ঢাকা ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

দক্ষিণ আফ্রিকায় নিহত চারজনের লাশ দাফন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৩৫:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মার্চ ২০২৩
  • / ৪৪২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ফেনী প্রতিনিধি : 

দক্ষিণ আফ্রিকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ফেনীর নিহত ছয় জনের মধ্যে চার জনের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। শুক্রবার (৩ মার্চ) সকালে তাদের নিজ নিজ বাড়িতে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) রাত সাড়ে ৮টার পর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চার জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রাতে তাদের লাশ বাড়িতে এলে এক কান্নার রোল পড়ে প্রতিটি বাড়িতে। দুর্ঘটনার সাত দিন পর এই চার প্রবাসী বাংলাদেশির লাশ দেশে আসে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সময় ভোররাতে দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়েস্টার্ন কেপ প্রদেশের লোকানকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ বছরের এক শিশুসহ ৬ বাংলাদেশি নিহত হন। ওই বাংলাদেশিদের বহনকারী একটি প্রাইভেট কার ওয়েস্টার্ন কেপ থেকে কেপটাউন বিমানবন্দরে যাচ্ছিল।

যাদের দাফন করা হয়েছে তারা হলেন- ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের শরীয়ত উল্লাহর ছেলে ইসমাইল হোসেন (৩৮), জেলার দাগনভূঞার মাতুভূঞা ইউনিয়নের মোমারিজপুর গ্রামের আব্দুল মান্নান মিলনের ছেলে দ্বীন মোহাম্মদ রাজু (৩৪), একই উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের দক্ষিণ নেওয়াজপুর গ্রামের সিরাজ উল্লাহর ছেলে মোস্তফা কামাল পুপেল (৪০) ও সোনাগাজী উপজেলার চর মজলিশপুর গ্রামের জামাল হোসেনের ছেলে আবুল হোসেন (৩৫)।

ওই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত দাগনভূঞা উপজেলার মাতুভূঞা ইউনিয়নের রামানন্দপুর গ্রামের বাহার মিয়ার ছেলে আনিসুল হক মিলন (৩৮) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি)রাতে মারা গেলেও তার লাশ বৃহস্পতিবার দেশে এসে পৌঁছায়নি। শনিবার দেশে পৌঁছার কথা রয়েছে। এ ছাড়া সোনাগাজীর নিহত আবুল হোসেনের ছেলে নাদিম হোসেন জন্মগতভাবে আফ্রিকার নাগরিক হওয়ায় তার লাশ সেখানে দাফন করা হয়েছে।

স্বজনরা জানান, সোনাগাজীর নিহত আবুল হোসেনের ১৩ বছরের শিশু ছেলে নাদিম হোসেন জন্মগতভাবে আফ্রিকার নাগরিক হওয়ায় তার মরদেহ সে দেশে দাফন করা হয়েছে। আনিসুলের লাশ আসবে পরে। ওই দুর্ঘটনায় আহত নাহিদ আহমেদের (৩৫) বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলায়। গুরুতর আহত হয়ে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

দক্ষিণ আফ্রিকায় নিহত চারজনের লাশ দাফন

আপডেট সময় : ০৩:৩৫:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মার্চ ২০২৩

ফেনী প্রতিনিধি : 

দক্ষিণ আফ্রিকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ফেনীর নিহত ছয় জনের মধ্যে চার জনের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। শুক্রবার (৩ মার্চ) সকালে তাদের নিজ নিজ বাড়িতে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) রাত সাড়ে ৮টার পর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চার জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রাতে তাদের লাশ বাড়িতে এলে এক কান্নার রোল পড়ে প্রতিটি বাড়িতে। দুর্ঘটনার সাত দিন পর এই চার প্রবাসী বাংলাদেশির লাশ দেশে আসে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সময় ভোররাতে দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়েস্টার্ন কেপ প্রদেশের লোকানকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ বছরের এক শিশুসহ ৬ বাংলাদেশি নিহত হন। ওই বাংলাদেশিদের বহনকারী একটি প্রাইভেট কার ওয়েস্টার্ন কেপ থেকে কেপটাউন বিমানবন্দরে যাচ্ছিল।

যাদের দাফন করা হয়েছে তারা হলেন- ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের শরীয়ত উল্লাহর ছেলে ইসমাইল হোসেন (৩৮), জেলার দাগনভূঞার মাতুভূঞা ইউনিয়নের মোমারিজপুর গ্রামের আব্দুল মান্নান মিলনের ছেলে দ্বীন মোহাম্মদ রাজু (৩৪), একই উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের দক্ষিণ নেওয়াজপুর গ্রামের সিরাজ উল্লাহর ছেলে মোস্তফা কামাল পুপেল (৪০) ও সোনাগাজী উপজেলার চর মজলিশপুর গ্রামের জামাল হোসেনের ছেলে আবুল হোসেন (৩৫)।

ওই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত দাগনভূঞা উপজেলার মাতুভূঞা ইউনিয়নের রামানন্দপুর গ্রামের বাহার মিয়ার ছেলে আনিসুল হক মিলন (৩৮) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি)রাতে মারা গেলেও তার লাশ বৃহস্পতিবার দেশে এসে পৌঁছায়নি। শনিবার দেশে পৌঁছার কথা রয়েছে। এ ছাড়া সোনাগাজীর নিহত আবুল হোসেনের ছেলে নাদিম হোসেন জন্মগতভাবে আফ্রিকার নাগরিক হওয়ায় তার লাশ সেখানে দাফন করা হয়েছে।

স্বজনরা জানান, সোনাগাজীর নিহত আবুল হোসেনের ১৩ বছরের শিশু ছেলে নাদিম হোসেন জন্মগতভাবে আফ্রিকার নাগরিক হওয়ায় তার মরদেহ সে দেশে দাফন করা হয়েছে। আনিসুলের লাশ আসবে পরে। ওই দুর্ঘটনায় আহত নাহিদ আহমেদের (৩৫) বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলায়। গুরুতর আহত হয়ে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে।