগার চেতনা ভুলি নাই- ভুলবো না -এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ৪ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দিনাজপুর তেভাগা চেতনা পরিষদের আয়োজনে ঐতিহাসিক তেভাগা দিবস-২০২৪ উপলক্ষে তেভাগা আন্দোলনের শহিদদের স্মরণে চিরিরবন্দর উপজেলার তালপুকুর-বাজিতপুর (চেন্দু বটতলা) তেভাগা আন্দোলনে প্রথম শহিদ সমির উদ্দীন ও শিবরাম মাঝি’র স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানায়।

স্মৃতিস্তম্ভে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় দিনাজপুর তেভাগা চেতনা পরিষদের আহবায়ক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের আহবায়ক এ্যাডঃ রেয়াজুল ইসলাম রাজু।

 তেভাগা আন্দোলনের শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান ও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আলতাফ হোসাইন, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ মেহেরুল ইসলাম, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহিদুল্লাহ, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি ও দিনাজপুর নাট্য সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজাউর রহমান রেজু, বাংলাদেশের ওয়াকার্স পার্টি দিনাজপুর এর সাধারণ সম্পাদক হবিবর রহমান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট দিনাজপুরের সভাপতি সুলতান কামাল উদ্দীন বাচ্চু, চেতনা পরিষদের সদস্য নূরুল মতিন সৈকত, স্থানীয় চেতনা পরিষদের আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার এসআই শফিক সাম্যবাদী আন্দোলনের জেলা সমন্বয়ক মনিরুজ্জামান, সদস্য মোঃ খায়রুল ইসলাম, শহীদ সমির উদ্দীনের পরিবারের পক্ষে জোস্না বেগম, কৃষক মুক্তি সংগ্রামের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মোঃ আমিনুল হক, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের সভাপতি টংক নাথ অধিকারী, সিপিবি’র মোকাসেদুর রহমান দুলু, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়নের জেলা সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, তালপুকুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রদীপ কুমার রায়, স্থানীয় বিশ্বনাথ রায়, কালীপদ রায়, মোঃ রতন, মোঃ আমজাদ হোসেন, পূর্ণ লাখড়া, মোঃ জাবেদ ও মোঃ শামসুল।

বক্তারা বলেন, ১৯৪৭ সালে ৪ জানুয়ারি তেভাগা আন্দোলনে দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার তালপুকুর গ্রামে পুলিশের গুলিতে প্রথম শহিদ হন কৃষক সমির উদ্দীন ও শিবরাম মাঝি। তাদের দাবী ছিল জমিদার-জোতদার মহাজনদের জমি চাষ করে ফসলের দুভাগ চাষী নিজের জন্য রাখবেন আর একভাগ দিবেন জমির মালিককে। এই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ, গুরুদাস তালুকদার, ইলা মিত্রসহ অনেকে। ১৯৪৬ সালে ডিসেম্বরে শুরু হয় এবং ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত এই আন্দোলন চলেছিল। বর্গা বা ভাগ চাষীরা এই আন্দোলনে অংশ নেয়। দিনাজপুর-রংপুর জেলায় আন্দোলন শুরু হলেও তা পরবর্তীতে ভারতে পশ্চিমবঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে। তেভাগা আন্দোলনের সঠিক ইতিহাস আমাদের প্রজন্মকে জানাতে আমরা প্রতিবছর এখানে এসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করি।

নিউজটি শেয়ার করুন

তেভাগা চেতনা পরিষদের উদ্যোগে

দিনাজপুরের তেভাগার শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি

আপডেট সময় : ০৯:০৩:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪

তেভাগার চেতনা ভুলি নাই- ভুলবো না -এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ৪ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দিনাজপুর তেভাগা চেতনা পরিষদের আয়োজনে ঐতিহাসিক তেভাগা দিবস-২০২৪ উপলক্ষে তেভাগা আন্দোলনের শহিদদের স্মরণে চিরিরবন্দর উপজেলার তালপুকুর-বাজিতপুর (চেন্দু বটতলা) তেভাগা আন্দোলনে প্রথম শহিদ সমির উদ্দীন ও শিবরাম মাঝি’র স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানায়।

স্মৃতিস্তম্ভে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় দিনাজপুর তেভাগা চেতনা পরিষদের আহবায়ক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের আহবায়ক এ্যাডঃ রেয়াজুল ইসলাম রাজু।

 তেভাগা আন্দোলনের শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান ও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আলতাফ হোসাইন, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ মেহেরুল ইসলাম, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহিদুল্লাহ, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি ও দিনাজপুর নাট্য সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজাউর রহমান রেজু, বাংলাদেশের ওয়াকার্স পার্টি দিনাজপুর এর সাধারণ সম্পাদক হবিবর রহমান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট দিনাজপুরের সভাপতি সুলতান কামাল উদ্দীন বাচ্চু, চেতনা পরিষদের সদস্য নূরুল মতিন সৈকত, স্থানীয় চেতনা পরিষদের আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার এসআই শফিক সাম্যবাদী আন্দোলনের জেলা সমন্বয়ক মনিরুজ্জামান, সদস্য মোঃ খায়রুল ইসলাম, শহীদ সমির উদ্দীনের পরিবারের পক্ষে জোস্না বেগম, কৃষক মুক্তি সংগ্রামের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মোঃ আমিনুল হক, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের সভাপতি টংক নাথ অধিকারী, সিপিবি’র মোকাসেদুর রহমান দুলু, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়নের জেলা সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, তালপুকুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রদীপ কুমার রায়, স্থানীয় বিশ্বনাথ রায়, কালীপদ রায়, মোঃ রতন, মোঃ আমজাদ হোসেন, পূর্ণ লাখড়া, মোঃ জাবেদ ও মোঃ শামসুল।

বক্তারা বলেন, ১৯৪৭ সালে ৪ জানুয়ারি তেভাগা আন্দোলনে দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার তালপুকুর গ্রামে পুলিশের গুলিতে প্রথম শহিদ হন কৃষক সমির উদ্দীন ও শিবরাম মাঝি। তাদের দাবী ছিল জমিদার-জোতদার মহাজনদের জমি চাষ করে ফসলের দুভাগ চাষী নিজের জন্য রাখবেন আর একভাগ দিবেন জমির মালিককে। এই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ, গুরুদাস তালুকদার, ইলা মিত্রসহ অনেকে। ১৯৪৬ সালে ডিসেম্বরে শুরু হয় এবং ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত এই আন্দোলন চলেছিল। বর্গা বা ভাগ চাষীরা এই আন্দোলনে অংশ নেয়। দিনাজপুর-রংপুর জেলায় আন্দোলন শুরু হলেও তা পরবর্তীতে ভারতে পশ্চিমবঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে। তেভাগা আন্দোলনের সঠিক ইতিহাস আমাদের প্রজন্মকে জানাতে আমরা প্রতিবছর এখানে এসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করি।