শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:৫০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পাবনায় আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল কলাপাড়ায় নারী কৃষকদের মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলন আজ না হয় কাল, খবরটা জানাজানি হবেই : সিদ্ধার্থ ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা সমর্থকদের ঝগড়ায় সংঘর্ষে নিহত ১ চরাঞ্চলে ভূট্টা চাষে কৃষকের আগ্রহ বেড়েছে  আমাদের হৃদয় আছে বলেই আমরা সেমিফাইনালে : মার্তিনেস নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করলে ইরান পরমাণু চুক্তি মেনে চলবে : তেহরান কটিয়াদীতে মুরগির বিষ্ঠা দিয়ে মাছ চাষ স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে দুপুরের পর জেলেরা গভীর সাগরে যেতে পারবে ইনজেকশন দিয়ে স্বাবলম্বী দেড় শতাধিক নারী বঙ্গবন্ধু তরুণ লেখক পরিষদের সম্মেলন ও গুণীজন সম্মাননা রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন গোলাপবাগে ইন্টারনেট নেই, মোবাইলে কলড্রপ খালেদা জিয়ার হাত কালো নয়, সাদা: আফরোজা আব্বাস পটুয়াখালীর “শ্রেষ্ঠ জয়িতা” কলাপাড়ার মিলি

দাদির পেটে নাতনির জন্ম

দাদির পেটে নাতনির জন্ম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

নাতনিকে জন্ম দিলেন দাদি! শুনতে অবাক লাগলেও এ ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্র ইউটাহ রাজ্যে। মার্কিন ম্যাগাজিন পিপলের প্রতিবেদনে বলা হয়, ৫৬ বছর বয়সী ন্যানসি হকের ছেলে জেফ হকের স্ত্রীর একটি রোগের কারণে জরায়ু অপসারণ করতে হয়।

এতে তার গর্ভধারণের সম্ভাবনা একেবারেই শেষ হয়ে যায়। এমন অবস্থায় ছেলের সন্তানের জন্ম দেওয়ার জন্য নিজ গর্ভকে ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেন ন্যানসি। আর এরপরই সারোগ্যাসি পদ্ধতিতে নিজের ছেলের সন্তানকে ধারণ করেন তিনি। নাতনিকে নিয়ে এ পর্যন্ত পঞ্চমবারের মতো শিশুর জন্ম দিলেন ন্যানসি।

ন্যানসির ছেলে জেফ পেশায় একজন ওয়েব ডেভলপার। মায়ের গর্ভে নিজের সন্তান জন্ম দেয়ার অনুভূতি জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, দারুণ মুহূর্ত ছিল। মায়ের শিশু জন্মানো দেখতে পারে কয়জন!

এমন জন্মদানের বিষয়ে চিকিৎসক রাসেল ফাউলক বলেন, দাদির গর্ভে নাতনি থাকাটা স্বাভাবিক ঘটনা নয়। এখানে বয়স কোনো বাধা হতে পারেনি।

পিপলের প্রতিবেদনে বলা হয়, নাতনিকে জন্ম দেয়ার আগে ৯ ঘণ্টার মতো প্রসব ব্যাথায় ভুগেছেন ন্যানসি। এ বয়সে নাতনির জন্ম দেয়ার পর রোমাঞ্চিত তিনি। তবে ন্যানসির একটু কষ্টও আছে কারণ মা অন্যজন হওয়ায় শিশুটিকে নিজের কাছে রাখতে পারছেন না তিনি। দাদির ইচ্ছা অনুয়ায়ী, সদ্যোজাত ওই শিশুর নাম রাখা হয়েছে হান্নাহ। জেফ জানান, তার মা হঠাৎ মধ্যরাতে জেগে ওঠার পর একটি কণ্ঠস্বরকে বলে উঠতে শোনেন, ‘আমার নাম হান্নাহ। ’

ন্যানসি হক ইউটাহর টেক ইউনিভার্সিটিতে চাকরি করেন। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর কোনোরকম পরীক্ষা ছাড়াই তিনি আত্মবিশ্বাসী ছিলেন যে নাতনির জন্ম দেবেন। ন্যানসির ছেলের স্ত্রী ক্যামবিরা জানান, ন্যানসি ও হান্নাহ দুটোর অর্থই দয়া। সূত্র: এনডিটিভি।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *