ঢাকা ১১:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

থাইল্যান্ড গিয়ে বৌদ্ধভিক্ষুর বেশধারী ৭ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:১৩:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৫১১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অবৈধভাবে থাইল্যান্ডে প্রবেশের দায়ে বৌদ্ধভিক্ষুর বেশধারী সাত বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় সোংখলা প্রদেশ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তারা ইমিগ্রেশন-সংক্রান্ত যাচাই-বাছাই এড়াতে বৌদ্ধভিক্ষুর বেশ ধরেছিলেন। খবর পাতায়া নিউজ

গ্রেপ্তারকৃত ওই সাত ব্যক্তি মালয়েশিয়া যেতে চেয়েছিলেন। তাদের সবার মাথা কামানো। পরনে ছিল বৌদ্ধভিক্ষুর পোশাক। স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে মিশে যাওয়া ও কর্তৃপক্ষের চোখ এড়াতে তারা এই কৌশল নিয়েছিলেন।

অসমর্থিত সূত্রে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে থাইল্যান্ডের সোংখলা ইমিগ্রেশন ও হাট ইয়াই ট্যুরিস্ট পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে এই সাত জনকে গ্রেপ্তার করে।

তাদের নেতৃত্বে ছিলেন ৪৬ বছর বয়সী একজন। অনুসন্ধানে কর্তৃপক্ষ জানতে পেরেছে, দলটি বাংলাদেশ থেকে ভ্রমণ শুরু করে। তারা মিয়ানমার হয়ে থাইল্যান্ডে প্রবেশ করে।

পাতায়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, তাদের সঙ্গে সপক্ষে কোনো প্রমাণ ছিল না। এই বিষয় উদ্‌ঘাটনের পর তাদের প্রকৃত পরিচয় নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়। পরে তাদরে গ্রেপ্তার করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

থাইল্যান্ড গিয়ে বৌদ্ধভিক্ষুর বেশধারী ৭ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

আপডেট সময় : ০১:১৩:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

অবৈধভাবে থাইল্যান্ডে প্রবেশের দায়ে বৌদ্ধভিক্ষুর বেশধারী সাত বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় সোংখলা প্রদেশ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তারা ইমিগ্রেশন-সংক্রান্ত যাচাই-বাছাই এড়াতে বৌদ্ধভিক্ষুর বেশ ধরেছিলেন। খবর পাতায়া নিউজ

গ্রেপ্তারকৃত ওই সাত ব্যক্তি মালয়েশিয়া যেতে চেয়েছিলেন। তাদের সবার মাথা কামানো। পরনে ছিল বৌদ্ধভিক্ষুর পোশাক। স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে মিশে যাওয়া ও কর্তৃপক্ষের চোখ এড়াতে তারা এই কৌশল নিয়েছিলেন।

অসমর্থিত সূত্রে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে থাইল্যান্ডের সোংখলা ইমিগ্রেশন ও হাট ইয়াই ট্যুরিস্ট পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে এই সাত জনকে গ্রেপ্তার করে।

তাদের নেতৃত্বে ছিলেন ৪৬ বছর বয়সী একজন। অনুসন্ধানে কর্তৃপক্ষ জানতে পেরেছে, দলটি বাংলাদেশ থেকে ভ্রমণ শুরু করে। তারা মিয়ানমার হয়ে থাইল্যান্ডে প্রবেশ করে।

পাতায়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, তাদের সঙ্গে সপক্ষে কোনো প্রমাণ ছিল না। এই বিষয় উদ্‌ঘাটনের পর তাদের প্রকৃত পরিচয় নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়। পরে তাদরে গ্রেপ্তার করা হয়।