বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:০৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বৃহস্পতিবার থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট ১৬ বছর পর ডেনমার্ককে হারিয়ে শেষ ষোলো’তে অস্ট্রেলিয়া চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়েও তিউনিসিয়ার কান্না রাউজানে ডাকাতির ঘটনায় র‌্যাবের হাতে আরো এক ডাকাত আটক রাউজানে স্কুল থেকে ফেরার পথে ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় যুবক কারাগারে রাউজানে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার ‘আওয়ামী লীগ গরীব দুখী মেহনতি মানুষের কল্যানে রাজনীতি করে’ -কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি মুহিব ডিমলায় বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা রিজার্ভ কমে ৩৩ বিলিয়নে নেমেছে নিউজিল্যান্ডদের কাছে সিরিজ হারল ভারত তিন নারী রেফারি, ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ কীর্তি সুরেশের বিয়ে প্রফেসর মযহারুল ইসলাম ॥ শ্রদ্ধাঞ্জলি সিটি করপোরেশনে মহামারি বিশেষজ্ঞ পদসৃষ্টির প্রস্তাব পেয়েছি : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সফরে আসছে ভারত

ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আশফাক, সাধারণ সম্পাদক নিপুণ

ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আশফাক, সাধারণ সম্পাদক নিপুণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : 
ঢাকা জেলা বিএনপির ৫ সদস্যবিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে খন্দকার আবু আশফাককে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) বিকালে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
সভাপতি আশফাক ঢাকা জেলা বিএনপির সদ্যবিদায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। আর নিপুণ রায় চৌধুরী বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও কেরানীগঞ্জ দক্ষিণ থানা বিএনপির সভাপতি। এছাড়াও নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

নতুন কমিটিতে অন্যরা হলেন- সিনিয়র সহ-সভাপতি খন্দকার শাহ মাইনুল হোসেন বিল্টু, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. শামছুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার ইরফান ইবনে আমান অমি। এর মধ্যে অমি হলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের ছেলে।

জানতে চাইলে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, প্রথমত আমার ওপর আস্থা রেখে ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত করায় দলের চেয়ারপারসন ও গণতন্ত্রের মাতা খালেদা জিয়া এবং দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

নিপুণ বলেন, এখন আমরা একটি কাজ করতে চাই তা হচ্ছে- আগামী আন্দোলন সংগ্রাম সফলে স্বল্প সময়ের মধ্যে জেলার ১০টি ইউনিটের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকা জেলা বিএনপিকে আন্দোলনের মডেল ইউনিট হিসেবে গড়ে তোলা। আমাদের লক্ষ্য সরকারের পতন ঘটিয়ে গণতন্ত্রের মাতা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্ত করা, গণতান্ত্রিক পরিবেশে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশের মাটিতে ফিরিয়ে আনা এবং ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিয়ে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মধ্যদিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *