ঢাকা ০১:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ডিমলায় তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

বাদশা সেকেন্দার ভুট্টো, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৮:০২:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪
  • / ৪৩৯ বার পড়া হয়েছে
বাংলা খবর বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
বুধবার (১২ই জুন) সকালে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে ডিমলা উপজেলায় গঠিত টাস্কফোর্স কমিটির দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে সালমা এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক সরকার মিন্টু।
বক্তারা বলেন, ধূমপান মানে বিষপান। যা মানুষকে কুড়িয়ে কুড়িয়ে শেষ করে দেয়।  তামাকজাত দ্রব্যের ইতিবাচক কোনো দিক নেই বরং ক্ষতির অনেক দিক রয়েছে। গুল-জর্দ্দা, সিগারেট ইয়াবা ট্যাবলেট চেয়েও ক্ষতিকর বেশি।
সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ধূমপায়ী ব্যক্তি নিজে ক্ষতিগ্রস্ত হয় আবার এ দ্বারা আশপাশে থাকা মানুষদেরও ক্ষতি করে। কালের বিবর্তনে তামাকের ব্যবহারেও ভিন্নতা এসেছে। তামাক, জর্দ্দা, বিড়ি, সিগারেট পেরিয়ে তরল নিকোটিন বহনকারী ক্ষতিকর ই-সিগারেটের ব্যবহারও এখন দৃশ্যমান।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সেকেন্দার আলী বলেন, সরকার ২০৪০ সালের মধ্যে বিড়ি, সিগারেট, জর্দার মতো তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে দেশের মানুষ তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা পাবে। তাই ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার আইন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ডিমলা উপজেলা ধূমপান মুক্ত করা হবে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রাশেদুজ্জামান বলেন আইন অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, ক্লিনিক, শিশুপার্ক ও খেলাধুলার স্থান থেকে একশ মিটারের মধ্যে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি নিষেধ এবং ১৮ বছরের কম বয়সী শিশুর দ্বারা ক্রয় বা তামাকজাত দ্রব্য সিগারেট ফেরি করে বা ভ্রাম্যমাণ দোকানের মাধ্যমে বিক্রি করা যাবে না।
অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন  উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা আখতার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু উত্তম কুমার রায়, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ আয়শা সিদ্দিকী সরকার, ডিমলা সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মোকলেছুর রহমান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ  উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা খন্দকার এনামুল কবীর প্রমুখ।
মুক্ত আলোচনায় উপস্থিত বক্তারা বলেন, মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এ তামাক, তাই তামাক চাষ একেবারেই বন্ধ করা প্রয়োজন।
বাখ//আর

নিউজটি শেয়ার করুন

ডিমলায় তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

আপডেট সময় : ০৮:০২:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪
বুধবার (১২ই জুন) সকালে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে ডিমলা উপজেলায় গঠিত টাস্কফোর্স কমিটির দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে সালমা এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক সরকার মিন্টু।
বক্তারা বলেন, ধূমপান মানে বিষপান। যা মানুষকে কুড়িয়ে কুড়িয়ে শেষ করে দেয়।  তামাকজাত দ্রব্যের ইতিবাচক কোনো দিক নেই বরং ক্ষতির অনেক দিক রয়েছে। গুল-জর্দ্দা, সিগারেট ইয়াবা ট্যাবলেট চেয়েও ক্ষতিকর বেশি।
সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ধূমপায়ী ব্যক্তি নিজে ক্ষতিগ্রস্ত হয় আবার এ দ্বারা আশপাশে থাকা মানুষদেরও ক্ষতি করে। কালের বিবর্তনে তামাকের ব্যবহারেও ভিন্নতা এসেছে। তামাক, জর্দ্দা, বিড়ি, সিগারেট পেরিয়ে তরল নিকোটিন বহনকারী ক্ষতিকর ই-সিগারেটের ব্যবহারও এখন দৃশ্যমান।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সেকেন্দার আলী বলেন, সরকার ২০৪০ সালের মধ্যে বিড়ি, সিগারেট, জর্দার মতো তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে দেশের মানুষ তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা পাবে। তাই ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার আইন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ডিমলা উপজেলা ধূমপান মুক্ত করা হবে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রাশেদুজ্জামান বলেন আইন অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, ক্লিনিক, শিশুপার্ক ও খেলাধুলার স্থান থেকে একশ মিটারের মধ্যে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি নিষেধ এবং ১৮ বছরের কম বয়সী শিশুর দ্বারা ক্রয় বা তামাকজাত দ্রব্য সিগারেট ফেরি করে বা ভ্রাম্যমাণ দোকানের মাধ্যমে বিক্রি করা যাবে না।
অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন  উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা আখতার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু উত্তম কুমার রায়, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ আয়শা সিদ্দিকী সরকার, ডিমলা সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মোকলেছুর রহমান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ  উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা খন্দকার এনামুল কবীর প্রমুখ।
মুক্ত আলোচনায় উপস্থিত বক্তারা বলেন, মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এ তামাক, তাই তামাক চাষ একেবারেই বন্ধ করা প্রয়োজন।
বাখ//আর