ঢাকা ০৪:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

তিতাসে যুবককে নির্যাতন করে পায়ের রগকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

মোঃ আসলাম, কুমিল্লা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:১৩:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৫২৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় এক যুবককে নির্যাতন করে পায়ের রগকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাতে উপজেলার শোলাকান্দি গ্রামে। নিহত যুবক উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের নারান্দিয়া চকের বাড়ির মৃত মরম আলীর ছেলে মো. মাসুম (২৮)।
নিহতের মা মাসুদা বেগম জানান দুপুর ২ টায় খানা খেয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়, আসর নামাজের পর ফোন দিয়ে বিকাশে ৫০,০০০(পঞ্চাশ হাজার টাকা) নেয়। সন্ধ্যা হয়ে গেলে আমার মেয়ে ফোন দিয়ে বাড়িতে আসতে বললে ওই প্রান্ত থেকে বলে আপনার ভাই কালকে আসবে। তখন আমি কান্না করতে থাকি। রাত আনুমানিক আটটায় খবর পাই আমার ছেলে গৌরীপুর হাসপাতালে। গিয়ে দেখি আমার ছেলের সারা শরীরে নির্যাতনের দাগ এবং পায়ের রগ কাটা।দ্রুত ঢাকা নেওয়ার পথে মেঘনা এলাকায় পৌছলে আমার মাসুম মারা যায়। এই কথা বলে মাসুমের বৃদ্ধা মা কান্নায় ভেঙে পরেন এবং বলতে থাকেন ছেলে হত্যার সুষ্ঠ বিচার চাই।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, মাসুম মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল, তাদের ধারণা মাদকের টাকা পয়সা নিয়ে এই হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে।
তিতাস থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাঞ্চন কান্তি দাস বলেন, নিহতের পরিবার সুত্রে জানতে পারি দাউদকান্দি উপজেলার লক্ষিপুর গ্রামের বাসিন্দা একাধিক হত্যা মামলার আাসামী শুক্কুর আলীর সাথে টাকা পয়সার লেনদেন ছিল। এছাড়া ভিকটিম ভিডিওতে বলে গেছে কারা তাকে মারধর করেছে। আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। আশা করি দ্রুত সময়ে হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারবো।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

তিতাসে যুবককে নির্যাতন করে পায়ের রগকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

আপডেট সময় : ০৬:১৩:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় এক যুবককে নির্যাতন করে পায়ের রগকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাতে উপজেলার শোলাকান্দি গ্রামে। নিহত যুবক উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের নারান্দিয়া চকের বাড়ির মৃত মরম আলীর ছেলে মো. মাসুম (২৮)।
নিহতের মা মাসুদা বেগম জানান দুপুর ২ টায় খানা খেয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়, আসর নামাজের পর ফোন দিয়ে বিকাশে ৫০,০০০(পঞ্চাশ হাজার টাকা) নেয়। সন্ধ্যা হয়ে গেলে আমার মেয়ে ফোন দিয়ে বাড়িতে আসতে বললে ওই প্রান্ত থেকে বলে আপনার ভাই কালকে আসবে। তখন আমি কান্না করতে থাকি। রাত আনুমানিক আটটায় খবর পাই আমার ছেলে গৌরীপুর হাসপাতালে। গিয়ে দেখি আমার ছেলের সারা শরীরে নির্যাতনের দাগ এবং পায়ের রগ কাটা।দ্রুত ঢাকা নেওয়ার পথে মেঘনা এলাকায় পৌছলে আমার মাসুম মারা যায়। এই কথা বলে মাসুমের বৃদ্ধা মা কান্নায় ভেঙে পরেন এবং বলতে থাকেন ছেলে হত্যার সুষ্ঠ বিচার চাই।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, মাসুম মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল, তাদের ধারণা মাদকের টাকা পয়সা নিয়ে এই হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে।
তিতাস থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাঞ্চন কান্তি দাস বলেন, নিহতের পরিবার সুত্রে জানতে পারি দাউদকান্দি উপজেলার লক্ষিপুর গ্রামের বাসিন্দা একাধিক হত্যা মামলার আাসামী শুক্কুর আলীর সাথে টাকা পয়সার লেনদেন ছিল। এছাড়া ভিকটিম ভিডিওতে বলে গেছে কারা তাকে মারধর করেছে। আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। আশা করি দ্রুত সময়ে হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারবো।
বাখ//আর