ঢাকা ০৯:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

তিতাসে ভাই-বোনের মারামারিতে আহত ৭ 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৭:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ৪৪৯ বার পড়া হয়েছে

তিতাসে ভাই-বোনের মারামারিতে আহত ৭ 

বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
কুমিল্লা উত্তর জেলা প্রতিনিধি :
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় পাওনা টাকা নিয়ে আপন ভাই-বোনের মারামারিতে অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে উজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়ন বালুয়াকান্দি গ্রামের সরু উদ্দিনের বাড়িতে। আহতরা হলেন, শাহিনা খাতুন(৫০),সরুউদ্দিন(৬০),আরিফ(২৭), সুমি আক্তার (২১), ফাতেমা(১২), রুনা আক্তার (২০) ও মবিন মিয়া(৪০)।
শাহিনা খাতুন বলেন, তার ছোট ভাই  মবিন মিয়ার নিকট ৩,৫০,০০০(তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার) টাকা পায়, এই টাকা চাইলে মবিন মিয়া ও তার ছোট ভাই আমির হোসেন লোকজন নিয়ে বাড়িতে এসে মারধর করে এবং মেয়ে সুমির গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়।
এদিকে মবিন মিয়া অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি তাদের নিকট ৩৭ হাজার টাকা পাই, আমি টাকা চাইতে গেলে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারধর করে মোবাইল ও আমার স্ত্রীর স্বর্ণের চেইন রেখে দেয়। আমি  দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (গৌরীপুর) চিকিৎসা নেই।
স্থানীয় ইউপি সদস্য ফরিদ উদ্দিন বলেন, সরুউদ্দিনের শ্যালক মবিন মিয়ার সাথে পাওনা টাকা নিয়ে গতকাল রাতে তাদের মধ্যে তর্কাতর্কি হলে আমি যেয়ে উভয়কে শান্ত করে বলে আসি পরে বিচার করে দেব। বুধবার  ভোরে মবিন মিয়া লোকজন নিয়ে এসে, সরুউদ্দিন ও তার স্ত্রী, ছেলে- মেয়েদের মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে চলে যায়।
তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক জালাল উদ্দিন বলেন, মারামারি করে ৫/৬ জন আহত হয়ে চিকিৎসা নিতে আসছে, আমরা তাদেরকে ভর্তি দিয়েছি।
তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, মারামারির কোনো অভিযোগ পাইনি,অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

তিতাসে ভাই-বোনের মারামারিতে আহত ৭ 

আপডেট সময় : ০৪:৫৭:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২২
কুমিল্লা উত্তর জেলা প্রতিনিধি :
কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় পাওনা টাকা নিয়ে আপন ভাই-বোনের মারামারিতে অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে উজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়ন বালুয়াকান্দি গ্রামের সরু উদ্দিনের বাড়িতে। আহতরা হলেন, শাহিনা খাতুন(৫০),সরুউদ্দিন(৬০),আরিফ(২৭), সুমি আক্তার (২১), ফাতেমা(১২), রুনা আক্তার (২০) ও মবিন মিয়া(৪০)।
শাহিনা খাতুন বলেন, তার ছোট ভাই  মবিন মিয়ার নিকট ৩,৫০,০০০(তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার) টাকা পায়, এই টাকা চাইলে মবিন মিয়া ও তার ছোট ভাই আমির হোসেন লোকজন নিয়ে বাড়িতে এসে মারধর করে এবং মেয়ে সুমির গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়।
এদিকে মবিন মিয়া অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি তাদের নিকট ৩৭ হাজার টাকা পাই, আমি টাকা চাইতে গেলে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারধর করে মোবাইল ও আমার স্ত্রীর স্বর্ণের চেইন রেখে দেয়। আমি  দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (গৌরীপুর) চিকিৎসা নেই।
স্থানীয় ইউপি সদস্য ফরিদ উদ্দিন বলেন, সরুউদ্দিনের শ্যালক মবিন মিয়ার সাথে পাওনা টাকা নিয়ে গতকাল রাতে তাদের মধ্যে তর্কাতর্কি হলে আমি যেয়ে উভয়কে শান্ত করে বলে আসি পরে বিচার করে দেব। বুধবার  ভোরে মবিন মিয়া লোকজন নিয়ে এসে, সরুউদ্দিন ও তার স্ত্রী, ছেলে- মেয়েদের মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে চলে যায়।
তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক জালাল উদ্দিন বলেন, মারামারি করে ৫/৬ জন আহত হয়ে চিকিৎসা নিতে আসছে, আমরা তাদেরকে ভর্তি দিয়েছি।
তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, মারামারির কোনো অভিযোগ পাইনি,অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।