ঢাকা ০৩:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

তিতাসে সিগারেট বাকী না দেওয়ায় দোকানীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

মোঃ আসলাম, কুমিল্লা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৭:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
  • / ৫৩২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় সিগারেট বাকী না দেওয়ায় দোকানীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ দুপুরে উপজেলার কানাইনগর গ্রামে। নিহত দোকানী কানাইনগর গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে মো.মানিক মিয়া(৩৬)।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রতিবেশী নায়েব আলীর ছেলে বাহাউদ্দীন বাকীতে সিগারেট চায় এসময় দোকানী মানিক সিগারেট নাই বলে জানালে বাহাউদ্দীন কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাহাউদ্দীন দোকানে প্রবেশ করে দোকানীকে মারধর করতে গিয়ে হাতাহাতির এক পর্যায় বাহাউদ্দীন নাকে আঘাত পায় এবং রক্ত ঝরে। রক্তাক্ত অবস্থায় বাহাউদ্দিন বাড়ি গেলে তার বড় ভাই জালালসহ ৩/৪ জন মিলে  ধারালো ছুরি দোকানী মানিক মিয়াকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে এসময় মানিকের ডাকচিৎকার শুনে স্বজনরা দৌড়ে এসে মানিকে উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরণ করেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মানিককে মৃত ঘোষণা করেন।
এবিষয়ে নিহত মানিকের চাচী রাজমোহন (৬০) বলেন, দুপুরে বাহাউদ্দীন মানিকের দোকানে এসে বাকীতে সিগারেট চায়, তখন মানিক বলেছে সিগারেট নাই, এতে বাহাউদ্দীন ক্ষিপ্ত হয়ে দোকানে ঢুকে মানিককে মারধর করে এসময় বাহাউদ্দীন নাকে আঘাত পেয়ে দৌড়ে বাড়িতে গিয়ে তার ভাইদের সাথে নিয়ে ধারালো ছুরি নিয়ে এসে মানিককে গাই মেরে ফেলে। আমরা খুনিদের বিচার চাই। এবিষয়ে জানতে অভিযুক্তদের বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি ঘর তালা দিয়ে সবাই পালিয়ে গেছে।
তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)কাঞ্চন কান্তি দাস বলেন,আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি এবং অভিযুক্তদের আটক করতে আমাদের একাধিক টিম কাজ করছে।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

তিতাসে সিগারেট বাকী না দেওয়ায় দোকানীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

আপডেট সময় : ০৪:৫৭:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় সিগারেট বাকী না দেওয়ায় দোকানীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ দুপুরে উপজেলার কানাইনগর গ্রামে। নিহত দোকানী কানাইনগর গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে মো.মানিক মিয়া(৩৬)।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, প্রতিবেশী নায়েব আলীর ছেলে বাহাউদ্দীন বাকীতে সিগারেট চায় এসময় দোকানী মানিক সিগারেট নাই বলে জানালে বাহাউদ্দীন কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাহাউদ্দীন দোকানে প্রবেশ করে দোকানীকে মারধর করতে গিয়ে হাতাহাতির এক পর্যায় বাহাউদ্দীন নাকে আঘাত পায় এবং রক্ত ঝরে। রক্তাক্ত অবস্থায় বাহাউদ্দিন বাড়ি গেলে তার বড় ভাই জালালসহ ৩/৪ জন মিলে  ধারালো ছুরি দোকানী মানিক মিয়াকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে এসময় মানিকের ডাকচিৎকার শুনে স্বজনরা দৌড়ে এসে মানিকে উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরণ করেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মানিককে মৃত ঘোষণা করেন।
এবিষয়ে নিহত মানিকের চাচী রাজমোহন (৬০) বলেন, দুপুরে বাহাউদ্দীন মানিকের দোকানে এসে বাকীতে সিগারেট চায়, তখন মানিক বলেছে সিগারেট নাই, এতে বাহাউদ্দীন ক্ষিপ্ত হয়ে দোকানে ঢুকে মানিককে মারধর করে এসময় বাহাউদ্দীন নাকে আঘাত পেয়ে দৌড়ে বাড়িতে গিয়ে তার ভাইদের সাথে নিয়ে ধারালো ছুরি নিয়ে এসে মানিককে গাই মেরে ফেলে। আমরা খুনিদের বিচার চাই। এবিষয়ে জানতে অভিযুক্তদের বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি ঘর তালা দিয়ে সবাই পালিয়ে গেছে।
তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)কাঞ্চন কান্তি দাস বলেন,আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি এবং অভিযুক্তদের আটক করতে আমাদের একাধিক টিম কাজ করছে।
বাখ//আর